বিশ্বের প্রথম বিমান-গাড়ি; আকাশে পাড়ি দিতে পারে ঘন্টায় ২০০ মাইল ।

একের পর এক নতুন উ’দ্ভা’বনে ছেয়ে যাচ্ছে পুরো বিশ্ব। আ’ধুনিক বিশ্বের স’ঙ্গে তাল মে’লাতে ক’মতি নেই কোনো ক্ষেত্রেই। প্র’যু’ক্তি’র এই দৌ’ড়ে এবার নি’র্মিত হয়েছে উ’ড়’ন্ত গাড়ি। গত মঙ্গলবার রাতে প্র’দ’র্শি’ত হয়েছে প্রথম ‘ফ্লাই অ্যান্ড ড্রাইভ’ গাড়িটি। যু’ক্তরা’ষ্ট্রের ফ্লো’রিডা অ’ঙ্গরাজ্যের মায়ামিতে প্র’দ’র্শি’ত এই গাড়িটি ওড়ার পা’শাপা’শি সাধারণ রাস্তাতেও চলতে পারবে নি’র্বি’ঘ্নে।

এটিই বিশ্বের প্রথম গাড়ি যা একই স’ঙ্গে চলতে ও উড়তে স’ক্ষ’ম! এই গাড়ির নাম রাখা হয়েছে ‘পাইওনিয়ার পারসোনাল এয়ার ল্যান্ডিং ভেহিকেল’। পিএএলভি এর বডি তৈরি হয়েছে কার্বন ফাইবার, টাইটেনিয়াম ও অ্যালুমিনিয়াম ধা’তুর সা’হায্যে। গাড়িটির ওপ’রের অং’শ ও পে’ছনের প্র’পেলার প্র’য়োজনে রা’খা যায় ভাঁ’জ করে। একটি বাটন চাপলেই বাদুরের মতো ডানা মেলে দিতে পারে গাড়িটি।

জানা গেছে এই উ’ড়’ন্ত গাড়ির ওজন ১৫০০ পাউন্ড। শুধু তাই নয় ভূমি থেকে ১২ হাজার পাঁচশ’ফুট ওপরে উঠতে স’ক্ষ’ম এই গাড়ি। তবে এই বিশেষ গাড়িটি উড্ডয়নের জন্য প্রয়োজন ৫৪০ ফুট দীর্ঘ রানওয়ে এবং অ’বতরণের জন্য প্রয়োজন ক’মপ’ক্ষে ১০০ ফুট দীর্ঘ রানওয়ে। তবে আ’ক’র্ষণী’য় বিষয় হলো, এই গাড়িটিও অন্য গাড়ির মতোই জ্বা’লানিতে চলে।

এতে চার-সিলিন্ডার বিশিষ্ট একটি ই’ঞ্জিন রয়েছে। এই বিমান-গাড়ি স’ড়’কে প্রতি ঘন্টায় যেতে পারে ১০০ মাইল এবং উ’ড়তে পারে ঘণ্টা প্রতি ২০০ মাইল বে’গে। পিএএল-ভি’র প্রধান নি’র্বাহী ক’র্মক’র্তা (সিইও) রবার্ট ডি’ঙ্গেমা’ন্সে বলেন, প্র’যু’ক্তিগত সব বাধা অ’তি’ক্র’ম করে একটি উ’ড়’ন্ত গাড়ি তৈরি করতে স’ক্ষ’ম হয়েছে আমাদের টিম। গাড়িটিতে নিরাপ’ত্তার সব ব্য’বস্থা রয়েছে।

চলচ্চিত্রে অসংখ্যবার উ’ড়’ন্ত গাড়ি দেখেছি। পরের বছর থেকেই তা বা’স্তবে পরিণত হতে যাচ্ছে। এই উ’ড়’ন্ত গাড়ির ক্ষেত্রে আ’রোহীর সংখ্যা মাত্র ২ জন। জানা গেছে ২০২১ সাল নাগাদ বাজারে আসবে এই বিশেষ বিমান-গাড়ি। এটি কিনতে হলে আপনাকে গু’নতে হবে ৫ লাখ ৯৯ হাজার মা’র্কিন ডলার। অর্থাৎ বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৫ কোটি ৮ লাখ ১৯ হাজার টাকা। বাজারে আসার আগেই অর্ডার করা হয়েছে ৭০টি গাড়ি। এই নতুন গাড়িটি কিনতে চাইলে ড্রাইভিং লাইসেন্সের পা’শাপা’শি থাকতে হবে বিমান ওড়ানোর লাইসেন্সও! এবার তাহলে বাড়িতে পাইলট রাখার বন্দ’ব’স্ত করে ফে’লাই শ্রেয়!