নওগাঁয় চেয়ারম্যানের ঠিকাদার ছেলে বানালেন আজব ব্রিজ ।

নওগাঁর পত্নীতলায় অ’পরিক’ল্পিতভাবে এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের টাকা ব্যয় করার অ’ভিযোগ উঠেছে। কোনো রাস্তা ছাড়াই ডোবার মধ্যে ফুট ব্রিজ নির্মাণ করায় তা স্থানীয় মানুষের কোনো কাজে আসছে না।ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কৌশলে তার ছেলে মো. মশিউর রহমানকে দিয়ে এ কাজ করিয়ে নেন। এ নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে চরম ক্ষো*ভ বিরাজ করছে। সরকারি উন্নয়নের টাকায় মনগড়া প্রকল্পে ব্যয় করায় প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়েছে স্থানীয় প্রশা*সনের কাজ।

সরেজমিনে পরিদর্শন ও অনুসন্ধানে জানা গেছে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে ১ লাখ ২ হাজার ৩৭ টাকা ব্যয়ে নজিপুর-ধামইরহাট আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে পাটিচড়া ইউনিয়নের বিজিবি ক্যাম্পের অদূরে এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের আওতায় ফাঁকা স্থানে একটি ফুট ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়েছে একটি ডোবার মধ্যে। এখানে নেই কোনো চলাচলের রাস্তা, ব্রিজে ওঠার নেই কোনো ব্যবস্থা।

নিয়ম অনুযায়ী গ্রামের মানুষের চলাচলের সুবিধার্থে রাস্তার মাথায় ফুট ব্রিজ নির্মাণ করে দুপাশে মাটি দিয়ে ভরাট করার কথা থাকলেও এক্ষেত্রে নিয়ম মানা হয়নি।সরকারের টাকা ব্যয়ে নির্মিত ব্রিজটি মুখ থুবড়ে পড়ে আছে একটি ডোবার মধ্যে। যেন সরকারি মাল দরিয়ায় ঢাল। নিয়ম অনুযায়ী টেন্ডার দিয়ে ফুট ব্রিজের কাজ করার কথা থাকলেও পাটিচরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কৌশলে তার ছেলে মো. মশিউর রহমানকে দিয়ে কাজ করিয়ে নেন।

চেয়ারম্যান বাবার সহায়তায় ঠিকাদার পুত্র নামমাত্র কাজ করে বিল উত্তোলন করেন। এ বিষয়ে ঠিকাদার মশিউর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন কিছু দিনের মধ্যেই ফুট ব্রিজের দু’পাশে মাটি ভরাটের কাজ শুরু করা হবে।এ বিষয়ে উপজে’লা নির্বাহী অফিসার মো. লিটন সরকারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি বিষয়টি ত’দন্ত করে দেখব। সুত্রঃ যুগান্তর।