ওসি মোয়াজ্জেমের ৮ বছর জেলঃ যা বললেন ব্যারিস্টার সুমন ।

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির ভিডিওচিত্র সামাজিক যো’গাযো’গমা’ধ্যমে ছ’ড়িয়ে দেয়ার অভিযো’গে সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রা’প্ত কর্ম’ক’র্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে ৮ বছরের কা’রাদ’ণ্ড দিয়েছেন আদালত। সাথে আরও ১৫ লাখ টাকার জ’রিমানাও করা হয়েছে তাকে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় প্রথম রায় এটি। মামলার বাদী ছিলেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

রায়ে সন্তু’ষ্টি প্র’কাশ করে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ওসি মোয়াজ্জেম সাহেব যে অ’পরাধ সংঘটিত করেছেন তাকে বি’চারের মু’খোমু’খি করা ছিল আমার সবচেয়ে বড় সফলতা। উনি ৮ বছর জে’লে থাকবেন, ১৫ লক্ষ টাকা ফাইন দেবেন এবং ফাইন নুসরাতের পরিবারকে দেবেন। ফাইন না দিলে উনি আরও ১ বছর জে’লে থাকবেন। তিনি জানান, আমার আরেকটা ইচ্ছা ছিল,

যে সব পুলিশ ক’র্মক’র্তা এই থানাগুলোকে জমিদারবাড়ির মতো মনে করেন, জমিদারের মতো অন্যান্য মানুষের সাথে আচরণ করেন তাদের জন্য এই রায়টি একটি মাইলফলক এবং অশনি সংকেত হয়ে থাকবে। আমি মনে করি থানা হচ্ছে সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান, এখানে যখন মানুষ যাবে তাদের সেবা করা হবে, জমিদারের মতো আ’চরণ করা হবে না।

ব্যারিস্টার সুমন জানান, আদালত প’র্যবে’ক্ষণে বলেছেন ওসি মোয়াজ্জেমের যে দা’য়িত্ব তিনি তা পালনে স’ম্পূর্ণরূ’পে ব্য’র্থ হয়েছেন। আমরা ৩টি ধারায় অ’ভিযোগ দা’য়ের করি। তার ম’ধ্যে দুটি ধারায় স’ম্পূর্ণরূ’পে প্রমাণিত হয়েছে। এজন্য আদালত ওসি মোয়াজ্জেমকে সর্বোচ্চ সা’জা দিয়েছেন।