যৌতুক না পেয়ে অন্য নারীকে বিয়ে করলেন ইউপি চেয়ারম্যান ।

পাবনার বেড়া উপজেলার চাকলা ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক হোসেনের বিরুদ্ধে নারী নি’র্যা’তন ও যৌ’তুক দাবির অভিযো’গে মামলা করেছেন তার স্ত্রী সায়মা খাতুন। গত শুক্রবার বেড়া থানায় তিনি এ মামলা করেন। থানার ওসি শাহিদ মাহমুদ খান মামলাটি গ্রহণ করে পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য আ’দালতে পাঠিয়েছেন। এজাহারে সায়মা খাতুন উল্লেখ করেন, ১১ বছর আগে ফারুক চেয়ারম্যানের সঙ্গে তার বিয়ে হয়।

তাদের সালমান মুনতাসির তাছিন এবং ফাতির আল হাসান (দেড় বছর) নামে দুই সন্তান আছে। সায়মা অভিযোগ করেন, ফারুক প্রায়ই নে’শা করে বাড়ি ফিরতেন। যৌতুক দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এরমধ্যে ১০-১২ লাখ টাকা দেয়া হয়েছে। এর পরেও বাবার কাছ থেকে যৌ’তুকের টাকা আনার জন্য নানাভাবে চাপ দিতে থাকেন। যৌ’তুক না পাওয়ায় তাকে প্রায়ই নি’র্যা’তন করা হতো।

এরমধ্যে তার অনুমতি ছাড়াই নাসিমা খাতুন নামের এক নারীকে বিয়ে করেন। এরপর থেকে নি’র্যাত’নের মাত্রা আরো বাড়তে থাকে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২১ নভেম্বর ফারুক বেদম মা’রধর করে। ওসি শাহিদ মাহমুদ খান জানান, মাম’লাটি গ্রহণ করা হয়েছে। আসামিকে গ্রে’ফতারের চেষ্টা চলছে।চাকলা ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক হোসেন জানান, বনিবনা না হওয়ায় মাম’লাটি করেছে স্ত্রী।