বার্ষিক পরীক্ষার ইংরেজি প্রশ্নপত্রে উল্লেখিত হলো আবরার ফাহাদ ।

এবার মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার ইংরেজি প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হয়েছে নি’হ’ত বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদকে নিয়ে। প্রশ্নপত্রে আবারারের ওপর একটি প্যাসেজ দেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীদের সে আলোকে প্রশ্নের উত্তর দিতে বলা হয়েছে। প্যাসেজে লেখা হয়েছে, আবরার ফাহাদ ১৯৯৯ সালে কুষ্টিয়ার রায়ডাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম বরকতুল্লাহ এবং মাতা রোকেয়া খাতুন। তার ছোট ভাই আবরার ফাইয়াজ।

তিনি বাবার-মায়ের প্রতি কর্তব্যপরায়ণ ছিলেন। ছাত্র হিসেবেও ছিলেন খুব মেধাবী এবং বুদ্ধিমান। তিনি এসএসি ও এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছেন। এতে বলা হয়েছে, আবরার তার স্বপ্ন পূরণের জন্য বুয়েটে ভর্তি হন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়টির শেরাবাংলা হলে থাকতেন। ২০১৯ সালের ৭ অক্টোবর তিনি হ’ত্যা’কাণ্ডের শি’কা’র হন। প্যাসেজে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, শৈশব থেকেই আবরার ফাহাদ নম্র-ভদ্র ও ধর্মীয় জীবন যাপন করতেন।

প্রসঙ্গত, গত ৬ অক্টোবর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদ ছাত্র লীগের নি’র্ম’ম নি’র্যা’ত’নে মৃ’ত্যু’বরণ করেন। এ ঘটনায় বুয়েট থেকে ২৬ শিক্ষার্থীকে স্থায়ী ভাবে বহিষ্কার করা হয়। বাংলাদেশের ছেলে মেহেদী সুযোগ পেল যুক্তরাজ্যের নৌবাহিনীতে ! যুক্তরাজ্যের রয়্যাল নেভীতে কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশের ময়মনসিংহের শেফ মো: মেহেদী হাসান (২২) ।

বাংলাদেশের এই তরুণ শিক্ষানবিশ রয়্যাল নেভীর সাধারণ প্রশিক্ষনের সময় নিয়োগপ্রাপ্তদের মধ্যে থেকে শীর্ষ পুরষ্কার লাভ করেন । শিক্ষানবিশ শেফ মো: মেহেদী হাসান ২০১৯ সালের জুলাই মাসে রয়্যাল নেভীতে যোগদান করেন। সা’ম’রি’ক পেশার প্রস্তুতি হিসেবে সম্প্রতি তার ১০ সপ্তাহের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। প্রশিক্ষণটি শেষ হয় নব্য নিয়োগপ্রাপ্তদের প্যারেডের মধ্য দিয়ে। এই প্যারেডে পরিশ্রমের স্বীকৃতি স্বরুপ শেফ মো: মেহেদী হাসান ক্যাপ্টেন পদকে ভূষিত হন।

শেফ হাসান যুক্তরাজ্যে এসেছিলেন স্কাউট অ্যাসোসিয়েশনের দাতব্য কর্মী হিসেবে। তিনি বলেন, ‘আমি স্কাউটিং পছন্দ করি। রয়্যাল নেভিতে যোগদানে স্কাউট আমাকে সাহস যুগিয়েছে। গত ১০ সপ্তাহ আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ সময় ছিলো এবং আমি রয়্যাল নেভির সদস্য হতে পেরে গর্বিত।’ যুক্তরাজ্যের র‌য়্যাল নেভির প্রাথমিক নৌ প্রশিক্ষণ কোর্সটি নয়টি কেন্দ্রীয় নীতি ও দক্ষতায় পরিচালিত যা নৌ জীবন ও কার্যকর অপারেশনের ভিত্তি হিসেবে কাজ করে।

প্রশিক্ষণে নিয়োগপ্রাপ্তদের মৌলিক নৌ শৃঙ্গলা ও রীতিনীতি, নেভিগেশন সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হয়। পানিতে অনুশীলনের সময় তাদের নিজস্ব ইনফ্ল্যাটেবল বোট ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া হয়। র‌য়্যাল নেভি সদস্যদের স্থলভিত্তিক অ’পা’রে’শ’ন’গু’লো’তে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হয়। তাই নিয়োগপ্রাপ্তদের মৌলিক যু”দ্ধে”র প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়।

ফিটনেস অর্জন করা শেফ হাসানের প্রশিক্ষণের একটি মৌলিক অংশ। এই সা”ম”রি”ক প্রশিক্ষণটি সদস্যদের নিজস্ব ও সমন্বিত শক্তি ও সহনশীলতার বিকাশ ঘটাতে সহায়তা করে। সদস্যদের আরো তিনটি অতিরিক্ত অনুশীলনে অংশ নিতে হয় যেখানে কিছু পরীক্ষার সম্মুখীন হয়ে তাদের অর্জিত দক্ষতাকে ব্যবহার করে ।