যুক্তরাষ্ট্র মুসলমানদের বন্ধু ছিল না, কখনও হবেও না: রুহানি

যুক্তরাষ্ট্র কখনই মুসলমানদের বন্ধু ছিল না বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। বৃহস্পতিবার ইরানের রাজধানী তেহরানে ৩৩তম আন্তর্জাতিক ইসলামি ঐক্য সম্মেলনের উদ্বোধনী ভাষণে এ কথা বলেন তিনি। ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, নতুন প্রজন্মকে এটি বুঝতে হবে- যুক্তরাষ্ট্র মুসলমানদের বন্ধু ছিল না এবং কখনও বন্ধু হবেও না। মধ্যপ্রাচ্য সংকটের বিষয়ে তিনি বলেন, ফিলিস্তিনি জনগণ এবং এই অঞ্চলের মুসলমানরাই ফিলিস্তিনকে মুক্ত করবে। যুক্তরাষ্ট্র এ বিষয়ে কিছুই করতে পারবে না। এই অঞ্চলের মানুষের মাধ্যমেই এখানকার সমস্যার সমাধান হবে।

মুসলিম বিশ্বের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র ইসরাইলের নানা ষড়যন্ত্রের কথা তুলে ধরে ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, আমেরিকার ঘৃণ্য ষড়যন্ত্রের কারণে আফগানিস্তান, ইরাক ও ইয়েমেনে নিরপরাধ ও মজলুম মানুষের প্রাণহানি ঘটছে এবং মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে দ্বন্দ্ব ও অনৈক্য সৃষ্টি হচ্ছে। ফিলিস্তিন ও বায়তুল মোকাদ্দাস গোটা মুসলিম বিশ্বের মূল ইস্যু মন্তব্য করে তিনি বলেন, বিশ্বের মুসলমানরা এই ইস্যু মুছে ফেলতে দেবে না।

রুহানি আরও বলেন, দুঃখজনকভাবে কিছু মুসলিম দেশ ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে আপস করছে এবং ইসরাইলের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে নিজের মুসলমান ভাই ও প্রতিরোধ সংগ্রামের বিরুদ্ধে ব্যবহার করছে। তিনি বলেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মোকাবেলায় ফিলিস্তিনিদের রক্ষায় ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান ফ্রন্ট লাইনে রয়েছে। উল্লেখ্য, ইসলামি ঐক্য সম্মেলনে বিশ্বের ৯০ দেশের ৪০০ জন প্রখ্যাত ইসলামি চিন্তাবিদ ও আলেম যোগ দিচ্ছেন। তারা ইসলামি ঐক্যের প্রয়োজনীয়তা ও উপায় নিয়ে আলোচনা করবেন। ১৬ নভেম্বর পর্যন্ত এ সম্মেলন চলবে।