দেশে ফিরে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা না বলেই চলে গেলেন সুমি

গণমাধ্যম কর্মীরা অ’পেক্ষায়। সেই সঙ্গে অ’পেক্ষায় তার স্বামী নূরুল ইস’লামও। কিন্তু সময় যায়, দেখা মেলে না সৌদি আরবে নি’র্যাতনের শিকার বাংলাদেশি গৃহকর্মী সুমি আক্তারের। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টায় এয়ার আরাবিয়ার একটি ফ্লাইটে হযরত শাহ’জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান সুমি। কিন্তু দেশে ফেরার পর সংবাদমাধ্যমের অগোচরেই বিমানবন্দর ত্যাগ করেন তিনি। এমনকি তার স্বামী নূরুল ইস’লামও জানতে পারেননি যে সে বাড়ি চলে গেছে।

তিনিও গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে বিমানবন্দরে অ’পেক্ষায় ছিলেন। জানা গেছে, ঠিক সময়ই দেশে ফিরেছেন সৌদি আরবে নি’র্যাতনের শিকার বাংলাদেশি গৃহকর্মী সুমি আক্তার। তার সঙ্গে, সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন নির্যাতিত আরও ৯০ নারী গৃহকর্মী। কিন্তু গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা না বলেই সুমি বিমানবন্দর ত্যাগ করেন।পরে ব্র্যাকের কর্মীরা জানান, সুমি ফ্লাইট থেকে নেমে টার্মিনাল-১ দিয়ে বাড়ি চলে গেছেন।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি ফেসবুকে কা’ন্নাজ’ড়িত কণ্ঠে তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া পাশবিক নি’র্যাতনের কথা বলে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানান সুমি। পরবর্তী ভিডিওটি ভাইরাল হয়।ভিডিওতে সুমি বলেন, ‘ওরা আমা’রে মাইরা ফালাইব, আমা’রে দেশে ফিরাইয়া নিয়া যান। আমি আমা’র সন্তান ও পরিবারের কাছে ফিরতে চাই। আমাকে আমা’র পরিবারের কাছে নিয়ে যান। আর কিছু দিন থাকলে আমি ম’রে যাব।’

আশুলিয়ার চারাবাগ এলাকায় নুরুল ইস’লামের বাড়িতে গিয়ে জানা গেছে, চলিত বছরের জানুয়ারিতে গৃহকর্মীর ট্রেনিং শেষ করেন সুমি।এরপর গত ৩০ মে ‘রূপসী বাংলা ওভারসিজ’ নামে একটি এজেন্সির মাধ্যমে হযরত শাহ’জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্স (এসভি) ৮০৫ যোগে সৌদি যান সুমি। সেখানে যাওয়ার পর সবসময় স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার ওপর বয়ে যাওয়া নি’র্যাতনের ঘটনা বর্ণনা দেন।