সৌদির মাথায় হাত, ৫৩বিলিয়ন ব্যারেল তেলের খনির সন্ধান পেয়েছে ইরান ।

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের খু’জিস্তা’ন প্রদেশে তেলের খনির স’ন্ধান পে’য়েছে ইরান। এতে ৫০ বিলিয়ন ব্যারেলেরও বেশি তেল মজুদ রয়েছে বলে ধা’রণা করা হচ্ছে। রোববার (১০ নভেম্বর) ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমা’ধ্যম এ ত’থ্য জানায়। খবরে বলা হয়, ইরানের দক্ষিণাঞ্চলের একটি প্রদেশে প্রায় ৫০ বিলিয়ন ব্যারেলেরও বেশি একটি তেলের খনির স’ন্ধান পাওয়া গে’ছে।

যু’ক্তরা’ষ্ট্রের নি’ষেধাজ্ঞার মধ্যে খ’নির স’ন্ধান পাওয়া নিঃস’ন্দেহে ইরানের তেলের রিজার্ভকে আরও স’মৃদ্ধ করে তুলবে। এমন সময় ইরানের প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে এ ঘো’ষণা এলো যখন যু’ক্তরাষ্ট্রের নি’ষেধাজ্ঞা ও ইউরোপের স’ঙ্গে পরমাণু চু’ক্তি নিয়ে কঠিন সময় পার করছে দেশটি। রুহানি দেশটির ইয়াজদ শহরে দেওয়া এক ভাষণে তেলের খনির স’ন্ধান পাওয়ার বিষয়টি ঘো’ষণা করেন। তিনি বলেন, এ তেলের খনির অ’বস্থান তেলশিল্পের জন্য অ’ত্যন্ত গু’রুত্বপূর্ণ প্রদেশ দক্ষিণের খু’জিস্তা’নে। ইরানের ১৫০ বিলিয়ন ব্যারেলের তেলের রিজার্ভের স’ঙ্গে নতুন করে আরও ৫৩ বিলিয়ন যো’গ হতে যাচ্ছে।

‘আমি হোয়াইট হাউসকে বলতে চাই, আপনারা যখন ইরানের তেল বি’ক্রির ওপর নি’ষেধাজ্ঞা দিয়ে যাচ্ছেন, এমন প’রিস্থিতিতে আমাদের শ্রমিক ও প্রকৌশলীরা আরও ৫৩ বিলিয়ন ব্যারেলের তেলের খনির স’ন্ধান পে’য়েছেন।’ ইরান অপরিশো’ধিত তেল রিজার্ভের ক্ষেত্রে বিশ্বে চতুর্থ অ’বস্থানে রয়েছে। একইস’ঙ্গে প্রাকৃতিক গ্যাস রিজার্ভের ক্ষেত্রেও দেশটি বিশ্বে দ্বিতীয়।নতুন স’ন্ধান পাওয়া খনিটি হতে যাচ্ছে ইরানের দ্বিতীয় বৃহত্তম। প্রথমটি হলো আহভাজ শহরে। এ খনিতে রয়েছে ৬৫ বিলিয়ন ব্যারেল তেল।