শুরু হল খোকার ম,রদেহ দেশে আনার প্রক্রিয়া…

সাদেক হোসেন খোকার শ্যালক শফিউল আজম খান খান জানিয়েছেন, পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর মৃ,তদেহ ঢাকায় আনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সাদেক হোসেন খোকার ইচ্ছা অনুযায়ী জুরাইন ক,বরস্থানে তাকে তাঁর বাবা-মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হবে। তিনি উল্লেখ করেছেন, দুই বছর আগে সাদেক হোসেন খোকার বাংলাদেশ পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হবার পর, নিউইয়র্কে বাংলাদেশ দূতাবাসে তিনি মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেও জবাব পাননি। এখন তাঁর মৃ,তদেহ ঢাকায় নেয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ট্রাভেল ডকুমেন্ট প্রয়োজন। তিনি আরও জানিয়েছেন, তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ দূতাবাসে ট্রাভেল ডকুমেন্টের জন্য ইতিমধ্যে আবেদন করেছেন।

সেই কাগজ হাতে পাবার পরই তাঁর মৃ,তদেহ দেশে ফিরিয়ে আনার সময়ক্ষণ পরিবার ঠিক করবেন। এরআগে বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে নিউইয়র্কে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সাদেক হোসেন খোকা (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার মৃত্যুর সংবাদটি বিডি২৪লাইভকে নিশ্চিত করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

উল্লেখ্য, ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে সপরিবারে নিউইয়র্ক চলে যান অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিউইয়র্ক সিটির কুইন্সে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে থাকছিলেন। গুরুতর অসুস্থ ছিল। গত সোমবার কিডনি ক্যান্সারে আক্রান্ত খোকার শারীরিক অবস্থার চরম অবনতি ঘটে। তাকে নিউইয়র্কের স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে ভর্তি করা হয়। এরপর স্বাস্থ্যের আরও অবনতি ঘটলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়েছিল।