প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর নেতৃত্বে ৬ সদস্যের প্রতিনিধি দল মালয়েশিয়া সফর ।

দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম শ্রমবাজার, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উ’ন্মুক্তক’রণ সহ বিভিন্ন দ্বি’পাক্ষি’ক আলোচনার জন্য প্রবাসী কল্যাণ ম’ন্ত্রীর নে’তৃত্বে ৬ সদস্যের প্র’তিনি’ধি দল মালয়েশিয়ার সফর চূ’ড়ান্ত ক’রেছে। ৫ থেকে ৮ নভেম্বর মালেশিয়ার পু’ত্রাজা’য়া সেদেশের মানব স’ম্পদ ম’ন্ত্রণাল’য় সহ মাহাথির সরকারের বিভিন্ন গু’রুত্বপূ’র্ণ ম’ন্ত্রীবর্গের স’ঙ্গে আলোচনা করার কথা রয়েছে। আলোচনায় প্রাধান্য পাবে ব’ন্ধ থাকা মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উ’ন্মুক্ত সহ দ্বি’পাক্ষি’ক বিভিন্ন আলোচনা।

উ’ল্লেখ্য চলতি বছরের ১৪ মে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক ক’র্মসংস্থা’ন ম’ন্ত্রী (তখন প্রতিম’ন্ত্রী) ইমরান আহমদ মালয়েশিয়া সফরে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তানশ্রি মুহিউদ্দিন ইয়াসিন ও মানবসম্পদ ম’ন্ত্রী এম কুলাসেগারানের সাথে বৈঠক করেন। সেই বৈ’ঠকের অ’গ্রগ’তি হিসেবে ২৯ ও ৩০ মে মালয়েশিয়ায় দু’দেশের যৌ’থ ওয়ার্কিং গ্রুপের আরেকটি বৈঠক হয়। কিন্তু সেখান থেকেও শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে কোনো রূপরেখা পাওয়া যায়নি।

গত ৭ জুলাই মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুউদ্দিন বিন আব্দুল্লাহর বাংলাদেশ সফরের বৈঠক শেষে পরারাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছিলেন, আগস্টেই খুলছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। আসছে মি’টিংয়ে দুই দেশের আলোচনার ম’ধ্য দিয়ে শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে আশাবাদী প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক ক’র্মসংস্থান ম’ন্ত্রী ইমরান আহমদ । এদিকে মালয়েশিয়ায় প্রচুর শ্রমিকের চা’হিদা থাকার কারণে, মালয়েশিয়া চায় বাংলাদেশের শ্রমবাজার উ’ন্মুক্ত হোক।

রীতিমতো মালয়েশিয়ার বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে শ্রমিক সঙ্কটের কা’রণে উৎপাদন ব্যা’হত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মালয়েশিয়ার বিভিন্ন কলকারখানার মালিকদের সংগঠনের পক্ষ থেকে সরকারকে জানানো হয়েছে, যদি এইভাবে শ্রমিক সংকট অ’ব্যাহত থাকে তাহলে এদেশের কলকারখানা ব’ন্ধ করা ছাড়া আর কোনো উপায় থাকবে না। মালয়েশিয়ার সরকার চাচ্ছে, মালয়েশিয়ার বেকারত্ব হার কমিয়ে, মালয়েশিয়ার নাগরিকদের দিয়ে সে দেশের শ্রমিক সংকট কাটিয়ে উঠতে। বর্তমান মালয়েশিয়া শ্রমিক সংকটের বড় একটি অংশ সে দেশে অবস্থানরত রো’হিঙ্গাদের দিয়ে মি’টিয়ে নি’চ্ছে।