পাপনের পদত্যাগ নিয়ে মুখ খুললেন বিসিবি পরিচালক

বরাবরই খেলোয়াড়দের অন্ধভাবে পক্ষপাতিত্বে করে থাকেন ভক্ত, অনুরাগি আর সমর্থকরা। যত কিছুই হোক না কেন, সাধারণ অনুরাগি আর সমর্থকরা সব সময় পারফরমারদের পক্ষেই থাকেন। সংগঠক, বিভিন্ন ফেডারেশন আর ক্রিকেট বোর্ড কর্তারা নানা কারণে বরাবরই ভক্তদের বিরাগভাজন হয়ে যান। এবারো তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে ক্রিকেটারদের আন্দোলন আর ধর্মঘটের ডাক দেয়ার মুহূর্ত থেকে দেশের ক্রিকেট অনুরাগি, ভক্ত ও সমর্থকের বড় অংশ বিসিবি ও বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসানের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন।

সাকিব ক্রিকেট জুয়াড়িদের প্রস্তাব গোপন রেখে এক বছরের জন্য মাঠ থেকে নিষিদ্ধ হবার মুহূর্ত থেকে বিসিবি আর নাজমুল হাসান পাপন বিরোধী মানসিকতা আরও চাঙ্গা হয়ে ওঠে। বুঝে না বুঝে একটা অংশ বোর্ড এবং দেশের ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা প্রধানের গোষ্ঠি উদ্ধারে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। কারো কারো কথা ও ভাব এমন যে, বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপনের রোষাণলে পড়েই সাকিবের এ অবস্থা।

আসলে সাকিব যে তিন তিনবার জুয়াড়িদের সাথে কথা বলেছেন এবং বিসিবি, আইসিসি কিংবা আকসুকে না জানিয়ে যে ভুল করেছেন, যে ভুলটা আকসুর চোখে অপরাধ এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ- সেগুলো ঠিক না বুঝে পাপন বিরোধীতা উঠেছে তুঙ্গে। বিসিবি প্রধানের ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও নানা কুরুচিপূর্ণ কথা-বার্তা বলা হচ্ছে। শুক্রবার সন্ধ্যার পর রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যোগ হয়েছিল বিসিবি সভাপতির ‘পদত্যাগে’র গুজব।

হঠাৎ গুঞ্জন, নাজমুল হাসান পাপন বিসিবির সভাপতি পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। শুধু গুজব বললে কম বলা হবে, কোনো কোনো অনলাইন তো সে পদত্যাগের সংবাদও প্রকাশ করে ফেলেছে; কিন্তু তারা খবরের সত্যতা যাচাই করেননি। কেউ কেউ ওই বিভ্রান্তিকর খবর বিশ্বাসও করেছেন এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছেন। গভীর রাতে মুঠোফোন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই জানতে চেয়েছেন, খবর কি ভাই? পাপন সাহেব নাকি পদত্যাগ করেছেন বা করবেন?

এ খবরের যে কোনই সত্যতা নেই, তা জানার পরও রাত ১২টা নাগাদ বোর্ডের মুখপাত্রকে ফোন, ‘খবর কি ভাই?’ তিনি (বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া কমিটি চেয়রম্যান) গণমাধ্যমকে জানান, পুরোই গুজব। একটি মহল দেশের ক্রিকেটকে অস্থিতিশীল করতে এবং বিসিবির ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতেই এই গুজব ছড়াচ্ছে। যার কোন ভিত্তি নেই।’ তিনি আরও জানান, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের পদত্যাগের কোনই কারণ নেই। এ খবরের ভিত্তিও নেই।

তিনি আগামীকাল (আজ) দিল্লি যাচ্ছেন বাংলাদেশ ও ভারত টি-টোয়েন্টি সিরিজে টিম বাংলাদেশকে অনুপ্রাণিত করতে। আজ সকাল সকাল বোর্ডে এসেও জানা গেলো সেই খবর শতভাগ সত্য। আজ শনিবার দুপুর ৩টার ফ্লাইটে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটি চেয়ারম্যান আকরাম খান, বোর্ড সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন এবং প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু একসঙ্গে দিল্লি যাচ্ছেন। আকরাম খান নিজে আজ সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জালাল ইউনুস জানান, ‘আজ বিকেলে তো বোর্ড প্রেসিডেন্টসহ (নাজমুল হাসান পাপন, সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন) আকরাম, নান্নুও দিল্লি যাচ্ছেন।’ এদিকে শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে আজ শনিবার থেকে শুরু হয়েছে জাতীয় লিগের পঞ্চম রাউন্ড। ক্রিকেট বোর্ডের সব কর্মকান্ড স্বাভাবিক। বিপিএল গভর্ণিং কাউন্সিলের একটা সভা আছে। গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দায় মল্লিকসহ অন্য শীর্ষ কর্তারা এখন বোর্ড উপস্থিত সেই সভায় অংশ নেবেন বলে।