এফডিসির সামনে পুলিশ দেখে ক্ষেপে গেলেন সোহেল রানা ।

এফডিসির স‌ামনে এত পুলিশ কেন? এটা কোনো নির্বাচন মনে হচ্ছে না, মনে হচ্ছে পুলিশ ক্যাম্প। ভোট দিতে এসে এমন অবস্থা দেখে আমার মনটা খারাপ হয়ে গেল। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ভোট দিতে এসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি দেখে এভাবেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন সোহেল রানা। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তিনি ভোট দিতে আসেন।

ভোট দেয়ার পর সোহলে রানা বলেন, আমার বিশ্বাস এবারের নির্বাচনে শিল্পীরা যাদের ভোট দিয়ে নির্বাচন করবেন, নতুন নেতৃত্বে এসে তারা শিল্পীদের নিরাশ করবেন না।নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে তিনি বলেন, সিডাপের নির্বাচন আরও আনন্দমুখর হয়। আমাকেও গেটে আটকেছে আজ। আমার সঙ্গে যারা এসেছে তাদের প্রবেশ করতে দেয়নি। কেবল আমাকে প্রবেশ করতে দিয়েছে। বিষয়টি খুবই বিরক্তিকর। কার্টুনের মতো ভোট দিয়ে বের হয়ে যাব, এ কেমন কথা! কোনো উৎসবের আমেজ নেই এখানে।

আজ শুক্রবার এফডিসিতে চলছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ভোটগ্রহণ। সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া ভোট চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। নির্বাচনে মোট ভোটার ৪৪৯ জন। এবারের নির্বাচনে প্রথমবারের মতো কোনো নারী প্রার্থী সভাপতি পদে লড়ছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মৌসুমী।এদিকে সভাপতি পদে মিশা-জায়েদ প্যানেল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মিশা সওদাগর। বর্তমান শিল্পী সমিতির সভাপতিও মিশা সওদাগর। সহ সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল, রুবেল, নানা শাহ। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান ও ইলিয়াস কোবরা।

সাংগঠনিক পদে প্রার্থী হয়েছেন সুব্রত। তার বিপরীতে কোনো প্রার্থী নেই। আন্তর্জাতিক পদে প্রার্থী হয়েছেন নূর মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ, নায়ক ইমন। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন জ্যাকি আলমগীর।সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পড়ে লড়ছেন দুইজন। তারা হলেন জাকির হোসেন ও ডন। কোষাধ্যক্ষ পদে অভিনেতা ফরহাদ নির্বাচন করছেন একা। তার প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থী নেই।কার্যকরী সদস্য পদ রয়েছে ১১টি। এই পদগুলোর জন্য প্রার্থী হয়েছেন ১৪ জন। তারা হলেন – রোজিনা, অঞ্জনা, অরুণা বিশ্বাস, বাপ্পারাজ, আলীরাজ, আফজাল শরীফ, রঞ্জিতা, আসিফ ইকবাল, অলেকজান্ডার বো, জয় চৌধুরী, নাসরিন, মারুফ আকিব, শামীম খান ও জেসমিন। শিল্পীদের এ নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইলিয়াস কাঞ্চন।