এক সেনার বদলায় ৯ ভারতীয় সেনা হ;ত্যা*র দাবি পাকিস্তানের

কাশ্মীর সীমান্তে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। নতুন করে সৃষ্ট এই উত্তেজনায় চলছে গু’লি ও পাল্টা গু”লি। এরই মধ্যে উভয় দেশের বেশ কয়েকজন বেসামরিক লোক ও সেনা সদস্য নিহ’ত হয়েছেন। সব শেষ পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মীরে হা’মলা চালিয়ে ৬ সেনা সদস্যসহ পাকিস্তানের ২০ জন নাগরিক হ’ত্যার দাবি করেছে ভারত।

সেই সঙ্গে ভারতীয় সেনারা সেখানকার চারটি জ’ঙ্গি ঘাঁটি গুড়িয়ে দিয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির প্রভাবশালী গণমাধ্যম আনন্দবাজার ও টাইমস অব ইন্ডিয়া। তবে ভারতের এই দাবির বিপরীতে পাকিস্তান আইএসপিআর’র বরাত দিয়ে দেশটির প্রভাবশালী পত্রিকা ‘ডন নিউজ’ জানিয়েছে, আজাদ কাশ্মীরে ভারতের সেনাদের গু’লিতে এক পাকিস্তানি সেনা ও ৬ জন বেসামরিক নাগরিক নিহ’ত হয়েছেন।

তবে ভারতের এ হা’মলার উপযুক্ত জবাব দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। পাকিস্তান আইএসপিআর দাবি করেছে, ভারতের এই হা’মলার জবাবে পাকিস্তানি সেনাদের গু’লিতে অন্তত ৯ জন ভারতীয় সেনা সদস্য নিহ’ত হয়েছেন। আহ’ত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন সামরিক সদস্য। সেই সঙ্গে ভারতীয় সেনাদের দুটি বা’ঙ্কার গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে পাকিস্তান।

আরো পড়ুন… জম্মু-কা’শ্মীরের সী’মান্ত’বর্তী কুপওয়ারা জেলায় ভা’রত-পা’কিস্তান সী’মান্তে পা’কিস্তানি সে’নাবাহি’নীর গু’লিতে দুই ভা’রতীয় সে’নাসহ ৩ জন নি’হত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। প্রেস ট্রাষ্ট অব ইন্ডিয়ার (পিটিআই) প্রতিবেদনে এমনটাই বলা হয়েছে। পুলিশ বলছে, পা’কিস্তানি সে’নাবা’হিনী কুপওয়ারার তাংঘার সেক্টরে যুদ্ধবিরতি ল’ঙ্ঘন করেছে। গো’লাগু’লিতে সেখানকার দুটি বাড়ি ক্ষ’তিগ্র’স্ত হয়েছে।

এদিকে, গত সপ্তাহেও পাক সে’নাবা’হিনী যু’দ্ধবি’রতি ল’ঙ্ঘন ক’রেছে বলে অ’ভিযোগ করে ভা’রত। নি’য়ন্ত্রণরে’খার বারামুল্লা এবং রাজৌরি সেক্টরে পাক সে’নাবা’হিনীর গু’লিতে ভা’রতের দুই সে’না সদস্য নি’হত হয়। ভা’রতের অ’ভিযোগ, গত জুলাই মাসে ২৯৬ বার, আগস্টে ৩০৭ বার এবং সেপ্টেম্বরে ২৯২ বার যু’দ্ধবি’রতি ল’ঙ্ঘন করেছে পা’কিস্তান।ভা’রতের কেন্দ্রীয় সরকারের প’ক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিনা উ’সকানিতে দুই হাজার ৫০ বার যু’দ্ধবি’রতি ল’ঙ্ঘন ক’রেছে পা’কিস্তান। এর ফলে ২১ জন ভারতীয় নি’হত হয়েছে।’

গতকাল সকালে বাংলাদেশের জলসীমায় অ’নাকা’ঙ্ক্ষিত ঘ’টনাটি নিয়ে ভ’য়ঙ্ক’র অ’পপ্রচার চালাচ্ছে ভারতীয় গণমাধ্যম। ভারতীয় জে’লেদের আ’টক করাকে কে’ন্দ্র করে বাংলাদেশের সী’মানায় বিএসএফ গু’লি চালানোর পরই আ’ত্মরক্ষার্থে পাল্টা গু’লি চালানো হয় বলে জানিয়েছে বিজিবি।কিন্তু ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে, পতাকা বৈঠকে গু’লি চালিয়েছে বিজিবি।

যদিও এ বিষয়ে এখনও আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়নি ভারতীয় সীমান্ত র’ক্ষীবাহিনী। তাছাড়া কেউ বলছে শ’হিদ, কেউ বলছে গু’লি করে হ’ত্যা। তবে প্রায় সব ভারতীয় গণমাধ্যমেই শিরোনাম- বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে গু’লি চালিয়েছে বিএসএফ জওয়ানের ওপর।এদিকে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির সব ভাষার সংস্করণেই বলা হচ্ছে, পদ্মায় মাছ ধরতে এসে আটক ভারতীয় জেলের বিষয়ে আলোচনার জন্য পতাকা বৈঠক করতে গেলে তাকে ছেড়ে দিতেই অস্বীকৃতি জানায় বিজিবি।

বিএসএফ সেনাদের ঘিরে ধরা হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে দ্রুত সরে যেতে গেলে তাদের লক্ষ্য করে গু’লি চালায় বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষীরা। তাছাড়া দি ইকোনমিকস টাইম বলছে, পতাকা বৈঠক চলার সময়ই বিএসএফ জওয়ানদের লক্ষ্য করে গু’লি চালায় বিজিবি সদস্যরা। একই দাবি দৈনিক দ্য হিন্দু এবং নিউজ এইটিনের। টাইমস অব ইন্ডিয়া এবং পশ্চিমবঙ্গের আনন্দ বাজার পত্রিকার দাবি, বিএসএফকে লক্ষ্য করে বিজিবিই গু’লি চালিয়েছে। ২৪ ঘণ্টা জানায়, পতাকা বৈঠকের আগেই গু’লি চালালে হতাহতের ঘটনা ঘটে।