মালয়েশিয়ায় বৈধ শ্রমিকদের আবাসন খরচ যেখান থেকে কেটে নেয়ার পরামর্শ

মালয়েশিয়ার এমপ্লয়ার্স ফেডারেশন (এমইএফ) সকল নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানি মালিকদেরকে আনডকুমেন্টেড বা অবৈ'ধ অ'ভিবাসীদের চাকরি নিয়োগ না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে পাশাপাশি বিভিন্ন কোম্পানিতে কর্মর'ত সকল অবৈ'ধদের সরকারের নিকট আ'ত্মসমর'্পণ করার পরামর'্শ দিয়েছেন। এই আহ্বান জানাতে গিয়ে এমইএফের নির্বাহী পরিচালক দাতুক শামসুদ্দীন বরদন আরও বলেন,

অবৈ'ধ শ্রমিকদের বিচারের মাধ্যমে জে'লে প্রেরণ করা উচিত নয় তার পরিবর্তে সরকারের উচিত তাদের নিজেদের দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া। তিনি আরও বলেন, তাদের বিচারের কার্য শেষ 'হতে অনেক সময় লেগে যায় যেকারণে তাদের ডিটেনশন ক্যাম্পে রাখার পর তাদের পিছনে দেশের করদাতাদের অর্থ ব্যয় করতে হয়৷

প্রতি একজন অবৈ'ধ অ'ভিবাসীকে ইমিগ্রে'শন কারা'গারে রাখতে গেলে প্রতিদিন ৭০ রি''ঙ্গিত খরচ হয়। এটাই সবচেয়ে ভাল হয় আট'ককৃতদের কোভিড-১৯ এর হেলথ স্ক্রিনিং টেস্ট করার পর ফলাফল নেগেটিভ আসলে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া উচিত। মালয়েশিয়ার বার্তা সংস্থা বারনামাকে দেয়া এক বিবৃতিতে উল্লেখ করে বলেছিলেন যে, অবৈ'ধ অ'ভিবাসীদের উপর সরকারের উচিত কড়া নজরদারি বাড়ানো কারণ তাদের চিকিৎসার কোন ব্যবস্থা নেই এবং সুচিকিৎসাও তারা পান না।

বৈধ বিদেশি কর্মীদের ক্ষেত্রে চিকিৎসা বীমা ও সামাজিক সুরক্ষা সংস্থা সোকসোর বিমা কভারেজ রয়েছে যার ফলে যেকোনো শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়লে ঐ বীমা কভারেজে চিকিৎসা নিতে পারেন এবং প্রয়োজন হলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অবৈ'ধ অ'ভিবাসীদের ক্ষেত্রে সেরকম কিছুই নেই। বিদেশি কর্মীদের আবাসন ব্যবস্থার আরও উন্নতি করা প্রয়োজন কারণ কোভিড-১৯ মহা'মা'রী পরিস্থিতিতে তাদের জীবনযাপন ও বসবাসের কেন্দ্র গু'লো ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

নিয়োগকর্তা বা কোম্পানি মালিকদেরকে শ্রমিকদের নূন্যতম আবাসন ব্যবস্থা সম্পর্কিত আইন মেনে চলতে বাধ্য করার মাধ্যমে সঠিক তদারকি ব্যবস্থা জোরদার করা উচিত।তিনি বলেন, মালিক পক্ষ সকল বৈধ কর্মীদের নিরাপদ ও স্বাস্থ্যকর পরিবেশে জীবনযাপন নিশ্চিত করতে বাধ্য তবে এই মুহুর্তে মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার ঘোষণার পর থেকেই অনেক মালিকগন আর্থিক ক্ষ'তির মুখে পড়েছেন। সরকারের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে এই সময়কালে মালিকদের ব্যবসায়ের বোঝা কমিয়ে আনার লক্ষ্যে কর্মীদের বেতন কা'টার বি'ষয়টি বৈধকরণ করা উচিত। অর্থাৎ আবাসন ব্যয়ের খরচ হিসেবে নির্ধারিত পরিমাণ অর্থ শ্রমিকদের প্রতিমাসের বেতন থেকে কে'টে নেয়ার আহ্বান।