আবুধাবিতে ৩ হাজার মানুষের সামনে ড্যান্স করবেন এই বাংলাদেশি গৃহকর্মী ।

বাংলাদেশি তরুণী প্রিয়া আক্তার। গৃহকর্মী হিসেবে আবুধাবি গিয়েছিলেন তিনি। মাত্র কয়েক মাস আগে তিনি সেখানে যান। চলতি সপ্তাহে প্রিয়া প্রায় তিন হাজার মানুষের সামনে মঞ্চে নৃত্য পরিবেশন করতে যাচ্ছেন।কিভাবে যে কী হয়ে গেলো, সবকিছু প্রিয়ারও অবিশ্বাস্য ঠেকছে। প্রিয়া বলেন, আমার সন্দেহ হচ্ছে এটা বাস্তব নাকি স্বপ্ন! সংযুক্ত আরব আমিরাতের বার্তা সংস্থা ওয়ামকে দেয়া সাক্ষাৎকারে প্রিয়া জানিয়েছেন, বাংলাদেশে তার বাড়িতে অগ্নিকাণ্ডে কোনোমতে প্রাণে বেঁচে গিয়েছিল তার মেয়ে।

প্রায় এক বছর ধরে মেয়ের চিকিৎসা করাতে গিয়ে তাকে বিপুল পরিমাণ অর্থ ঋণ হিসেবে নিতে হয়েছে। এই অর্থ পরিশোধের জন্য তাকে গৃহকর্মীর ভিসায় আবুধাবিতে আসতে হয়েছে।ওয়াম জানিয়েছে, আবুধাবিতে গৃহকর্মী হিসেবে আসা এক স্বদেশী বান্ধবীর সামনে একদিন নেচেছিলেন প্রিয়া। ওই বান্ধবী প্রিয়ার নাচের এই দৃশ্য তার স্মার্টফোনে ধারণ করেন। পরে ওই গৃহকর্মী তিনি যেখানে কাজ করতেন সেই বাড়ির গৃহকর্ত্রীকে দেখান।ওই গৃহকর্ত্রী পরে ভিডিওটি তার বন্ধু জনিয়া ম্যাথিউয়ের কাছে পাঠান। ম্যাথিউ স্টাইল ডিভা নামে একটি ফেইসবুক গ্রুপ পরিচালনা করেন, যার সদস্য সংখ্যা প্রায় ১২ হাজার।

এছাড়া তিনি গত পাঁচ বছর ধরে আবু ধাবিতে ডানডিয়া নামে ভারতীয় একটি নৃত্য উৎসবের আয়োজন করে আসছেন। উৎসবে মেধাবি নারী নৃত্যশিল্পী ও গায়িকাদের অংশগ্রহণের জন্য অনুপ্রেরণা দেন ম্যাথিউ।ম্যাথিউ বলেন, আমি ভিডিওটিতে তার (প্রিয়া আক্তার) সহজাত প্রতিভা দেখে বিস্মিত হয়েছি। সে গৃহকর্মী সেটা জেনে আশ্চর্য বোধ করেছিলাম। তার নাচ আমাদে বিখ্যাত বলিউড নৃত্যশিল্পী নোরা ফাতেহির কথা মনে করিয়ে দিয়েছে। আগামী ৩ অক্টোবর রাত ৮টা থেকে ১২ পর্যন্ত খলিফা পার্কে ডানডিয়া নৃত্য উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানে প্রিয়া আক্তার দুই ভারতীয় নারীর সঙ্গে নাচবেন।

আরো জানুন…জ’নস’ম্মুখে অ’শা’লীন কোনো কা’জক’র্ম করলে জ’রিমা’না গু’ণতে হবে সৌদিতে। শনিবার এক ঘো’ষণায় ম’ধ্যপ্রা’চ্যের এই ক’ট্টরপ’ন্থি দেশটি জানিয়েছে, কোনো ব্য’ক্তি জ’নসম্মু’খে অ’শালী’ন পোশাক পরলে, প্র’কাশ্যে কাউকে চু’মু দিলে বা এ ধরনের কোনো অ’শালী’ন কা’জক’র্ম করলে তার ওপর জ’রিমানা করা হবে।

পর্যটকদের জন্য দু’য়ার খু’লে দেয়ার একদিন প’রেই এমন ঘো’ষণা দিল সৌদি। এর আগে সৌদির তরফ থেকে জা’নানো হয়েছে, বিদেশি পর্য’টক’রা এখন থেকে সৌদিতে ঘুরে বেড়াতে পারবেন। কারণ প্রথমবারের মতো দেশটি পর্য’টন ভি’সা চা’লু করছে।

তবে দেশটিতে পর্যটকদের জন্য ভিসা চালু হলেও কিছু বিধি-নি’ষেধও মেনে চলতে হবে। বিশেষ করে নারীদের পো’শাক শা’লীন হতে হবে। তেলের ওপর নি’র্ভরতা ক’মিয়ে অর্থনীতিতে বৈ’চিত্র্য আনতে দেশটি এবার পর্য’টনের দিকে ঝুঁ’কতে শুরু করেছে। এরই অংশ হিসেবে পর্য’টন ভি’সা চা’লুর ঘো’ষণা দিয়েছে সৌদি। বিভিন্ন দেশ থেকে যেসব নারী পর্য’টকরা সৌদিতে ঘুরতে আসবেন তাদের আবায়া বা বো’রকা পরতে হ’বে না। তবে তারা যে পোশাকই পরবেন তা শা’লীন হতে হবে বলে এক বিবৃ’তিতে পর্যটন খাতের প্রধান আহমেদ আল খতিব জানিয়েছেন।

১৯টি অ’পরা’ধের জন্য জ’রিমা’না ঘো’ষণা করা হলেও জ’রিমা’নার বি’ষয়ে স্প’ষ্ট কোনো ত’থ্য জানা’নো হয়নি। এক বি’বৃতিতে জানানো হয়েছে, নারী এবং পুরুষ উভয়ের ক্ষেত্রেই এই নতুন বি’ধিনি’ষেধ জা’রি থাকবে। তাদের পোশাকের ব্যা’পারে স’চেতন থাকতে হবে। কোনভাবেই অ’শা’লীন পোশাক প’রা যাবে না বা জ’নসম্মু’খে নারী-পুরুষের ঘ’নিষ্ট কোনো আচ’রণ প্র’দর্শন করা যাবে না। তবে নারীরা যে কোনো শা’লীন পো’শাক পরার স্বাধী’নতা পা’চ্ছেন। তাদের এমন পোশাক পরতে হবে যেন কাঁ’ধ থেকে পা প’র্যন্ত ঢা’কা থাকে।

ধারণা করা হচ্ছে যে, এই বি’ধিনি’ষেধের মাধ্যমে পর্যটকদের স’চেতন করা হচ্ছে। যেন তারা সেদেশে ভ্রমণের সময় এসব বিষয়ে সচেতন থাকেন। শুক্রবার সৌদির তরফ থেকে এক ঘো’ষণায় জানানো হয় যে, যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া এবং ইউরোপীয় বিভিন্ন দেশসহ ৪৯টি দেশের প’র্যটক প’র্যটন ভি’সার আও’তায় সৌ’দিতে সফর করতে পারবেন। এতদিন পর্যন্ত শুধুমাত্র বিভিন্ন দেশের শ্রমিক, ব্যবসায়ী এবং হজ বা ওমরাহ করতে সৌদিতে আসতে পারতেন বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা।

বিগ’ত বছরগুলোতে পর্যটনখাতে সৌদি এতটা গু’রুত্ব দেয়নি। তবে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের নে’তৃত্বে ভিশন ২০৩০-এর আও’তায় এখন প্রতি বছর প্রায় এক কোটি প’র্যট’ককে নিজেদের দেশে আ’নার প’রিক’ল্পনা রয়েছে সৌ’দির।