দেখে নিন স্বর্নের সর্বশেষ মূল্য কত!!

কো’ভিড-১৯ এর প্রভাবে সারাবিশ্বে ব্যবসার অবস্থা মন্দা যাচ্ছে। অর্থনীতি বাচাতে অনেক দেশই ল’কডাউন খুলে দিয়েছে। কিন্তু তাতেও স্বাভাবিক হয়ে ব্যবসার অবস্থা।প্রথমত ক’রো'না আ’ক্রা'’ন্তে’র সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে, দ্বিতীয়ত কাজ হা’রানোর কারণে মানুষের হাতে আগের মতো টাকা পয়সা নেই।

এখন খেয়ে দেয়ে জীবন বাঁ’চানোই মানুষের মুখ্য উদ্দেশ্য।কো’ভিড ১৯ এ বেশ জোরেশোরে প্র’ভাব লেগেছে দেশের জুয়েলারি ব্যবসায়। বর্তমানে চ’রম সং’কটে আছেন এ ব্যবসায় জড়িত মালিক-শ্রমিক সবাই।লকডাউনের পর অনেকে দোকান খুললেও দোকানে ক্রেতা নেই। পুরনো ক্রেতারা আসছেন না। আবার অনেকে অর্ডার বা’তিল করছে।

এ জুয়েলারি ব্যবসার সাথে জড়িতরা জানান, জুয়েলারি শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে কারিগরদের আর্থিক সহায়তা করতে হবে সরকারের পক্ষ থেকে। ঋণ কার্যক্রম সহজ করতে হবে।বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ীদের জন্য বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ চালু করতে হবে। এ শিল্পের স''ঙ্গে জড়িত সবাইকে নিয়ে বসে আগামী দিনে টিকে থাকার পথ বের করতে হবে।স্বর্ণ ব্যবসায়ী সভাপতি শফিকুল আলম লষ্কর জানান, তাঁদের এখন দুর্দিন চলছে।

তবে বেশি ক’ষ্টে আছেন কারিগররা। কারিগররা যেন সহায়তা পান এজন্য তাঁরা তালিকা তৈরি করে সরকারের কাছে জমা দিয়েছেন।তিনি আরো বলেন, ‘টুকটাক কিছু কাস্টমা'র দোকানে আসে। কিন্তু করানোর জন্য দোকান অল্প সময়ে বন্ধ করে দিতে হয়। তাই মা'র্কেট খোলার সময়সূচি আরেকটু বাড়ানো হলে ক্রেতাদের ও আমা'দের সুবিধে 'হতো।দেখা গেছে অনেক সময় দোকানে একসাথে একাধিক কাস্টমা'র চলে এলে স্বা’স্থ্যবিধি মেনে চলা কঠিন হয়ে পড়ে।’

নারী উদ্যোক্তা ও জুয়েলারি ব্যবসায়ী দেবী এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী স'প্তাবর্ণা সোমা জানান, স্বর্নের দাম বেড়ে যাওয়ায় তাঁরা নতুন সমস্যায় পড়েছেন। নতুন দামে অনেকে গয়না নিতে চাইছেন না।আবার পুরনো দামে গয়না দিলে তাঁরা অনেক ক্ষ'তির মুখে পড়বেন। স্বর্ণ ব্যবসায়ী সঞ্জয় পাল বলেন, ‘দোকানভাড়া, কারিগরদের বেতন সব কিছু নিয়ে এখন টানাটানি চলছে। বলতে গেলে কেউই ভালো নেই।হঠাৎ করে স্বর্নের মূল্য বাড়ার পর গত দুই/তিন দিনে আন্তর্জাতিক বাজারে স্বর্ণের দাম কমেছে।

দুই/তিন দিনের ব্যবধানে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১০ ডলার কমে গেছে। তবে স'প্তাহ এবং মাসের ব্যবধানে এখনও স্বর্ণের দাম বেশি।গত বৃহস্পতিবার দাম কমে ১৬২ ডলারে নেমে আসে। শুক্রবার লেনদেনের শুরুতেও স্বর্ণের দামে নেতিবাচক প্রবণতা দেখা দেয়। এতে দাম কমে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১৬০ ডলারে নেমে এসেছে। বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির নতুন মূল্য তালিকা:

২২ ক্যারেটের স্বর্ণ প্রতি ভরি (১১.৬৬৪ গ্রাম) ৬৯ হাজার ৮৬৭ টাকা। ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ভরি প্রতি ৬৬ হাজার ৭১৮ টাকা। ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ভরিপ্রতি ৫৭ হাজার ৯৭০ টাকা। সনাতন প'দ্ধতির স্বর্ণের দাম ভরিপ্রতি ৪৭ হাজার ৬৪৭ টাকা। রুপার মূল্য ভরিতে ৯৩৩ টাকা।

Bangladesh Jewellers Samity CURRENT GOLD PRICE: >>22/22 CARAT PER GRAM 5990/- >> 21/21 CARAT PER GRAM 5720/- >>18/18 CARAT PER GRAM 4970/- TRADITIONAL METHOD PER GRAM 4085/- >>21/21 CARAT SILVER (CADMIUM) PER GRAM 80/- বিঃদ্রঃ আন্তজার্তিক বাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১০ ডলার কমলেও দেশের বাজারে এখনও কমানো হয়নি।