আরব আমিরাতে সড়ক দু’র্ঘটনায় নি’হত প্রবাসী বাংলাদেশি মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম ।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে আল আইনের আল কোয়া নামক স্থানে ট্রাক দু’র্ঘটনায় মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম নামে এক প্রবাসী ব্যবসায়ী নি’ হত হয়েছেন। রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) নি’হতের মালিকানাধীন কার ওয়াশের দোকানে সকাল ৯টার দিকে এ দু’র্ঘটনা ঘটে। চট্টগ্রাম পটিয়ার শোভন দন্ডি আয়শাতা গ্রামের মৃ’ ত সাহেব মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম। ১০ বছরের এক পুত্র সন্তান ও ৭ বছরের এক কন্যা সন্তানের জনক তিনি।নজরুল দীর্ঘদিন ধরে আল আইনে সততার সঙ্গে ব্যবসা করে আসছিলেন বলে জানান তার বন্ধু এস এম আকবর। তার লা ’শ আল আইনের জিমি হাসপাতালে রয়েছে।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের ন্যায় কাজ করছিলেন নজরুল।

আনুমানিক সকাল ৯টার দিকে একজন পাকিস্তানি পরিত্যক্ত একটি ট্রাক পরিস্কার করার জন্য দোকানের ভেতর নিয়ে আসেন।নজরুল ট্রাকের পেছনে কাজ করতে যান। প্রয়োজনের তাগিদে পাকিস্তানি চালক ট্রাকটি আর একটু পেছনে নেয়ার চেষ্টা করলে ট্রাকটি ব্রেক ফেল করে পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা নজরুলকে দেয়ালের সঙ্গে চাপা দেয়।

এতে ঘটনাস্থলে মা ’রা যান নজরুল।নজরুল মৃ’ ত্যুর খবর শুনে দেশে ছুটিতে থাকা তার বড় ভাই লোকমান নজরুলের লা’ শ দেশে নিয়ে যাওয়ার জন্য আমিরাতে ছুটে আসেন বলেও জানান এস এম আকবর। নি’ হতের আরও ৩ ভাই আমিরাতে কর্মরত আছেন বলে জানা গেছে।এ ব্যাপারে আবুধাবি দূতাবাসের লেবার কাউন্সিলর মুহাম্মদ আবদুল আলিম মিয়া বলেন, নিহ ‘ তের লা ’শ দ্রুততম

সময়ের মধ্যে দেশে পাঠাতে কাজ করছি। আজ বুধবার সকালে আমিরাতের আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে, কাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ৪৫ মিনিটে আবুধাবি বিমানবন্দর হয়ে বাংলাদেশ বিমানযোগে লা’ শ দেশে পাঠানো হবে। এ ব্যাপারে নি’হতের স্বজনদের সঙ্গে কথা হয়েছে বলে জানান তিনি।এ ঘটনায় পাকিস্তানি চালককে আ’ টক করেছে আমিরাত পুলিশ।

আরো জানুন… সংযুক্ত আরব আমিরাতের মন্ত্রিসভা 2020 সালের 1 জানুয়ারি থেকে জন স্বাস্থ্য রক্ষায় মিষ্টিযুক্ত খাবার , মিষ্টিজাতীয় পানীয় এবং বৈদ্যুতিন ধূমপানের ডিভাইস ব্যবহার কমাতে এসব পণ্যের উপর ৫০ থেকে ১০০ শতাংশ ভ্যাট যুক্ত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে ।

মন্ত্রিপরিষদ জেনারেল সচিবালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকারের জনস্বাস্থ্য সচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে চিনি এবং তামাক সেবনের সাথে সরাসরি জড়িত দীর্ঘস্থায়ী রোগ প্রতিরোধ করার জন্য।”

এক বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, “পানীয়, তরল, ঘন, গুঁড়ো বা পানীয় হিসাবে রূপান্তরিত হতে পারে এমন কোনও পণ্য আকারে যাই হোক না কেন যুক্ত চিনি বা অন্যান্য মিষ্টি যুক্ত যে কোন পণ্যগুলিতে ৫০ শতাংশ শুল্ক আদায় করা হবে।” “সিদ্ধান্তটি ক্রেভোক্তাদের স্বাস্থ্যকর খাদ্য পছন্দ করার জন্য চিনি উপাদান যুক্ত খাবার পরিষ্কারভাবে চিহ্নিত করা প্রয়োজন।যাতে তারা তাদের চাইলে চিনি যুক্ত খাবার এড়িয়ে যেতে

পারে। “বৈদ্যুতিন ধূমপানে ডিভাইসে ব্যবহৃত তরল নিকোটিন বা তামাক যুক্ত থাকুক বা নাই থাকুক ইলেকট্রনিক ধূমপান ডিভাইসগুলিতেও ১০০ ভাগ শুল্ক বা ট্যাক্স ধার্য করা হবে। সিদ্ধান্তটির লক্ষ্য হ’ল ক্ষতিকারক পণ্যগুলির ব্যবহার হ্রাস করা যা স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে এবং পরিবেশ ঝুঁকিতে রয়েছে, ।

” সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার নির্দিষ্ট পণ্যগুলিতে শুল্ক প্রবর্তন শুরু করে, যা সাধারণত মানুষের স্বাস্থ্যের বা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক,” মন্ত্রিসভার সাধারণ সম্পাদক সচিবের উপসংহারে বলা হয়েছে।