শেষ পর্যন্ত প্যারোলে মুক্তি পেলেন তারেকের বন্ধু মামুন ।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানোর বন্ধু ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুন কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মায়ের মৃত্যুতে কারাগার থেকে চার ঘণ্টার জন্য প্যারোলে মুক্তি পান তিনি। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ৪ ঘণ্টার (৯টা থেকে ১টা পর্যন্ত) জন্য মুক্তি পান তিনি।

এর আগে ঢাকা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বরাবর বুধবার তার পক্ষে প্যারোলে মুক্তির আবেদনটি করেন তার ভাই জালাল উদ্দিন রুমি। গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের মা হালিমা খাতুন (৯৩) রাজধানীর একটি হাসপাতালে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা গেছেন। তাকে শেষ দেখা, জানাজা ও দাফনে উপস্থিত থাকার জন্য এ আবেদন করা হয়েছে।

অর্থপাচার মামলায় সাত বছরের কারাদণ্ড সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, কারাবন্দি গিয়াসউদ্দিন আল মামুন। গিয়াস উদ্দিন আল মামুনকে ২০০৭ সালে গ্রেফতার করা হয়। ২০০৩ থেকে ২০০৬ সালের মধ্যে ৬.১৫৭ কোটি টাকা পাচারে অভিযুক্ত ছিলেন তিনি। পরে দোষী প্রমাণিত হলে তাকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দেয় আদালত।

আরো পড়ুন… বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সাথে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসেছেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা। আজ শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল সোয়া ৪টায় গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ বৈঠক শুরু হয়।

এ বৈঠকে লন্ডন থেকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত রয়েছেন। উল্লেখ্য, আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু গতকাল বৃহস্পতিবার ছাত্রদলের সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক আমানউল্লাহ আমানের এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কাউন্সিলের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন আদালত।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আদেশের কপি পৌঁছে দেয়া হয়। এর পরপরই বিষয়টি নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে বৈঠকে বসেন কাউন্সিল পরিচালনা কমিটির নেতারা।

এদিন রাতেই নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডাকেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। অভিযোগ করে রিজভী বলেন, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কাউন্সিলে আদালত যে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন সেটা ‘অযৌক্তিক’।

তিনি আরও বলেন, কোনো বিচার বিশ্লেষণ ও যুক্তিতর্ক ছাড়া ছাত্রদলের কাউন্সিল স্থগিতের আদেশ দেয়া গভীর চক্রান্তমূলক। সরকারের কারসাজিতেই এহেন আদেশ প্রদান করা হয়েছে।