লেবাননে প্রবাসী বাংলাদেশির মৃ,ত্যু ।

লেবাননের নাহার ইব্রাহিম এলাকায় ২৩ সেপ্টেম্বর সোমবার রাত ৯টায় আবুল কালাম আজাদ (৩৫) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশি হৃ দরো গে মা’রা গেছে।মৃ’ত আজাদ ফরিপুর জেলার মধুখালী উপজেলার ব্রাহ্মণকান্দা গ্রামের রুস্তম মিয়ার ছেলে। বর্তমানে তার মৃ’তদে’হ জুবাইলে আল মার্টিন হাসপাতালের ম র্গে আছে।

জানা যায়, আবুল কালাম আজাদ গত ৪ বছর আগে জীবিকার সন্ধানে লেবানন আসে। সে নাহার ইব্রাহিম এলাকায় একটি অ্যা লুমিনিয়াম ফ্যা ক্টরিতে কাজ করতো। ঘটনার দিন কাজ শেষে রুমে এসে গোসল করে নামাজ পড়ে। পরে সহকর্মীদের সাথে রাতের খাবার খায়। পরে সে বুকে প্রচণ্ড ব্য থা অনুভব করলে স্থানীয় ফার্মেসিতে যায় ওষুধ আনতে। সেখানে ব্য থা আরও বাড়ে। খবর পেয়ে মালিক এসে তাৎক্ষণিক তাকে জুবাইলের আল মার্টিন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ২ ঘণ্টা পর সে মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

ক র্তব্যরত চিকিৎসকরা জানায় হৃ’দয’ন্ত্রের ক্রি য়া বন্ধ হয়ে তার মৃ’ত্যু হয়েছে। এদিকে তার মৃ’ত্যুতে পরিবারে শো কের ছায়া নেমে আসে।পরিবারে স্ত্রী সহ ২টি সন্তান রয়েছে। এদিকে তার সহকর্মীরা বৈরুত দূতাবাসে যোগাযোগ করে অনুরোধ জানায় যেন তার লা, শটি অতি দ্রুত পরিবারের কাছে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়।

আরো পড়ুন… শিল্প খাতে কর্মরত প্রবাসী শ্রমিকদের ইকামা ফি কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি সরকার! আগামী ৫ বছর পর্যন্ত বিভিন্ন শিল্প কারখানার প্রবাসী শ্রমিকদের ইকামা এবং বিভিন্ন ফি তে ভর্তুকি দেবে সৌদি সরকার! বেশ অনেক বছর ধরেই ফ্যাক্টরি এবং কলকারখানা, অর্থাৎ শিল্প খাতকে উন্নত করার প্রকিল্পনা নিয়ে আগাচ্ছে সৌদি সরকার, এবং এই খাতকে এগিয়ে নেবার জন্য সৌদি আরবের ফ্যাক্টরি এবং কারখানাতে কাজ করার জন্য আগত প্রবাসী শ্রমিকদের ইকামা ফি কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রীসভা।

সম্প্রতি সৌদি আরবের মন্ত্রীসভায় আগামী ৫ বছর মেয়াদী একটি পরিকল্পনা গ্রহনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এই পরিকল্পনা অনুসারে সৌদি সরকার কলকারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের ইকামা ফি তে সর্বোচ্চ মোট ২৯.৭৫ সৌদি রিয়াল ভর্তুকি দেবে।সৌদি আরবে শিল্প খাত বর্তমানে খুব একটা উন্নত নয়, এবং সৌদি সরকার সম্প্রতি তাদের ভিশন ২০৩০ পূরনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এই ভিশনে অন্যান্য আরো অনেক কিছুর পাশাপাশি সৌদি আরবের অভ্যন্তরীন বিভিন্ন কারখানা এবং সম্পূর্ন শিল্প খাতকে দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ন অর্থনৈতিক একটি খাত হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সরকার প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। এই ধারাবাহিকতাতেই এই খাতকে খুব দ্রুত জনপ্রিয় এবং কর্মক্ষম করে গড়ে তোলার জন্যই সৌদি সরকারের এই সিদ্ধান্ত।

বর্তমানে সৌদি আরবে বিভিন্ন ফ্যাক্টরি, কল-কারখানা বা ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্টে কর্মরত প্রবাসী শ্রমিকদের মধ্যে মাসিক ৮০০ রিয়াল ইকামা প্রদানকারী রয়েছে ৪,৪৪,৯৪৬ জন। আগামী ৫ বছরে এদের সম্মিলিত মোট ইকামা ফি দাড়াইয় ২১.৩৬ বিলিয়ন সৌদি রিয়াল।এবং, একই খাতে মাসিক ৭০০ রিয়াল ইকামা প্রদানকারী প্রবাসী শ্রমিক রয়েছেন ১,৯৯,৬৪৪ জন, এবং ৫ বছরে এদের মোট ইকামা ফি এর পরিমান দাঁড়ায় ৮.৩৯ বিলিয়ন রিয়াল। সম্মিলিতভাবে, সৌদি আরবের শিল্প খাতে অর্থাৎ কারখানায় বা বিভিন্ন প্ল্যান্টে কর্মরত প্রবাসী শ্রমিকদের আগামী ৫ বছরে মোট ইকামা ফি দাঁড়ায় মোট ২৯.৭৫ বিলিয়ন ডলার। এবং, এই সম্পূর্ন ফি টাই ভর্তুকি দিয়ে মওকুফ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি সরকার।