খোলা রাস্তায় পিস্তল নিয়ে তেড়ে এলেন এমপির দেহরক্ষী

মহা'মা'রি করো'না ভাইরাসের কারণে হাঁচি কাশি দেয়ার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যগত সতর্কতা মেনের চলার আহবান জানাচ্ছেন স্বাস্থ্য বিজ্ঞানীরা। এ কারণে রাস্তাঘাটে হকেউ হাঁচি কাশি দিলে সাধারণ মানুষ অন্যরকম ভাবেই বি'ষয়টিকে নজর দিচ্ছে। তবে এবার ঘটোলো ভিন্ন ঘটনা। শরীরের কাছে হাঁচি দেয়ায় দলীয় কর্মীর দিকে পি'স্তল তাক করেছেন পশ্চিমব''ঙ্গের কোলকাতার উত্তর দম'দমের বাম দলীয় এমপি তন্ময় ভট্টাচার্যের দে'হরক্ষী।

বৃহস্পতিবার বিকালে পশ্চিমব''ঙ্গের আমডাঙার ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পু'লিশ ও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কলকাতাল আনন্দ বাজার পত্রিকা জানায়, আম্পানে ক্ষ'তিপূরণের কাজে দুর্নীতির অ'ভিযোগ এনে দলের পক্ষ থেকে আমডাঙা থানা ও বিডিও অফিসে স্মা'রকলিপি দিতে আসেন বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য। কর্মসূচি শেষে গাড়িতে ওঠার সময় গোলমালের সূত্রপাত ঘটে।

খবরে বলা হয়, সিপিএমের বিধায়ক তন্ময় গাড়িতে ওঠার সময় ভিড়ের মধ্যে বামফ্রন্টের এক কর্মী হঠাৎ হাঁচি দেন। কর্মীদের একাংশের অ'ভিযোগ, সে সময় দে'হরক্ষী ওই কর্মীকে ধাক্কা দিয়ে বলেন, গায়ের উপরে হাঁচছেন কেন? এর পরেই শুরু হয় গোলমাল। ওই কর্মীর গায়ে হাত তোলার প্রতিবাদ করে দে'হরক্ষীকে ধাক্কা দিতে থাকেন উপস্থিত নেতা-কর্মীরা।

এ সময় আমডাঙা ব্লক অফিসের সামনে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের যানবহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। গোলমালের সময় বিধায়কের দে'হরক্ষী, সাদা পোশাকের পু'লিশকর্মীর কোমর' থেকে পি'স্তল বের করে বিক্ষোভকারীদের দিকে তাক করে গু'লি করার হু’মকি দেন। তবে বিধায়ক তন্ময় ও পু'লিশের হস্ত'ক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এ ঘটনায় বিধায়ক বলেন, করো'না আত'ঙ্কে হাঁচির জেরে ভুল বোঝাবুঝিতেই এই ঘটনা। বারাসত জে'লা পু'লিশ সুপার অ'ভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, এ ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।