ওমানে একজন প্রবাসীসহ করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ৪৮, সব ধরনের ভিসা দেওয়া বন্ধ ।

করোনাভাইরাসের কারণে সব ধরনের ভিসা দেওয়া আপাতত বন্ধ করে দিয়েছে ওমান।বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) দেশটির রয়্যাল ওমান পুলিশ (আরওপি) বিবৃতিতে এ তথ্য দিয়ে বলে,”আমরা সবাইকে জানাতে চাই যে সব ধরণের ভিসা স্থগিত করা হয়েছে।” ইতোমধ্যে,আরওপি ট্র্যাফিক,পাসপোর্ট এবং আবাস এবং সিভিল স্ট্যাটাস বিভাগগুলিতে তাদের সুবিধাগুলিতে প্রবেশের সীমাবদ্ধ করেছে।

আরওপি জানিয়েছে, “একসঙ্গে ন্যূনতম সংখ্যক ব্যক্তিকে অপেক্ষার জায়গায় অনুমতি দেওয়া হবে।এ দিকে পর্যটন মন্ত্রণালয় ভ্রমণ ও পর্যটন সংস্থাগুলি এবং হোটেল কর্তৃপক্ষক পর্যটক গ্রুপগুলিকে ওমান ছেড়ে চলে যেতে এবং তাদের দেশে ফিরে যেতে পরামর্শ দিতে বলেছে। মন্ত্রণালয় তার বিবৃতিতে বলেছে, “করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পরিস্থিতিতে মন্ত্রণালয় ট্যুর অপারেটর এবং হোটেলের মাধ্যমে দেশে ভ্রমণে আসা পর্যটক গ্রুপগুলিকে পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা দেওয়ার প্রয়োজনীয়তার অনুভব করেছে।

আমরা তাদের সুলতানাত ছেড়ে যাওয়ার এবং নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য পরামর্শ দেওয়ার জন্য বলেছি।করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এই ব্যবস্থা পরিস্থিতি অব্যাহত থাকতে পারে। আমরা তাদের স্বদেশে নিরাপদে প্রত্যাবর্তন কামনা করি”,বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে। এ দিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় (এমওএইচ) জানিয়েছে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত সবশেষ তথ্য অনুযায়ী ওমানে করোনাভাইরাস (কোভিড -১৯) আক্রান্ত আরও ৯ জন শনাক্ত হয়েছে, যার মধ্যে ৮ জন ওমানি এবং একজন প্রবাসী।

এ নিয়ে দেশটিতে করােনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা ৪৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে ১৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।নতুন শনাক্তদের মধ্যে তিন জন আগের আক্রান্তের সংস্পর্শে এসে সংক্রামিত হয়েছে এবং ৬ জন বিদেশে থেকে ভ্রমণ করে দেশে ফিরে আসেন। এদিকে ইব্রিতে করোনাভাইরাসের নতুন ঘটনা ঘটেছে -এমন গুজব অস্বীকার করেছে সরকারী যোগাযোগ (জিসি)।

“করোনভাইরাসের হটস্পট সোহারে একটি মেডিকেল টিম মাসকট থেকে স্থানান্তরিত করা হয়েছে ” বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারিত খবর সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন এবং একেবারেই গুজব।কর্তৃপক্ষ সম্প্রদায়ের মধ্যে আতঙ্ক না বাড়ানোর, গুজবগুলির দিকে মনোযোগ না দেওয়ার জন্য নাগরিক ও প্রবাসীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে। সে সঙ্গে সরকারী উত্স থেকে তথ্য নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে।

এদিকে করোনাভাইরাস রোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা ও সুপ্রিম কমিটির নিদের্শনা বাস্তবায়নে অভিযান পরিচালনা করছে মাস্কাট পৌরসভা (বলিদিয়া) ।সংস্থার জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রাজধানীর আল সিবে ৯৮ টি মহিলাদের হেয়ারড্রেসিং স্টোর এবং সেলুন পরিদর্শন করে সুপ্রিম কমিটির সিদ্ধান্ত অমান্য করায় দুটি দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। প্রশাসনিক জরিমানা হিসাবে তাদের ৩০০ রিয়াল জরিমানা করা হয়।এ ছাড়া রয়েল ওমান পুলিশের সঙ্গে যৌথভাবে বাওশারের রাস্তার পাশে উন্মুক্ত স্থানে মাছ বিক্রি বন্ধে অভিযান চালায় মাস্কাট পৌরসভা।