এই খাবার আপনার গো’পন শক্তি বৃ‌’দ্ধি করবে দ্বিগুন ।

বি‌ভিন্ন কার‌ণে তরুণ-যুবারা তাদের যৌ’ন শ‌ক্তি হা‌’রি‌য়ে ফে‌লে। যেমন: দ্রুত বী’র্যপাত, যৌ’ন উ‌ত্তেজনায় অ’নীহা, সে.ক্স করার পর দু’র্ব’লতা, লিঙ্গ নি‌’স্তেজ হ‌য়ে পড়া, ইত্যা‌দি। যৌ’ন স’মস্যার অভূতঃপূর্ব সাফ‌ল্যের ট‌নিক হি‌সে‌বে আজ‌কে এক‌টি পথ্য তৈ‌রির নিয়ম জা‌নি‌য়ে দে‌বো। যা নিয়‌মিত সেব‌নে দ্রুত বী’র্যবান হ‌য়ে উঠ‌বেন এবং হারা‌নো পু’রুষত্ব ফিরি‌য়ে পা‌বেন।

সে’ক্স-শ‌ক্তি বাড়ানোর খাবার তৈ‌রি‌তে যে উপাদান প্র‌য়োজনঃ এক‌ কেজি প‌রিমান খেজু‌রের বিঁচি, এক কে‌জি প‌রিমান খাঁ‌টি ঘি, হাফ কে‌জি প‌রিমান খাঁ‌টি মধু, আড়াই’শ গ্রাম ইসবগু‌লের ভূ‌ষি ও তোকমা, আড়াই’শ গ্রাম যষ্ঠী মধু, দুই’শ গ্রাম লং। বিঃদ্রঃ প‌রিমান কম বে‌শি করা যা‌বে। যেমন, ১কে‌জির স্থ‌লে ২কে‌জি অথবা, হাফ কে‌জি, হাফ কে‌জির স্থ‌লে আড়াই’শ গ্রাম এভা‌বে উপ‌রের প‌রিমা‌নের সা‌থে মিল রে‌খে কম বে‌শি করা যা‌বে।

সেক্স বাড়ানোর খাবার তৈ‌রি কর‌বেন যেভা‌বেঃ খেজু‌রের বিঁচি, যষ্ঠী মধু ও লং ভালভা‌বে মি‌হি ক‌রে ভে‌ঙ্গে নিন অথবা বাটুন (তোকমাও মি‌হি ক‌রে নি‌লে ভা‌লো)। [ভাঙ্গার পূ‌র্বে শুধু খেজু‌রের বিঁ‌চিগু‌লো সামান্য পা‌নি‌তে সিদ্ধ ক‌রে নি‌তে পা‌রেন; এ‌ক্ষে‌ত্রে লক্ষ রাখ‌বেন ঝোল যে‌নো না থা‌কে] এবা‌রে হালকা তা‌পের গরম কড়াই‌য়ে অ‌র্ধেক ঘির সা‌থে (মধু এবং ভূ‌ষি বা‌দে) সবগুলো উপাদান ঢে‌লে ভা‌লো ক‌রে নারা/মিক্সড করুন।

এভা‌বে ৫-১০ মি‌নিট নারা দেয়ার পর ঘি’য়ের বা‌কি অংশ, মধু ও ভূ‌ষিও ঢে‌লে দিন। তারপর আরও ৫-১০ মি‌নিট সব উপাদান উত্তমরূপে মিক্সড করুন। আপনার পছন্দ অনুযায়ী শুক‌নো বা গাঢ় হ‌য়ে গেলে না‌মি‌য়ে ফেলুন। খাবারটা ঠান্ডা হ‌য়ে গে‌লে যত্ন ক‌রে রাখুন। বিঃদ্রঃ আ’গু‌নের তাপ হালকা, পোড়া যা‌বে না, শুকনো বা গাঢ় হবে, পা‌নি প‌রিত্যাজ্য।

সেক্স-শ‌ক্তি বৃ‌দ্ধি কর‌তে যেভা‌বে খা‌বেনঃ স‌র্বোচ্চ কার্যকা‌রিতা পে‌তে একটানা চ‌ল্লিশ‌ দিন দুই‌বেলা ক‌রে খে‌তে থাকুন। এভা‌বে নব্বই দিন পর্যন্ত চা‌লি‌য়ে যান। প্র‌তি‌দিন দুই বেলাই পা‌নি অথবা দুধ দি‌য়ে দুই বা তিন চা-চামচ ক‌রে খে‌তে থাকুন। সকালে নাস্তার আ‌গে বা প‌রে এবং রাতের বেলা ঘুমা‌নোর ত্রিশ মি‌নিট পূ‌র্বে খে‌তে হ‌বে। এক‌দিনও বাদ দেয়া যা‌বে না। নিয়ম মে‌নে নিয়‌মিত খে‌তে হ‌বে।

র‌’তিশ‌ক্তি বাড়া‌নোর আদর্শ খাদ্য হ‌লো এ‌টি। তাই সহ‌জেই বা‌ড়ি‌তে তৈ‌রি ক‌রে ফেলুন যৌ’নশ‌ক্তি বৃ‌দ্ধির ওষুধ বা সর্ব‌শ্রেষ্ঠ ট‌নিক ! বিবাহিত নারীদের প’রকী’য়ায় জড়ানোর পাঁচ কারণ>>> প্রতিটি বিবাহিত নারীরই কাম্য স্বামী, সন্তান নিয়ে সুখে থাকা। পরিবারকে পরম ভালোবাসায় বেঁধে রাখতে তাই চেষ্টারও কমতি থাকে না তাদের। স্বামীর ভালোবাসায় সি’ক্ত থাকতে চান প্রতিটি স্ত্রী।

তবে স্বামীদেরই কিছু ভুলের কারণে প্রায় দেখা যায় নারীরা অন্য পুরুষেদের প্রতি আ’কৃষ্ট হচ্ছে। যদিও বেশিরভাগ পুরুষ তা মানতে চান না। তারপরও এটিই সত্যি। গবেষকরা অনেক গবেষণা করে বিবাহিত নারীদের পরকীয়ায় জড়ানোর পাঁচটি কারণ খুঁজে বের করেছেন। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সেই কারণগুলো- স্ত্রীর প্রতি স্বামীর দৃষ্টি আকর্ষণের অভাব প্রত্যেক স্ত্রী-ই চায় স্বামীর মনোযোগ পেতে।

ছোটখাটো হাসি মজা করতে। তবে নানারকম কারণে বা স্বামীর ব্যস্ততা তাতে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। যার ফলে দিন দিন স্ত্রীর মন ভা’ঙতে থাকে। সঙ্গ পাওয়ার জন্যই একসময় তারা প’রকী’য়ায় জড়িয়ে যান। সারাদিন স্ত্রীর দোষ ধরা অনেক স্বামী আছেন যারা স্ত্রীর ছোট ছোট কাজেও ভুল ধরতে থাকে। স্ত্রীর কোনো কাজই তার মন মতো হয় না। যদিও স্বামীর মন জয়ের ক্ষেত্রে স্ত্রীর চেষ্টার কোনো কমতি থাকে না।

তারপরও সে ব্য’র্থ হয়। এক্ষেত্রে অন্য পুরুষের কাছে নিজের প্র’শংসা শোনা তাকে আ’কৃষ্ট করে। তখন ধীরে ধীরে সে তার সঙ্গে প’রকী’য়ার সম্পর্ক গড়ে তোলেন। স্ত্রীকে সময় না দেয়া আমাদের সমাজে এমন অনেক পুরুষ আছেন যারা মনে করেন বিয়ের পর স্ত্রীর কাজ শুধু বংশ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। তাদের ঘর সামলানো ছাড়া আর কোনো কাজ নেই।

তাই তারা তাদের স্ত্রীদেরও সময় দেন না। নিজের মতো করে সময় কাটান। স্ত্রীদের ভালো লাগা ম’ন্দ লাগা নিয়ে চিন্তাও করেন না। তাদের এ ধরনের ব্যবহারের কারণে একসময় স্ত্রী প’রকী’য়ায় জড়িয়ে পড়েন। প্রয়োজনের চাইতে বেশি কৃ’পণতা অনেক পুরুষ আছে যারা সঞ্চয়ের নামে অতিরিক্ত কৃ’পণতা করেন। এমনকি খুব দরকারি জিনিসগুলোও স্ত্রীদের এনে দিতে কার্পণ্য করেন।

এই ধরনের স্বামীদের প্রতি তিক্ত হয়ে স্ত্রীরা প’রকী’য়া করেন। স্ত্রীর মতামত কিংবা সিদ্ধান্তকে মূল্য না দেয়া অনেক স্বামীই আছেন, যারা মনে করেন নিজে যা চিন্তা করছেন বা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা একদম ঠিক। এক্ষেত্রে স্ত্রীর কোনো মতামতকেই সে গুরুত্ব দেন না। যা একজন নারীর জন্য মেনে নেয়া কষ্টকর হয়ে পড়ে। যা একসময় তাকে প’রকী’য়ায় জড়াতে বা’ধ্য করে দেয়।