ভৈরবে সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর ঝু’লন্ত লা’শ উ,দ্ধার, চিরকুটে লেখা…

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে শান্তা ইসলাম নামে এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত লা’শ উ,দ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ গৃহবধূর লেখা একটি চিরকুট উ,দ্ধার করে। চিরকুটে লেখা ছিল ‘আমার জন্য তুমি জীবন দিও না’। শনিবার (১৪ মার্চ) ভৈরব বাজারের টিনপট্টির একটি বাড়ি থেকে তার লা’শ উ,দ্ধার করে পুলিশ। নিহত শান্তা ইসলাম নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার গৌরীপুর গ্রামের জুয়েল মিয়ার স্ত্রী। তবে তারা কয়েক মাস যাবৎ ভৈরব বাজারের একটি বাসায় ভাড়া থাকত।

গৃহবধূর দুটি শিশু সন্তান রয়েছে। স্বামী জুয়েল মিয়া বলেন, আমি তিন বছর যাবৎ সৌদিতে ছিলাম। প্রবাসে থাকা অবস্থায় জানতে পারি আমার স্ত্রী আমার এলাকার বিল্লাল নামের একটি ছেলের সঙ্গে পর,কীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। আমি তাকে নি,ষেধ করলেও সে তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখত।
এ কারণে আমি গত ৮ জানুয়ারি দেশে এসে আমার শ্বশুর শাশুড়িকে ঘটনাটি জানাই। বিষয়টি নিয়ে শুক্রবার রাতে আমার স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া হয়।

এ সময় তাকে আমি মার,ধর করি। সকালে বাসা থেকে আমি বাইরে গেলে সে গলায় রশি দিয়ে আ,ত্মহ’ত্যা করে। আমার মেয়ে মোবাইলে খবর দিলে আমি তৎক্ষণাৎ বাসায় এসে ঘটনা দেখে স্থানীয় কাউন্সিলরকে ঘটনাটি জানাই, বলেন জুয়েল। গৃহবধূর মা হেলেনা বেগম বলেন, প্রেমিক বিল্লালকে আমি বহুবার নিষেধ করলেও সে বাধা উপেক্ষা করে আমার মেয়ের সঙ্গে যোগাযোগ রাখত।

দু’দিন আগেও আমার জামাই ও মেয়েকে বুঝিয়ে ঘটনার মীমাংসা করে গেছি। কিন্তু জুয়েল গত রাতে আমার মেয়েকে মারধর করার কারণে আমার মেয়ে আ,ত্মহ’ত্যা করে। ভৈরব থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বাহালুল খান বাহার জানান, খবর পেয়ে পুলিশ গৃহবধূর লা’শ উ,দ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে পরকীয়ার ঘটনায় ঝগড়া করে গৃহবধূ আ,ত্মহ’ত্যা করেছে।

মৃ’ত্যুর আগে সে একটি চিরকুট লিখে গেছে যা পুলিশ উ,দ্ধার করে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার স্বামীকে আ’টক করা হয়েছে। লা’শ ম’য়নাতদন্তের পর আ’ইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান। চিৎকার করায় সৌদি আরব প্রবাসীর স্ত্রীকে কু’পিয়ে জ’খম>>> শরীয়তপুরে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে কু’পিয়ে জ’খম করে স্বর্ণের চেইন চুরির অভি’যোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ)

দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ ভাসানচর গ্রামে নেছার উদ্দিন সরদারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শুক্রবার (১৩ মার্চ) দুপুর দেড়টার দিকে দুইজনকে আ’টক করেছে পুলিশ। আটকরা হলেন- দক্ষিণ ভাসানচর গ্রামের ইনু মাদবরের ছেলে খবির মাদবর (১৯) ও একই গ্রামের আনাছুদ্দিন সরদারের ছেলে তাইজদ্দিন সরদার (১৭)।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সৌদি আরব প্রবাসী নেছার উদ্দিন সরদারের স্ত্রী হাসিনা বেগম তিন সন্তানকে নিয়ে গ্রামে বাস করেন। তাদের দোচালা টিনের ঘর রয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে হাসিনা বাহিরের বাথরুমে গেলে দুইজন চোর ঘরে ঢুকে খাটের নিচে ওঁৎ পেতে থাকে। বাথরুম থেকে এসে তিনি দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে গেলে ঘরে থাকা স্টিলের আলমারি থেকে স্বর্ণ ও নগদ টাকা চুরি করে ওই চোরেরা।

পরে হাসিনার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন চুরি করে পা’লানোর সময় তার ঘুম ভে’ঙে যায়। এ সময় হাসিনা চিৎ’কার করলে হাতে থাকা ধারা’লো ছু’রি দিয়ে তাকে কো’প দেয় এক চোর। পরে গু’রুতর আ’হত অবস্থায় প্রতিবেশীরা তাকে উ’দ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। আ’হত হাসিনা বেগমের বড় বোন শিল্পী বেগম বলেন, আমার বোনের ঘরে খবির মাদবর ও আনাছুদ্দিন সরদার চু’রি করতে ঢোকে।

তারা বোনের স্টিলের আলমারি থেকে ৩ ভরি স্বর্ণ ও নগদ ৪ লাখ টাকা চুরি করেছে। বোনের গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন চু’রি করে পালা’নোর সময় চিৎ’কার করলে ছু’রি দিয়ে তাকে কু’পিয়ে জ’খম করেছে।প্রতিবেশী মোশারফ সরদার বলেন, গভীর রাতে চিৎকার শুনে হাসিনার ঘরে ছুটে যাই। এ সময় হাসিনাকে র’ক্তা’ক্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাই। আংগারিয়া পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত পরিদর্শক মিন্টু মন্ডল বলেন,

শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে মাদারীপুরের খাসেরহাট এলাকা থেকে খবির মাদবর ও তাইজউদ্দিন সরদারকে আ’টক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই বাড়িতে চুরির বিষয়টি তারা স্বী’কার করেছে। তাদের কাছ থেকে ছুরিসহ বিভিন্ন আলামাত উ’দ্ধার করা হয়েছে। পালং মডেল থানা পুলিশের ওসি (তদ’ন্ত) মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, ভু’ক্তভো’গী পরিবারের পক্ষ থেকে মাম’লার প্রস্তুতি চলছে। আ’হত হাসিনা হাসপাতালে ভর্তি আছেন।