নারী থেকে পুরুষ হয়ে ১৫ বছর পর ফিরে এসেছে মাদারীপুরের হেনা

নারী থেকে পুরুষ হয়ে ১৫ বছর পর ফিরে এসেছেন মাদারীপুরের শিবচরের সেরেলা আক্তার হেনা। এখন তার নাম সেলিম রেজা। তাকে ঘিরে এলাকায় সৃ’ষ্টি হয়েছে চা’ঞ্চল্য।একনজর দেখতে সেলিম রেজার বাড়িতে ভিড় করছে উৎসুক জনতা। সেলিম রেজা শিবচর উপজে’লার নিলখী ইউপির চরকামার কান্দি গ্রামের সেকান্দার খানের ছেলে। তার দাবি, কোনো সার্জারি করেননি। হরমোনজনিত কারণেই পুরুষে রূপান্তরিত হয়েছেন তিনি।

স্থানীয়রা জানায়, ১৫ বছর আগে সেরেলা আক্তার হেনা ওরফে সেলিম রেজা পড়াশোনা করতে ঢাকায় চলে যান।তখন তিনি নারী ছিলেন। নারীদের মতোই তার লম্বা চুল, আচরণ-ওঠাবসা ছিল। কয়েক বছর ধরে হরমোনজনিত কারণে তার আচরণ পুরুষের মতো হতে শুরু করে।
ধীরে ধীরে তিনি পুরুষ হয়ে যান। একপর্যায়ে সম্পূর্ণ পুরুষের মতোই তার দৈনন্দিন চলাফেরা শুরু হয়। আরো জানা যায়,

তিনি নাকি বিয়েও করেছেন।স্ত্রীকে নিয়েই গ্রামের বাড়িতে আসেন গত সপ্তাহে। এ খবর শুনে এলাকার মানুষ তাকে দেখতে ছুটে আসে তার বাড়িতে। সেলিম রেজার দাদি আসমা বেগম বলেন, সেরেলা আক্তার হেনা ওরফে সেলিম রেজা আমার চোখের সামনেই বড় হয়েছে। তখন দেখেছি ও সম্পূর্ণ মেয়ে।ও ঢাকায় যাওয়ার পর আমিও ওর সঙ্গে ছিলাম। তখন ও মেয়েদের মতো জামাকাপড় পরতো।

কয়েক বছর আগে শুনতে পাই হেনা নাকি পুরুষ হয়ে গেছে। গত সপ্তাহে বাড়ি আসার পর আমরা তো প্রথমে চিনতেই পারিনি। সত্যতা স্বীকার করলেন সেলিম রেজা নিজেও। তিনি বলেন, সত্যি বলতে কি আমি মেয়েই ছিলাম। আমার আ’চরণ, কথাবার্তা সম্পূর্ণ মেয়েদের মতো ছিল।তবে আমার হরমোনজনিত একটা রো’গ ছিল। যেটা আমি ছোট বেলা থেকেই টের পেয়েছি। দেখতে মেয়েদের মতো হলেও মেয়েদের মতো অনুভূতি হতো না।

আস্তে আস্তে এই রো’গ বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে আমার শারীরিক গঠন ও আ’চরণ স’ম্পূর্ণ পুরুষের মতো হয়ে যায়। বিসিবি সভাপতি হচ্ছেন মাশরাফি>>> গত বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে সিলেটে ম্যাচের পূর্ববর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি জানিয়েছেন তাঁর ওয়ানডে অধিনায়কত্ব থেকে বিদায়ের কথা। সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে তৃতীয় ওয়ানডে দিয়েই জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব পদ থেকে সড়ে যান তিনি।

তবে মাশরাফি অধিনায়কত্ব থেকে বিদায় নিলেও তাঁর জনপ্রিয়তার কমতি হবে না বলে মনে করেন ভক্তরা। শুধু তাই নয় তাকে ক্রিকেট থেকে হারিয়ে যেতে দিবেন না বোর্ডের কর্মকর্তারাও। মাশরাফি আর খেলতে না পারলেও তাকে যোগ্য মর্যাদার স্থানে বসানো হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ জাহিদ আহসান রাসেল, এমপি।

অধিনায়কত্ব থেকে বিদায়ের বিষয়ে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ‘মাশরাফি দেশের ক্রিকেটারদের আইকন। আমরা তাকে সর্বোচ্চ জায়গায় দেওয়ার জন্যই অপেক্ষা করতেছি। মাশরাফিকে আমরা তার যোগ্য মর্যাদার স্থানেই বসাবো’। বিসিবি এবং আইসিসি’র সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল বলেছেন, ‘মাশরাফি সবার আইকন।

মাশরাফি তার জায়গাতে সব সময় সেরা। সেই অধিনায়কত্ব ছেড়েছে, এখন এমপি। তার সাথে আমাদের সবসময় যোগাযোগ ছিল, আছে। তাকে আমরা সর্বোচ্চ মর্যাদাই দেব।’ তবে মাশরাফি ভক্তদের অনেকেই মনে করছেন, মাশরাফির সেই সর্বোচ্চ সম্মান হতে পারে বিসিবি সভাপতি। কারণ বিসিবির সর্বোচ্চ মর্যাদার জায়গা একমাত্র সভাপতি পদই।