কাতারে আরও ২৩৮ প্রবাসীর দেহে করোনাভাইরাস

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে আরও ২৩৮ প্রবাসীর দেহে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উপস্থিতিপেয়েছে দেশটির জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তবে এদের মধ্যে কোনো বাংলাদেশি আছেন কিনা তা জানা যায়নি।দেশটির জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, একই আবাসিক ভবনে বসবাসকারী তিনজনের সংস্পর্শে এসে এই ২৩৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে কাতারে করোনা আ’ক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ২৬২ জনে। করোনাভাইরাসের বিস্তার ও সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণেল লক্ষ্যে ইতোমধ্যে স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করেছে কাতার।

সোমবার দেশটির সরকার এই ঘোষণা দেয়।গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয়। এখন পর্যন্ত ১ লাখ ১৯ হাজার ২১৭ জন প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ৪ হাজার ২৯৯ জন।অপরদিকে করোনায় আক্রান্ত ৬৬ হাজার ৫৬৩ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে। বিশ্বের ১১৯টি দেশ ও অঞ্চলে এই ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়েছে।

শুধুমাত্র চীনের মূল ভূখণ্ডেই করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৭৭৮ এবং মৃ;ত্যু হয়েছে ৩ হাজার ১৫৪ জনের।চীনের পর করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি ইতালিতে। দেশটিতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃ;ত্যু হয়েছে ৬৩১ জনের।যে কারণে বাহরাইনে থেমে গেল ৬৮ বাংলাদেশির সৌদিযাত্রা>>> সৌদি আরব পৌঁছতে পারেননি ৬৮ বাংলাদেশি।

করোনাভাইরাসের কারণে বাহরাইনের সঙ্গে সৌদি আরব বিমান যোগাযোগ বন্ধ করায় তারা বাহরাইন বিমানবন্দরে আটকা পড়েন। গালফ এয়ারে করে ট্রানজিট যাত্রী হিসেবে বাহরাইনে অবতরণ করেছিলেন তারা। সেখান থেকে সংযোগ ফ্লাইটে করে সৌদি আরব যাওয়ার কথা ছিল তাদের। জানা গেছে, সোমবার ভোরে বাহরাইনে অবতরণকারী যাত্রীদের মধ্যে ৬২ জন পুরুষ ও ৬ জন নারী রয়েছেন।

তাদের মধ্যে ৫৩ জনই দেশে ছুটি কাটিয়ে নিজ কর্মস্থলে ফিরছিলেন। এখন তারা বাংলাদেশে ফিরে আসছেন। বাহরাইনে বাংলাদেশ দূতাবাসের লেবার কাউন্সেলর শেখ মো. তৌহিদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সোমবার কয়েকজন যাত্রীকে গালফ এয়ারে করে বাংলাদেশে পাঠানো হয়েছে। বাকিদেরও দেশে পাঠানো হবে। সম্প্রতি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে বাহরাইনসহ ১৪টি দেশ থেকে আকাশ, স্থল ও নৌপথে যোগাযোগ স্থগিত করে সৌদি আরব।