মিরপুরে ভ‘য়া‘বহ আ‘গুন, পু‘ড়ছে শত শত ঘর( বিস্তারিত)

রাজধানীর মিরপুর এলাকায় রূপনগর বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা লেগেছে। আজ বুধবার (১১ মার্চ) সকাল ৯ টা ৪৫ মিনিটে আগুনের সূত্রপাত হয়। প্রাথমিকভাবে আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের ৩ টি ইউনিট ঘটনা স্থলে এলে তারা ব্যর্থ হয়। তারপর আরও ৮ টি ইউনিট এলেও আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা সম্ভব হচ্ছিল না। পরে ফায়ার সার্ভিসের আরও ৫ টি ইউনিট যোগ দিলে মোট ১৬ টি ইউনিট নিয়ে আগুন নেভানোর কাজ চালায় ফায়ার সার্ভিস দল।

কিন্তু কোনোভাবেই আগুন নিয়ন্ত্রনে না আনতে পাড়ায় বর্তমানে ২০ টি ইউনিট কাজ করছে সে বস্তিতে। তাৎক্ষণিকভাবে আগুন লাগার কারণ, হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি। তবে স্থানীয়দের কাছে জানা যায়, সে বস্তিতে প্রায় কয়েকশত ঘর বাড়ি আছে। আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পরছে আশেপাশের ভবনেও। ফায়ার অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ডিউটি অফিসার রাসেল শিকদার বলেন,

‘সকাল পৌনে ১০টায় মিরপুরের রূপনগরের ‘ট’ ব্লকের বস্তিতে আগুন লাগে। আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিট ঘটনাস্থলে কাজ করছে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহত এবং আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে জানা যায়নি।’৩ ঘণ্টার চেষ্টায় রূপনগরের আ’গুন নি’য়ন্ত্রণে>>> ফায়ার সার্ভিসের ২২ ইউনিটের ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে রাজধানীর মিরপুর রূপনগর বস্তির আ’গুন। বুধবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে রূপনগরের

‘ত’ ব্লকের বস্তিতে লাগা আগুন পৌনে ১টার দিকে নিয়ন্ত্রণে আসে বলে খবর পাওয়া গেছে। এদিকে আ‘গু‘ন আশপাশের কয়েকটি ভবনে ছড়িয়ে পড়েছে। আজ বুধবার (১১ মার্চ) সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে এ অ‘গ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আ‘গু‘ন নিয়ন্ত্রণে আসেনি। ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুম সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। আ‘গু‘নে ক্ষ‘য়ক্ষ‘তির বিস্তারিত তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

কয়েকমাস আগেও মিরপুরের চলন্তিকা বস্তিতে আরেকবার ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। গত বছরের ১৬ আগস্ট সন্ধ্যায় মিরপুর ৭ নম্বরে রূপনগর থানার পেছনের বস্তিতে আ‘গু‘ন লাগে। মিরপুরের চলন্তিকা মোড় থেকে রূপনগর আবাসিক এলাকা পর্যন্ত ঝিলের ওপর কাঠের পাটাতন দিয়ে ছোট ছোট ঘর বানিয়ে গড়ে তোলা বস্তিতে আ‘গু‘ন লাগার পর ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিটের সাড়ে তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আ‘গু‘ন নিয়ন্ত্রণে আসে।

তবে এর আগে ওই বস্তির দুই হাজারের বেশি ঘরের প্রায় সব কটিই পু‘ড়ে যায় সে অগ্নিকাণ্ডে। আ’গুন নিয়ন্ত্রনে চেষ্টা করছে ২০ ইউনিট, হি’মসিম খাচ্ছে কর্মীরা>>> মিরপুরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আপ্রান চেষ্ট্রা করেও আ’গুন নিয়ন্ত্রনে আনা সম্ভব হচ্ছে না।
পর্যাপ্ত রাস্তা না থাকায় আ’গুন লাগার স্থানে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি পৌছানো সম্ভব নয়। এছাড়া প্রচুর উৎসুক জনতার কারনেও আ’গুন নিয়ন্ত্রনে বেগ পেতে হচ্ছে ফায়ার ফাইটারদের।

সাথে রয়েছে বাতাসের চাপ। বার বার উৎসুক জনতাকে দুরে সড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করেও ব্যা’র্থ হচ্ছে আ’ইন শৃঙ্খলা বাহিনী। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী আ’গুন নিয়ন্ত্রনে যোগ হয়েছে আরো চারটি ইউনিট। এনিয়ে ২০টি ইউনিট আ’গুন নিয়ন্ত্রনে কাজ করছে। বুধবার (১১ মার্চ) সকালে এ অ’গ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। প্রাথমিকভাবে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি। বস্তিতে ঘরগুলো টিনের থাকার কারনে আ’গুনের লেলিহান শিখা আরো তীব্র হচ্ছে। তবে আ’তংকের বিষয় হচ্ছে আ’গুন আশেপাশের ভবনগুলোতে ছড়িয়ে যায় কিনা।