করোনাভাইরাসে আরো এক বাংলাদেশির মৃ’ত্যু, আ’তঙ্কে প্রবাসীরা

যুক্তরাজ্যে করোনা ভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়ে প্রথমবারের মতো এক বাংলাদেশি মা’রা যাওয়ার ঘটনায় প্রবাসীদের মধ্যে বেড়েছে আত’ঙ্ক। এদিকে করোনা প্র’তিরোধে জরুরি বৈঠকে বিস্তার ঠেকাতে বিভিন্ন ব্যবস্থা নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।যুক্তরাজ্যে প্রতিদিনই গড়ে পঞ্চাশ জনের মতো আ’ক্রান্ত হচ্ছেন করোনা ভাইরাসে। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। ইতোমধ্যে দেশটিতে পঁচিশ হাজারের বেশি মানুষকে পরীক্ষা করা হয়েছে।

করোনাভাইরাস কেড়ে নিল বাংলাদেশীর প্রান>>> এদিকে এক বাংলাদেশির মৃ’ত্যু হওয়ায় উদ্বেগ ও ‘আতঙ্ক বেড়েছে প্রবাসীদের মধ্যেও।একজন বৃদ্ধা বলেন, করোনা থেকে বাঁচতে সতর্কতা অবলম্বন করা দরকার।ব্রিটিশ এমপি রুশনারা আলী বলেন, অনেক মানুষের চিন্তা আছে করোনা ভাইরাস নিয়ে। মেডিকেল আদেশগুলো মেনে চলতে হবে।

ব্রিটেন থেকে বাংলাদেশে যেতে ইচ্ছুকদের ভিসা নেয়ার আগে একটি ঘোষণাপত্র দিতে হবে বলে জানান লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন। লন্ডনে বাংলাদেশ হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম বলেন, ওনাদেরকে ঘোষণা দিতে হবে, ৬ সপ্তাহের মধ্যে তাদের জ্বর বা ইনফ্লুয়েঞ্জা হয়েছে কিনা বা হলেও ডাক্তারের কাছ থেকে সার্টিফিকেট এনে দিতে হবে তার করোনা ভাইরাস নেই।এখন পর্যন্ত সারা বিশ্বে লক্ষাধিক মানুষ করোনায় আ’ক্রান্ত হয়েছেন।

মা’রা গেছেন ৪ হাজারেরও বেশি মানুষ। সৌদি আরব থেকে ফিরেই করোনাভাইরাস স’ন্দেহে হাসপাতালে দম্পতি>>> করোনাভাইরাসে আক্রান্ত স’ন্দেহে সৌদি আরব থেকে ফেরা এক বয়স্ক দম্পতিকে হযরত শাহ্‌জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহরিয়ার সাজ্জাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন,

ওই দম্পতির মধ্যে শ্বাসকষ্টের উপসর্গ থাকায় আজ সোমবার সকালে তাদেরকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে ওই দম্পতির সঙ্গে থাকা তাদের ছেলের মধ্যে কোনো উপসর্গ না থাকায় তাকে বাড়িতে পাঠানো হয়েছে।বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহরিয়ার সাজ্জাদ বলেন, কিছুদিন আগে ওই দম্পতি ছেলের চীন থেকে সৌদি আরবে যান। সেখানে ১০ দিন অবস্থান করে সোমবার ভোরে বাংলাদেশে পৌঁছান।

বিমানবন্দরে পরীক্ষায় দেখা যায় যে, তাদের শ্বাসকষ্ট রয়েছে। বেশ কিছুদিন ধরে ওই দম্পতি শ্বাসকষ্টের চিকিৎসা নেয়ার পরও তা ভালো না হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। সম্প্রতি বাংলাদেশে তিনজন ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত করেছেন কর্মকর্তারা। এরা ঢাকার দুটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এদের মধ্যে দুজন ইটালি থেকে এসেছেন।

তৃতীয়জন এই দুজনের একজনের আত্মীয়, যিনি বাংলাদেশেই ছিলেন। এছাড়া এই তিনজনের সংস্পর্শে একদিন যারা এসেছেন এমন ৪০ জনকে গতকাল পর্যন্ত আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে বলে জানান কর্মকর্তারা। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়ার পর আগামী ১৭ই মার্চ অনুষ্ঠিতব মুজিব জন্ম শতবার্ষিকীর বড় আয়োজন স্থগিত করা হয়েছে।