মাশরাফির থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিৎ কিভাবে জীবন বাজি রেখে খেলতে হয়: ইমরান খান

টানা ৬ বছর দলকে নেতৃত্ব দিয়ে গতকাল অশ্রুসিক্ত নয়নে অধিনায়কত্ব থেকে বিদায় নিলেন মাশরাফি। গত ২০০১ সালের ৮ নভেম্বর টেস্টের মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলে আগমন ঘটে তাঁর। ২০০৯ সাল এসে প্রথম দায়িত্ব পান দলের অধিনায়কের আর ৬ মার্চ ২০২০ সালে এসে অধিনায়ক হিসেবে ৮৮ ম্যাচ খেলে বাংলাদেশকে ৫০টি ম্যাচে জয় এনে দিয়ে বিদায় নিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম ধ্রুবতারা মাশরাফি বিন মর্তুজা।

এদিকে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে আজকের এই উচ্চ পর্যায়ে আনতে যে কয়জন ক্রিকেটার সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তার মধ্যে মাশরাফি অন্যতম। বারবার ইনজুরি থাকা সত্ত্বেও একের পর এক রেকর্ড গড়ে দলকে বহুবার জিতিয়েছেন তিনি। বুক উচিয়ে দলের সবাইকে এক করে লড়ে গেছেন আর সাহস যুগিয়ে গেছেন মাশরাফি। তাছাড়া তার এমন হার-না-মানা মানসিকতায় অনেকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন মাশরাফিকে। সে তালিকায় যুক্ত পাকিস্তানের কিংবদন্তী ক্রিকেটার বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

গত এশিয়া কাপে টাইগার অধিনায়ক মাশরাফির প্রশংসা করেছেন ইমরান খান। এ সময় তিনি বলেন, ‘মাশরাফি ক্রিকেটের একজন সাহসী সৈনিক। সে ইঞ্জুরিকে জয় করে মাঠে ফিরে নিজেকে প্রমান করেছে অনেকবার। খেলার জন্য সে জীবন বাজি রেখেছে বহুবার। মাশরাফি থেকে তরুণ সকলকে শিক্ষা নেওয়া দরকার কিভাবে দলের প্রয়োজনে নিজের জীবন বাজি রেখে খেলে যায়।’ এদিকে মাশরাফি মোট ৩৬টি টেস্ট ম্যাচে নিয়েছেন ৭৮টি উইকেট। একই সঙ্গে তিনটি হাফ সেঞ্চুরিসহ রান করেছেন ৭৯৭। টি-টুয়েন্টিতে ফরম্যাটে ৫৪ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৪২টি উইকেট। সেই সঙ্গে ব্যাট হাতে করেছেন ৩৭৭ রান। আর একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২২০ ম্যাচে নিয়েছেন ২৭০ টি উইকেট।