কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলে র’হস্যজনক মৃ’ত্যু হওয়া সেই কলেজছাত্রীর পরিচয় পাওয়া গেছে

বরিশালের আগৈলঝাড়া থেকে নি’খোঁজ কলেজছাত্রীর লা’শ কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল থেকে উ’দ্ধার করেছে পুলিশ। তার নাম ইশিতা কর (১৬)। সে উপজেলার বারপাইকা গ্রামের নিপুল করের কন্যা ও কালকিনির ডাসার সরকারি শেখ হাসিনা উইমেন্স কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী। জানা গেছে, ইশিতার সাথে মোবাইল ফোনে প্রেমের সর্ম্পক হয় যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলা সদরের রাজ্জাক সরদারের (৩৩)। তিনি ইশিতাকে প্রেমের ফাঁ’দে ফেলে কুয়াকাটার হলিডে ইন নামের একটি আবাসিক হোটেলে

নিয়ে হ’ত্যা করে পা’লিয়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তাকে গ্রেফ’তারের চেষ্টা চলছে বলে জানায় পুলিশ। ওসি তদ’ন্ত মোঃ মাহাবুবুর রহমান জানান, ওই তরুণের মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে গৌরনদী ও মহিপুর থানার দু’জন এসআই সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বুধবার সকালে গৌরনদী থানার চাঁদশী গ্রামে তদ’ন্তে যান। সেখান গিয়ে জানতে পারেন ইশিতা করের বাড়ি আগৈলঝাড়া উপজেলার বারপাইকা গ্রামে।

সে ওই গ্রামের নিপুল করের কন্যা ও কালকিনির ডাসার সরকারি শেখ হাসিনা উইমেন্স কলেজের একাদশ শ্রেণীর কলেজ ছাত্রী। গত ২৯ ফেব্রুয়ারি সকালে কলেজে পরীক্ষা দিতে গিয়ে নি’খোঁজ হয় ইশিতা। এরপর তারা ওই গ্রাম থেকে নিপুল করের মোবাইল ফোন নম্বর সংগ্রহ করে তাকে ফোন দিয়ে গৌরনদী থানায় আসতে বলেন। নিপুলসহ স্বজনরা গতকাল দুপুরে গৌরনদী থানায় আসলে তাদেরকে উ’দ্ধারকৃত তরুণীর লা’শের ছবি দেখানো হয়। ছবি দেখে স্বজনরা ইশিতার লা’শের স’নাক্ত করেন।

মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, প্রাথমিক অবস্থায় পুলিশ লা’শ উ’দ্ধার করে ময়নাতদ’ন্তের জন্য পটুয়াখালি মর্গে পাঠায়। তরুণীর অভিভাবকরা গৌরনদী থেকে মহিপুরে পৌঁছার পরে অভিভাবককদের পক্ষ থেকে মাম’লা দায়ের করা হবে। জানা গেছে, গত ২৯ ফেব্রুয়ারি কুয়াকাটার হলিডে ইন নামের একটি আবাসিক হোটেলের ২০৮ নম্বর কক্ষে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে উঠেন ওই তরুণ-তরুণী। এ সময় হোটেল রেজিস্টারে ওই যুবক ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করেন।