কুমিল্লায় আ’বাসিক হোটেল থেকে ১২ নারীসহ ১৩ জন আ’টক

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের জাগুরঝুলি এলাকার আলোচিত-সমালোচিত হোটেল সোনালিতে অ’ভিযান চালিয়ে ১২ জন পতিতাসহ ১ জন পুরুষকে আ’টক করা হয়েছে।স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে হোটেল সোনালিতে দীর্ঘদিন ধরে পতিতা ব্যবসা করে আসছে একটি প্রভাবশালী মহল। এলাকার লোকজন বিভিন্নভাবে আ’ইনশৃংখলা বা’হীনির সদস্যদের তথ্য দিয়ে ও কোনো প্রতিকার পায়নি। স্থানীয় এলাকাবাসী নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই প্রতিবেদককে বলেন, হোটেল মালিক প্রভাবশালী হওয়ায় প্রকাশ্যে প্র’তিবাদ করার মতো সাহস পাচ্ছেনা কেউ।

হোটেল মালিক সাংবাদিকসহ বিভিন্ন মহলকে ম্যানেজ করার মাধ্যমে দীর্ঘদিন এই ব্যবসা করার কথাও জানান অনেকে। গত সোমবার সন্ধ্যায় আদর্শ সদর উপজে’লা নির্বাহী অফিসার জাকিয়া আফরিন, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যা’জিষ্ট্রেট মাহফুজা মতিন, মাহমুদ হাসান রাসেল এর নেতৃত্বে অ’ভিযান চালিয়ে ১২ জন পতিতা ও ১ জন পুরুষ সদস্যকে আ’টক করেন। আ’টককৃতরা হলেন, হোটেল কর্মচারী ইব্রাহীম, সালমা আক্তার, সাদিয়া আক্তার, সীমা আক্তার, রিয়া আক্তার, মরীয়ম, মারিয়া,

শীলা আক্তার, সাথী আক্তার, রুপা আক্তার, কনা খাতুন, শারমীন আক্তার ও প্রিয়া আক্তার।এ বিষয়ে উপজে’লা নির্বাহী অফিসার জাকিয়া আফরিন বলেন, অ’ভিযান চালিয়ে ১২ জন নারী ও ১ জন পুরুষকে আ’টক করে থা’নায় হস্তান্তর করা হয়। তিনি আরো জানান, আ’টককৃতদেও বি’রুদ্ধে নিয়মিত মা’মলা হবে। এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থা’নার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, আ’টককৃতদের বি’রুদ্ধে মা’মলা দায়ের করে আ’দালতে প্রেরন করা হয়।