বিবাহিত নারীদের প’রকীয়ায় জড়ানোর পাঁচ কারণ ।

প্রতিটি বিবাহিত নারীরই কাম্য স্বামী, সন্তান নিয়ে সুখে থাকা। পরিবারকে পরম ভালোবাসায় বেঁধে রাখতে তাই চেষ্টারও কমতি থাকে না তাদের। স্বামীর ভালোবাসায় সিক্ত থাকতে চান প্রতিটি স্ত্রী। তবে স্বামীদেরই কিছু ভুলের কারণে প্রায় দেখা যায় নারীরা অন্য পুরুষেদের প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছে। যদিও বেশিরভাগ পুরুষ তা মানতে চান না। তারপরও এটিই সত্যি। গবেষকরা অনেক গবেষণা করে বিবাহিত নারীদের প’রকী’য়ায় জড়ানোর পাঁচটি কারণ খুঁজে বের করেছেন।

চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সেই কারণগুলো- স্ত্রীর প্রতি স্বামীর দৃষ্টি আ’কর্ষণের অভাব প্রত্যেক স্ত্রী-ই চায় স্বামীর মনোযোগ পেতে। ছোটখাটো হাসি মজা করতে। তবে নানারকম কারণে বা স্বামীর ব্যস্ততা তাতে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। যার ফলে দিন দিন স্ত্রীর মন ভা’ঙতে থাকে। সঙ্গ পাওয়ার জন্যই একসময় তারা পরকীয়ায় জড়িয়ে যান। সারাদিন স্ত্রীর দোষ ধরা অনেক স্বামী আছেন যারা স্ত্রীর ছোট ছোট কাজেও ভুল ধরতে থাকে।

স্ত্রীর কোনো কাজই তার মন মতো হয় না। যদিও স্বামীর মন জয়ের ক্ষেত্রে স্ত্রীর চেষ্টার কোনো কমতি থাকে না। তারপরও সে ব্যর্থ হয়। এক্ষেত্রে অন্য পুরুষের কাছে নিজের প্রশংসা শোনা তাকে আ’কৃষ্ট করে। তখন ধীরে ধীরে সে তার সঙ্গে প’রকী’য়ার সম্পর্ক গড়ে তোলেন। স্ত্রীকে সময় না দেয়া আমাদের সমাজে এমন অনেক পুরুষ আছেন যারা মনে করেন বিয়ের পর স্ত্রীর কাজ শুধু বংশ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। তাদের ঘর সামলানো ছাড়া আর কোনো কাজ নেই।

তাই তারা তাদের স্ত্রীদেরও সময় দেন না। নিজের মতো করে সময় কাটান। স্ত্রীদের ভালো লাগা মন্দ লাগা নিয়ে চিন্তাও করেন না। তাদের এ ধরনের ব্যবহারের কারণে একসময় স্ত্রী প’রকী’য়ায় জড়িয়ে পড়েন। প্রয়োজনের চাইতে বেশি কৃপণতা অনেক পুরুষ আছে যারা সঞ্চয়ের নামে অতিরিক্ত কৃ’পণতা করেন। এমনকি খুব দরকারি জিনিসগুলোও স্ত্রীদের এনে দিতে কার্পণ্য করেন।

এই ধরনের স্বামীদের প্রতি তিক্ত হয়ে স্ত্রীরা পরকীয়া করেন। স্ত্রীর মতামত কিংবা সিদ্ধান্তকে মূল্য না দেয়া অনেক স্বামীই আছেন, যারা মনে করেন নিজে যা চিন্তা করছেন বা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা একদম ঠিক। এক্ষেত্রে স্ত্রীর কোনো মতামতকেই সে গুরুত্ব দেন না। যা একজন নারীর জন্য মেনে নেয়া কষ্টকর হয়ে পড়ে। যা একসময় তাকে প’রকী’য়ায় জড়াতে বাধ্য করে দেয়।