পাপিয়াকে নিয়ে চাঁ’দা’বা’জি করতে যান সা’বেক এক এমপি, নতুন ভি’ডিও ভা’ইরা’ল

নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহি’ষ্কৃত নেত্রী শামিমা নূর পাপিয়ার নতুন ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে পাপিয়াকে নিয়ে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাবেক এক এমপিকে বারিধারার এক বাড়িতে প্রবে’শ করতে দেখা গেছে। যুব মহিলা লীগের ওই দুই নেত্রী চাঁ’দাবা’জি ও হু’মকি-ধ’মকি দিতেই সেদিন ওই বাড়িতে গিয়েছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। সূত্র জানায়, সেদিনের ঘটনায় বাড়ির মালিকের প’ক্ষে বেসরকারি নিরাপ’ত্তা প্রতিষ্ঠান গ্রুপ ফোর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জি’ডি) করেছিল। জিডিতে ওই বাড়িতে জো’রপূ’র্বক প্রবে’শের অভি’যোগ আনা হয়েছে ওই দুই নেত্রীর বিরু’দ্ধে।

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে চাঁ’দা আদায় ও অনেক অ’পকর্মে পাপিয়ার সঙ্গে যেতেন যুব মহিলা লীগের নেত্রী ও সাবেক একজন এমপি বলে জানায় সূত্র। নেপ’থ্যে কা’রিগর ছিলেন দলের পদধারী আরেক নেত্রী। এ দিকে পাপিয়ার অপরা’ধজগৎ সম্পর্কে জানতে ভিডিওতে থাকা সাবেক এমপি ও যুব মহিলা লীগ নেত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সরকারের উচ্চপর্যায়ে অনুমতি চেয়েছে আইনশৃ’ঙ্খলা বাহিনী। অনুমতি পেলেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এ ছাড়া যুব মহিলা লীগের আরও কয়েকজন নেত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের চিন্তাভাবনা চলছে বলেও সূত্রের তথ্য।

রবিবার (১ মার্চ) সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া গেল বছরের ডিসেম্বরের ২৫ তারিখের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, সন্ধ্যা ৫টা ৪৫ মিনিট ২১ সেকেন্ডে বারিধারার ওই বাড়ির সামনে এসে থামে সাদা রঙের বিলাসবহুল জিপ। কিছুক্ষণ পরই গাড়ির দুই পাশ দিয়ে নামেন পাপিয়া ও ওই সাবেক নারী এমপি। মিনিট পাঁচেক গেটের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা গ্রুপ ফোর কর্মীদের সঙ্গে কথা বলার পর গাড়ি থেকে শাড়ি পরা আরেক নারী নেমে আসেন। এরপর কয়েকজন নারী ও পুরুষ সঙ্গে নিয়ে বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করেন তিন নারী।

গেটের সামনে সঙ্গীদের রেখে তিনজনই প্রবেশ করেন বাড়ির ভিতরে। এর বেশ কিছু সময় পর দুজনকে বেরিয়ে আসতে দেখা যায় ওই বাড়ি থেকে। গত ২২ ফেব্রুয়ারি যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী পাপিয়াকে আটককালে তার কাছ থেকে ২ লাখ টাকা, ই’য়াবা, ম’দ ও জাল মু’দ্রা উ’দ্ধার করা হয়। পরদিন তাকে নিয়ে নরসিংদী ও রাজধানীর ফার্মগেটের বাসায় অভি’যান চালায় র‌্যাব। অভি’যানে ফার্মগেটের বাসা থেকে নগদ ৫৮ লাখ টাকা, অ’বৈধ পি’স্তল ও গু’লি,

বিদে’শি মুদ্রা ও ম’দ উ’দ্ধার করা হয়। এরপর দেশজুড়ে সমালো’চনার ঝড় ওঠে। পরে পাপিয়াসহ গ্রে’প্তার চারজনকে বিমানব’ন্দর থানায় হস্তান্তর করা হয়। জা’ল মুদ্রা উ’দ্ধা’রের ঘটনায় ওই থানায় একটি মাম’লা করা হয়, যেখানে চারজনকেই আ’সামি করা হয়। এ ছাড়া অ’স্ত্র ও ম’দ উদ্ধা’রের ঘটনায় রাজধানীর শেরেবাংলানগর থানায় আরও দুটি মাম’লা করা হয় পাপিয়া ও তার স্বামী সুমনের বিরু’দ্ধে।

পাপিয়ার ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন