বিশ্বাস করো, আমার চোখে তুমি বিশ্বকাপের অঘোষিত নায়কঃ মাশরাফি

দক্ষিণ আফ্রিকার বৈরী কন্ডিশনে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে বিশ্বকাপ ট্রফি জয় করে সম্প্রতি দেশে ফিরেছে বাংলাদেশের তরুন ক্রিকেটার। গত কয়েকদিনের মধ্যে বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন এই আকবার আলীরা। মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নেবেইবা না কেন? এই আকবার আলীররাই তো বাংলাদেশ গর্বের বিজয়টি প্রতিপক্ষ ভারতের কাছ থেকে ছিনিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে।

আর এই তরুন ক্রিকেটারদের অন্যতম একজন হলেন পেস অলরাউন্ডার অভিষেক দাস। তার উপর ইনি এবার নড়াইল এক্সপ্রেস হিসাবে পরিচিত মাশরাফি বিন মুর্তজা্র শহর থেকে এসেছেন। বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে যেয়েই প্রথম বল হাতে নেয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন অভিষেক। তার আগে আরও একটা ম্যাচে একাদশে ছিলেন বটে কিন্তু পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে

পরিত্যক্ত হয়ে যাওয়ায় বল করার সুযোগ পাননি এই পেসার। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনাল ও সেমিফাইনাল ম্যাচে আর সুযোগ পাননি। ফাইনালে স্পিনার হাসান মুরাদকে বাদ দিয়ে একজন বেশি পেসার খেলাতে অভিষেককে নেয়া হয় দলে। হয়তো মৃত্যুঞ্জয়ের চোটের কারণেই সুযোগটা মিলেছিল অভিষেকের। এই এক সুযোগেই জাতীয় দলের অধিনায়কের মন জয় করে নিয়েছেন অভিষেক।

তাই অনেকটা ভাগ্যবশত, বিশ্বকাপের ফাইনালে একাদশে সুযোগ পেয়েই বাজিমাত করা অভিষেককে নিয়ে মাশরাফি স্বপ্ন দেখছেন বড় কিছুর। এই বিশ্বকাপজয়ী ক্রিকেটারদের নিয়ে নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মাশরাফি লিখেন, ‘এই আকবর, তামিম, ইমন, রকিবুল, শরিফুল, অভিষেকদেরকে তৈরি করতে তাদের পরিবারকে অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে।

তারাও অনেক পরিশ্রম করেছে।’ মাশরাফির মতে, ‘অভিষেক দেশে ফিরেছে (বিশ্বকাপ জয় করে) বাংলাদেশের মানুষকে গর্ববোধ করাতে, নড়াইলের মানুষকে গর্ববোধ করাতে। তুহিন চাচা, সঞ্জীব বিশ্বাস সাজু এবংইমরুল এবং যারা এই দিনটির স্বপ্ন বুনেছিল তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। আমার চোখে তুমি বিশ্বকাপের অঘোষিত নায়ক। বিশ্বাস করো, আমি এটা মন থেকেই বলছি।’