যে চক্রান্ত করে,এইমাত্র হেফাজতের যে গোপন তথ্য ফাঁস করলেন বাবুনগরী, বিপাকে হেফাজত, বিস্তারিত ভেতরের পাতায়…

মজলিসে শূরার সদস্যদের নিকট দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মা'দ্রাসার সহকারী পরিচালকের পদ থেকে সরাসরি প’দত্যা’গ বা প’দত্যাগে’র বি'ষয়ে কোন প্রকারের স’ম্মতি প্রকাশ করেননি হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী। আজ বুধবার (১৭ জুন) রাতে গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন তিনি । বিবৃতিতে জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন,

শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহম'দ শফী সাহেব হুজুরের সভাপতিত্বে আজ হাটহাজারী মা'দ্রাসার মজলিসে শূরার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই বৈঠকের শেষ পর্যায়ে কিছু বি'ষয় সম্পর্কে জানতে আমাকে বৈঠকে ডাকা হয়েছে। সেসব বি'ষয়ে আমি আমা'র সু’স্পষ্ট বক্তব্য শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহম'দ শফী সাহেব ও শূরার সদস্যদের সামনে উপস্থাপন করেছি।

কিন্তু বৈঠকে শূরার সদস্যদের নিকট মুঈনে মো'হতামীমের পদ থেকে প’দত্যা’গ চাওয়া বা প’ত্যা’গের বি'ষয়ে কোন ধরনের সম্মতি আমি প্রকাশ করিনি। একইস''ঙ্গে বৈঠকে আমাকে মুঈনে মো'হতামীম এর পদ থেকে অব্যা”'হতি দেওয়ার বি'ষয়ে শূরার সদস্যগণ আমাকে কিছুই বলেননি। বৈঠক শেষ হওয়ার অনেক পরে একজন শূরার সদস্য মুঈনে মো'হতামীমের পদ থেকে আমাকে অ’ব্যা’'হতির বি'ষয়টি জানিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, আমি জানতে পেরেছি,

মা'দ্রাসার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে মাওলানা নোমান ফয়জীর বরাতে এবং একটি ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় মাওলানা নুরুল আমীন সাহেবের বরাতে প্রচারিত হচ্ছে যে, আমি মজলিসে শূরার সদস্যদের নিকট মুঈনে মো'হতামীম বা সহকারী পরিচালকের পদ থেকে প’দ’ত্যা’গের সম্মতি প্রকাশ করায় তারা আমাকে ওই পদ থেকে অব্যা'হতি দিয়েছেন। অথচ এ কথা ভিত্তিহীন। আমি শূরার সদস্যদের নিকট কোন প’দত্যা’গ চাইনি। প্রস''ঙ্গত, আজ বুধবার মা'দ্রাসা পরিচালনার সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম ‘মজলিশে শুরা কমিটি’ চার ঘণ্টার বৈঠক শেষে জানায়, জুনায়েদ বাবুনগরীকে হাটহাজারী মা'দ্রাসার সহকারী পরিচালকের দায়িত্ব থেকে অব্যা'হতি দেওয়া হয়েছে।

তাঁর জায়গায় দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে মা'দ্রাসার জ্যেষ্ঠ শিক্ষক শেখ আহমেদকে। তিনি হেফাজত আমির শাহ আহম'দ শফীর ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন মা'দ্রাসার মহাপরিচালক ও হেফাজতের আমির শাহ আহম'দ শফী।