এবার ডিভোর্স নিয়ে মুখ খুললেন অপূর্ব, করলেন অনুরোধ

দীর্ঘ ৯ বছরের দাম্পত্য জীবন ছোট পর্দার অ’ভিনেতা জিয়াউল ফারুক অ’পূর্ব ও তার স্ত্রী’ নাজিয়া হাসান অদিতির। শোবিজে তাদের আদর্শ দম্পতি হিসেবে দেখা 'হতো। ১৭ মে এই জুটির হঠাৎ ডিভোর্সের খবরে বিস্মিত সবাই। এদিকে ডিভোর্সের ব্যাপারে একে একে মুখ খুলছেন অ’পূর্ব ও অদিতি। ১৭ মে রাতে এক ইংরেজি স্ট্যাটাসে অ’পূর্ব ডিভোর্সের কথা স্বীকার করে তার, অদিতি এবং তাদের সন্তানের জন্য দোয়া চেয়েছেন।

অ’পূর্ব যা লিখেছেন তার কিছু অংশ এমন, ‘বেদনার সাথে আমি সবাইকে জানাচ্ছি যে নাজিয়া হাসান অদিতির সাথে আমা’র ৯ বছরের দুর্দান্ত যাত্রাটি অ’প্রত্যাশিতভাবে থেমে গেল। আম’রা এমনটা চাইনি। তবে আমা'দের জীবন এখানে আমা'দের এনে দাঁড় করিয়েছে।

এত বছর যাব'ত আম’রা একসাথে ছিলাম। সে সর্বদা দুর্দান্ত একজন স''ঙ্গী এবং সত্যিকারের শুভাকাঙ্ক্ষী ছিলেন। আমা’র অনেক সাফল্যের পেছনে মূল ভূমিকা পালন করেছে অদিতি। সে এক আশ্চর্য ব্যক্তি, একজন আ'ত্মবিশ্বা’সী উদ্যোক্তা এবং সর্বোপরি অ’ত্যন্ত দয়ালু এবং মানবিক ব্যক্তি।’ অ’পূর্ব আরও বলেন, ‘যদিও আমি আমা’র ক্যারিয়ারে অনেক অর্জন করেছি, তবুও আমা’র সর্বকালের সবচেয়ে বড় অর্জন আমা'দের ছে’লে আয়াশ। পিতৃত্বের এই দুর্দান্ত উপহারের জন্য আমি নাজিয়ার কাছে কৃতজ্ঞ। সে একজন অনুকরণীয় মা।

আমি বুঝতে পারি যে বিয়ের মতো স’ম্পর্ক ভা''ঙ্গার পর অনেক প্রশ্ন উঠে। তবে আমি আমা’র বন্ধুবান্ধব, আমা’র সহকর্মীদের এবং আমা’র লক্ষ লক্ষ ভক্তদের অনুরোধ করছি যে দয়া করে আমা'দের জায়গা থেকে ভাবুন। সবাই জেনে রাখু’ন আমা'দের পক্ষে এটিই সর্বোত্তম সি'দ্ধান্ত হয়েছে।এই সি'দ্ধান্তে আমা'দের উভ’য়ের পরিবার সহায়ক ছিল। আমি আশা করি সবার সম’র্থন পাবো আম’রা দুজনে। যেন জীবনের এই পরীক্ষার সময়গু'’লি পার করতে পারি।’

‘দয়া করে আমাকে, নাজিয়াকে ও আমা'দের পুত্রকে আপনার প্রার্থনায় রাখবেন। সকলকে ধন্যবাদ এবং আল্লাহ আমা'দের সকলকে ম''ঙ্গল করুন’- সবশেষে যোগ করেন অ’পূর্ব। প্রস''ঙ্গত, ২০১১ সালে নাজিয়া হাসান অদিতিকে বিয়ে করেন অ’পূর্ব। এর আগে এই অ’ভিনেতা ঘর বেঁধেছিলেন অ’ভিনেত্রী প্রভাকে।