সর্বশেষ আপডেট
মেডিকেলে চান্স পেলো রাজমিস্ত্রির মেয়ে জাকিয়া সুলতানা কলেজে না গিয়েও এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয় নেহা । বাংলাদেশি কর্মীদের প্রশংসা করে যা বললেন মালয়েশিয়ার পুলিশপ্রধান । বাড়ির নিচতলায় গাড়ী চালকদের জন্য থাকা ও নামাজের ব্যবস্থা করতে হবেঃ প্রধানমন্ত্রী । প্রেমের টানে বাংলাদেশে ভারতীয় গৃহবধূ, সীমান্তে উত্তে’জনা । গোয়ালঘরে শিকলে বাঁধা বৃদ্ধা মা বললেন, মোর পোলারা ভালো । সাড়ে ৮ লাখ টাকা দিয়েও চাকরি হয়নি, কাঁদলেন প্রার্থী । গরু ছেড়ে নারীদের প্রতি বেশি যত্নবান হোনঃ মোদিকে এক নারী । যে কারণে তুহিনকে নি’র্মমভাবে হ’ত্যা করলেন বাবা । পিয়ন থেকে যেভাবে ১২০০ কোটি টাকার মালিক যুবলীগের আনিস ।
যে ১৬টি লক্ষণ ডায়াবেটিস রোগীর রক্তে শর্করা বেড়ে যাওয়া নির্দেশ করে ।

যে ১৬টি লক্ষণ ডায়াবেটিস রোগীর রক্তে শর্করা বেড়ে যাওয়া নির্দেশ করে ।

বিভিন্ন কারণে রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যেতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে অসুস্থতা, সংক্রমণ, চাপ, কেউ যদি ইনসুলিন বা মৌখিক গ্লুকোজ কমানো ওষুধ গ্রহণ বাদ দেয়, কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার, শারীরিক অক্ষমতা,

শ্রমসাধ্য শারীরিক কাজ, বিশেষ করে যখন রক্তে শর্করার মাত্রা উচ্চে এবং ইনসুলিন মাত্রা নিম্নে পর্যায়ে থাকে। রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধির আগাম লক্ষণ চিহ্নিত করতে জানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই আসুন জেনে নিই যে ১৬টি লক্ষণ আপনার রক্তে শর্করার উচ্চমাত্রা নির্দেশ করে।

১. পেটের অতিরিক্ত ওজন/চর্বি: গ্রহণকৃত খাদ্য শরীরের কোষকে পরিপুষ্ট করতে ভিতরে প্রবেশ করতে পারে না, তাই আপনি সব সময় ক্ষুধার্ত বোধ করেন, আপনার ওজন বাড়তে শুরু করে, বিশেষত উদর এলাকায়।

২. স্নায়ু সমস্যা: উচ্চ রক্তচাপ মাত্রার কারণে শরীরের স্নায়ুতে পুষ্টি ও অক্সিজেন পরিবহনকারী রক্তনালি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ৩. অত্যধিক প্রস্রাব/ রাতে প্রস্রাব: উচ্চ রক্তচাপ মূত্রনালির সংক্রমণের কারণ হতে পারে যা প্রস্রাবের মাত্রা ও পরিমাণ বাড়াতে পারে।

৪. ঝাপসা দৃষ্টি: উচ্চ রক্তচাপ চোখের লেন্সের স্ফীতি ঘটাতে পারে যা চোখের ঝাপসা দৃষ্টির কারণ হতে পারে। ৫. পেটের সমস্যা: রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রার কারণে পেট খালি হওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা হতে পারে যা থেকে ব্যথা, বমিভাব, স্ফীতি সৃষ্টি হতে পারে। রক্ত সঞ্চালনের স্বল্পতা চুলকানি সৃষ্টি করে, বিশেষ করে পায়ের নিচের অংশে।

৬. মনসংযোগে সমস্যা: ইনসুলিনের অভাব রক্তপ্রবাহ থেকে কোষে গ্লুকোজের অপসারণ বাধাগ্রস্ত করে যাতে বহু শারীরিক কার্যক্রম হ্রাস পায়। যার ফলে ক্লান্তি ও মনসংযোগে অক্ষমতা দেখা দেয়।

৭. শুষ্ক মুখ: গ্লুকোজ মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে মুখে শুষ্কতা দেখা দিতে পারে। ৮. পুনঃ পুনঃ সংক্রম: কিছু কিছু ক্ষেত্রে পুনরায় সংক্রমণ রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রার আভাস দেয়।

৯. থায়রয়েড, অ্যাড্রেনাল ও পিটুইটারি গ্ল্যান্ডের অকার্যকারিতা: প্যানক্রিয়াস বিষয়সহ এসব বিষয় রক্তে গ্লুকোজের উচ্চ মাত্রার লক্ষণ নির্দেশ করে। ১০. পিপাসা: প্রস্রাবের মাধ্যমে তরল নির্মূলের লক্ষ্যে অতিরিক্ত চিনি পরিশোধন ও শোষণের লক্ষ্যে কিডনির অত্যধিক কাজ পিপাসার সৃষ্টি করে।

১১. ক্ষত নিরাময়ে ধীর গতি: কাটা বা ক্ষত নিরাময়ের ক্ষেত্রে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি সময় লাগলে বুঝতে হবে আপনি উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন।

১২. সর্বক্ষণ ক্ষুধা: হরমোন ইনক্রেটিনের মাত্রা হ্রাস, যা খাওয়ার পর লিভার থেকে শর্করার প্রবাহ হ্রাস করে, তা সার্বক্ষণিক ক্ষুধা সৃষ্টি করে। রক্তে শর্করার মাত্রা পুনরায় বৃদ্ধির পন্থা হিসেবে খাওয়ার পর পরই আবার ক্ষুধা পেতে পারে।

১৩. সারাক্ষণ ক্লান্ত বা চরম ক্লান্তি: আপনার থাইরয়েড মাত্রা যদি কম হয় তাহলে আপনি ক্লান্তি, ঘুম ভাব ও বিপর্যস্ত বোধ করবেন। সংক্রমণের সাথে লড়াই করার জন্য তা শক্তি গ্রহণ করে যার ফলে দেখা দেয় সারাক্ষণ ক্লান্তি ও রক্তে উচ্চ শর্করার মাত্রা।

১৪. ত্বকে পরিবর্তন: ত্বক বিবর্ণ হওয়া, বৃদ্ধি, হাত ও ঘাড়ের চামড়া কালো হওয়া বা মোটা হয়ে যাওয়া এরই লক্ষণ।

১৫. অস্বস্তিবোধ ও অবশতা: স্নায়ুর ক্ষতি বা স্নায়ু রোগ যা রক্তে শর্করা বৃদ্ধির কারণে ঘটে তা শরীরের কোনো কোনো অংশে অস্বস্তি বা অবশতার সৃষ্টি করতে পারে। ১৬. পুরুষত্বহীনতা: চিকিৎসা না করা হলে এ সমস্যা রক্তনালি ও স্নায়ুর ক্ষতি করতে পারে যা পুরুষত্বহীনতা ঘটায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]