চুলপড়া রোধে বেশ কার্যকরী পেয়ারা পাতা, জানুন যেভাবে ব্যবহার করবেন ।

চুলপড়া রোধে বেশ কার্যকরী পেয়ারা পাতা, জানুন যেভাবে ব্যবহার করবেন ।

চুলপড়া সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে সবাই কত কিছুই না ব্যবহার করে থাকে। অনেকেই ঝরে পড়া চুল নতুন করে গজানোর আশায় বিভিন্ন প্রসাধনী বা ওষুধ ব্যবহার করেন। কিন্তু চুলপড়া ঠেকাতে পেয়ারা পাতা বেশ কার্যকরী বলে জানিয়েছেন একদল বিজ্ঞানী। চুল পড়া রোধে পেয়ারা পাতার ব্যবহার সবচেয়ে কার্যকরী এবং প্রাকৃতিক উপায় বলে বর্ণনা করেছেন তারা। পেয়ারা পাতা নিয়মিত ব্যবহারের ফলে মাথার চুল ঝরে পড়া রোধ হয় এবং চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। পেয়ারা পাতায় রয়েছে প্রচুর ভিটামিন, যা স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য খুবই উপকারি। পেয়ারা পাতা অবশ্যই মাথার চুল ঝরে পড়া রোধ করবে। সেইসঙ্গে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে। এটি চুলের

সংযুক্তিস্থল অর্থাৎ গ্রন্থিকোষ ও শিখড়কে অনেক শক্ত করে। ব্যবহার পদ্ধতি কয়েকটি পেয়ারা পাতা পরিষ্কার পানিতে ২০ মিনিট সেদ্ধ করার পর এর সঙ্গে ঠাণ্ডা পানির মিশ্রণ দিতে হবে। এরপর তা মাথার স্ক্যাল্পে দিয়ে এক ঘণ্টা পর পরিষ্কার করতে হবে। ভালো ফল পাওয়ার জন্য রাতে ঘুমানোর আগে এই পদ্ধতিটি করা সবচেয়ে ভালো। যে ১৫ টি খাবার মাত্র এক মাসেই বাড়িয়ে দিবে আপনার উচ্চতা। বিজ্ঞান বলে, ১৮ বছর পর আর মানুষ লম্বা হয় না। কিন্তু মানব দেহ জীবনভরই উচ্চতা বাড়ানোর হরমোন নিঃসরণ করে থাকে। এই হরমোনই উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করে। পিটুইটারি গ্রন্থি থেকে এ হরমোন নিঃসরিত হয়। বলা হয়ে থাকে, কেউ যদি নিয়মিত একটি সুস্থ ও সক্রিয়

জীবনযাপন করতে পারে তবে তার উচ্চতা বাড়ানো সম্ভব। শরীর চর্চা, স্বাস্থ্যকর খাবার উচ্চতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এমন বিশেষ কিছু কিছু খাবার আছে, যেগুলো উচ্চতা বাড়াতে সহায়ক। শিম:শিমে আছে প্রচুর ভিটামিন ও প্রোটিন। যা আপনার উচ্চতা বাড়াতে খুব কার্যকরি। শিমে থাকা খনিজ উপাদান টিস্যু ও মাংশপেশি গঠনে কাজ করে। এটি স্বাভাবিক ভাবে উচ্চতা বাড়ায়। ডাল বা মটরশুটি জাতীয় খাবার:এ জাতীয় খাবার ভিটামিন ও খনিজ পুষ্টিতে সমৃদ্ধ। যা উচ্চতা বাড়ায়। এ ছাড়া মটরদানা জাতীয় খাবারে কয়েকটি উচ্চতা বৃদ্ধির হরমোনও আছে। ব্রকলি: এতে আছে উচ্চ হারে ভিটামিন সি, আশঁ এবং আয়রন। এটি দেহের কার্যক্রম ঠিক রাখতে

এবং দৈনিক বৃদ্ধির জন্য দায়ী হরমোন এর উদ্দিপনা বাড়াতে সহায়ক। শালগম: শালগমে আছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন, খনিজ, পুষ্টি এবং খাদ্য আশঁ। এটি আমাদের দেহের বৃদ্ধির জন্য দায়ী হরমোন নিয়ন্ত্রন করে। গরুর দুধ: গরুর দুধে আছে প্রচুর ক্যালসিয়াম। ক্যালসিয়াম হাড় শক্তিশালী করনে কাজ করে। গরুর দুধে থাকা ভিটামিন এ দেহের ক্যালসিয়াম সংরক্ষনেও কাজ করে। মাল্টা, পেপেঁ, আম, প্যাপসন: সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করে। এটি উচ্চতা বাড়ানোর সহায়ক উপাদানগুলোর একটি। মাল্টা, পেপেঁ, আম ও প্যাপসন ফলে আছে ভিটামিন এ, পটাশিয়াম আশঁ এবং ফলেট। এ সবগুলো উপাদান হাড়ের বৃদ্ধি ও উচ্চতা বৃদ্ধিতেও কাজ করে। তালের গুড়:খালি পেটে

তালের গুড় খেলে অনেক ভালো ফল পাওয়া যায়। দুধের সঙ্গে তালের গুড় মিশিয়ে খালি পেটে খেলে দুধের কার্যকারিতা ১০ গুন বৃদ্ধি পায়। এ মিশ্রনটি খালি পেটে খেলে সবগুলো পুষ্টি উপাদান শুষে নিতে পারবে আপনাদের দেহ। কালো তিল, কাজু বাদাম, অশ্বগন্ধা ও দুধ:অশ্বগন্থা হরমোন নিঃসরণে ভূমিকা রাখে। এই কারণে এটি। উচ্চতা বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে। এটি হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ও ঘনত্ব বাড়াতেও কার্যকর। কালো তিলে আছে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এটি ক্যালসিয়ামেরও ভালো উৎস। এটি হাড় ও স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সহায়তা করে। কাজু বাদামে আছে প্রচুর ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও পটাসিয়াম, যেগুলো হাড়ের বৃদ্ধিতে কাজ করে। এই সকল উপাদান দুধের সঙ্গে

মিলিয়ে খেলে উচ্চতা বাড়ায়। প্রতিদিন রাতে সকল উপাদান দুধের সাথে মিলিয়ে খেলে উচ্চতা বাড়বে। সয়াবিন: সয়াবিনে যে প্রোটিন থাকে তা হাড় এবং টিস্যুর ঘনত্ব বাড়ায়। এটি মানুষের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য জরুরি। প্রতিদিন অন্তত ৫০০ গ্রাম সয়াবিন খেলে আপনার হাড় ভালো থাকবে। বাদাম: বাদাম উচ্চ পুষ্টি গুণে সমৃদ্ধ। এতে যে ভিটামিন খনিজ ও অ্যামাইনো এসিড থাকে তা দেহের টিস্যু মেরামত ও মাংশপেশি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। ফলে উচ্চতাও বাড়ে। সবুজ পাতা বহুল শাক সবজি: সবুজ পাতা বহুল শাক সবজি আমাদের অনেক উপকারে আসে। এতে রয়েছে প্রচুর খাদ্য আশঁ, ভিটামিন ও খনিজ উপাদান। এটি স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সহায়তা করে। এ ছাড়া গ্রোথ হরমোন নিঃসরনে উদ্দিপনাও যোগায়। গাজর:গাজর ভিটামিন এ এবং সি সমৃদ্ধ। এটি হাড়ের ক্যালসিয়াম সংরক্ষণ ও হাড়ের বৃদ্ধিতে এটি কাজ করে। প্রতিদিন কম পক্ষে ৩ টি করে গাজর খেলে দেহের উচ্চতা বাড়ে। পূর্ন শস্য জাতীয় খাদ্য:আপনি যা কিছুই খাবেন তার কার্যকারিতা এ পূর্ন শস্য জাতীয় খাদ্য বাড়িয়ে দিবে। এতে আছে ক্যালসিয়াম ও ক্যালরি। যা স্বাস্থ্যর জন্য খুবই দরকার। ডিম: উচ্চতা বাড়াতে ডিম সব থেকে জনপ্রিয় খাদ্য। এতে থাকা প্রোটিন উচ্চতা বৃদ্ধিতে কাজ করে। কুমড়োর বীজ: কুমড়োর বীজে থাকা অ্যামিনো এসিড ও ক্যালসিয়াম উচ্চতা বৃদ্ধিতে কাজ করে থাকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme