সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা বাড়ানোর ৭ উপায় ।

সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা বাড়ানোর ৭ উপায় ।

এস এম গল্প ইকবাল : যে দম্পতির সন্তান নেই তারাই ভালো জানেন যে, সন্তান না থাকার দুঃখ কাকে বলে। এসব দম্পতি একটা সন্তান পেতে কত কিছুই না করে, তবুও তাদের ঘর আলোকিত করে একটা সন্তান আসে না। একারণে পুরুষতান্ত্রিক সমাজে সবচেয়ে বেশি অপবাদ শুনতে হয় নারীদেরকে। গর্ভধারণের জন্য কুসংস্কারের পথে হাঁটলে হবে না, বরং নিজেদের শরীরকে উর্বর করতে হবে। কিছু সহজ পদক্ষেপ অনুসরণ করে নারীরা ফার্টিলিটি বা উর্বরতা বা সন্তান জন্মদানের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারেন। এখানে নারীদের উর্বরতা বাড়ানোর ৭ উপায় উল্লেখ করা হলো। * ফার্টিলিটি ডায়েট মেনে চলুন আপনি কি খাচ্ছেন তার ওপর ভিত্তি করে আপনার গর্ভধারণ ক্ষমতার ওপর ইতিবাচক বা নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। প্রচুর পরিমাণে সাদা ময়দা, চিনি ও কোমল পানীয়ের মতো কার্বোহাইড্রেট খেলে গর্ভধারণের সম্ভাবনা কমে যায়। কিন্তু গোটা শস্য, শাকসবজি ও লেগিউম ভোজনে এর বিপরীত প্রভাব পড়ে। সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা হ্রাসকারী অন্যান্য খাবারের মধ্যে ট্রান্স ফ্যাট (মার্জারিন, ফ্রেঞ্চ ফ্রাইজ ও ডোনাটে থাকে), মাংস, স্কিমড বা ননীমুক্ত অথবা লো-ফ্যাট বা কম চর্বির দুগ্ধজাত খাবার উল্লেখযোগ্য। এর পরিবর্তে বিনস, বাদাম, বীজ ও ফুল-ফ্যাট মিল্ক বা প্রাকৃতিক চর্বি সরানো হয়নি এমন দুগ্ধজাত খাবার বেছে নিন।

* রিলাক্সে থাকুন গবেষণায় পাওয়া গেছে, যেসব নারী ব্যক্তিগত বা উর্বরতা-সম্পর্কিত মানসিক চাপ বা দুশ্চিন্তায় ভুগেন তাদের গর্ভধারণের ক্ষমতা অথবা গর্ভাবস্থা বজায় রাখার সম্ভাবনা হ্রাস পায়। নারীদের দুশ্চিন্তা বিলম্বিত গর্ভধারণের কারণ হতে পারে। মানসিক চাপে ভোগা নারীদের তুলনায় শান্ত নারীরা দ্রুত গর্ভধারণ করতে পারে। তাই মানসিক চাপ বা টেনশন কমাতে পারে এমন কাজে প্রতিদিন সময় দিন: যোগব্যায়াম করুন, ধ্যান করুন, আকুপাঙ্কচার করুন অথবা অন্যকোনো প্রশান্তিদায়ক কাজে যুক্ত হোন। * ফিট থাকুন অতিরিক্ত শারীরিক চর্বি কিছু হরমোন অতি উৎপাদনের কারণ হতে পারে, যা ডিম্ব নিষেকের ক্ষমতা হ্রাস করতে পারে। স্বাস্থ্যসম্মত ওজন বজায় রেখে এসব হরমোনের মাত্রা স্বাভাবিক রাখতে পারেন। কিন্তু এটা ভুলে গেলে চলবে না যে অত্যধিক ব্যায়াম অথবা শ্রমসাধ্য কাজও উর্বরতার জন্য ভালো নয়। নিজেকে ফিট রাখতে পরিমিত শরীরচর্চা করুন ও ডায়েটে মনোযোগ দিন।

* ক্যাফেইন বর্জন করুন একটি গবেষণা অনুযায়ী, যেসব নারী দুই কাপ বা এর বেশি কফি পান করেন তাদের গর্ভপাতের বাড়তি ঝুঁকি রয়েছে। তাই যদি আপনি বাচ্চা নিতে চান, তাহলে ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয় সম্পূর্ণরূপে বর্জন করাটাই সবচেয়ে ভালো। যদি আপনি সকালে কফি ছাড়া চলতে না পারেন, তাহলে ছোট এক কাপে কফি সীমিত করুন। * লুব এড়িয়ে যান যেসব দম্পতি মা-বাবা হওয়ার আশা নিয়ে বেশি বেশি সহবাসে লিপ্ত হন, তারা সম্ভবত অস্বস্তি বা ব্যথা এড়াতে লুব্রিকেন্ট বা পিচ্ছিলকারক পদার্থ ব্যবহার করেন। কিন্তু কিছু কমার্শিয়াল লুব্রিকেন্ট শুক্রাণুকে ড্যামেজ করতে পারে। অ্যাস্ট্রোগ্লাইড ও কেওয়াই জেলির মতো ওয়াটার-বেসড লুব্রিকেন্ট শুক্রাণুর গতিশীলতা ৬০ মিনিটের মধ্যে ৬০ থেকে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত দমন করতে পারে। অন্যদিকে ক্যানোলা অয়েলের এ ধরনের প্রতিক্রিয়া নেই।

* অ্যালকোহল থেকে দূরে থাকুন এমনকি অল্প পরিমাণে অ্যালকোহল পানও প্রেগন্যান্সির সম্ভাবনা হ্রাস করতে পারে। একটি গবেষণা অনুসারে, প্রতি সপ্তাহে এক থেকে পাঁচ গ্লাস অ্যালকোহল পানে গর্ভধারণের সম্ভাবনা কমে যেতে পারে। এর একটি কারণ হলো, অ্যালকোহল প্রজননতন্ত্রের হরমোনগত ভারসাম্যকে বিঘ্নিত করে। * ধূমপান বর্জন করুন ধূমপান নারী ও পুরুষ উভয়ের সন্তান জন্মদানের ক্ষমতাকে ড্যামেজ করতে পারে। পর্তুগালের গবেষকরা পেয়েছেন, ধূমপান জরায়ুর পরিবেশকে ডিম্বের জন্য প্রতিকূল করতে পারে। পুরুষদের ক্ষেত্রে ধূমপান শুক্রাণুর উৎপাদন কমাতে পারে এবং ডিএনএ ড্যামেজ করতে পারে। তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme