সর্বশেষ আপডেট
সাড়ে ৮ লাখ টাকা দিয়েও চাকরি হয়নি, কাঁদলেন প্রার্থী । গরু ছেড়ে নারীদের প্রতি বেশি যত্নবান হোনঃ মোদিকে এক নারী । যে কারণে তুহিনকে নি’র্মমভাবে হ’ত্যা করলেন বাবা । পিয়ন থেকে যেভাবে ১২০০ কোটি টাকার মালিক যুবলীগের আনিস । গার্মেন্টসে চাকরি করতে যাওয়া মেয়েটি আজ ঢাবি ছাত্রী । ধ‘র্ষ‘ণের আ ড়ালে ত‘রুণীদের ভ‘য়ংকর ফাঁদ সামনে আনলেন ওসি, ফেসবুকে ভাইরাল । ১৫ দিনে পাসপোর্ট ইস্যু না হলে কারণ জানিয়ে দিতে হবে আবেদনকারীকে । আবরার হ’ত্যা, এ ধরনের ঘটনা যুক্তরাষ্ট্রে প্রায়ই ঘটেঃ পররাষ্ট্রমন্ত্রী… যেভাবে ১৫ দিনের মধ্যে পাওয়া যাবে পাসপোর্ট,এখনি জানুন… মিতুকে নিয়ে গিয়েছিলো জিন, আবার দিয়েও গেছে ।
বিয়ের দাবিতে এবার প্রেমিকার বাড়িতে প্রেমিকের অবস্থান ।

বিয়ের দাবিতে এবার প্রেমিকার বাড়িতে প্রেমিকের অবস্থান ।

এক যুগ ধরে প্রেমের সম্পর্ক, এরপরেও প্রেমিককে বিয়ে করতে রাজি নন এক তরুণী। এর প্রতিবাদে প্রেমিকার বাড়ির সামনেই অবস্থান নিয়েছেন তরুণ। ভারতের পশ্চিমবঙ্গে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনায় এ ঘটনা ঘটেছে। ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন জানায়, নরেন্দ্রপুরের গড়িয়া নবগ্রামের বাসিন্দা বাবু মণ্ডল। প্রায় ১২ বছর ধরে একই এলাকার তরুণী দেবযানীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল তার।

কিন্তু তাদের এই সম্পর্ক মেনে নেয়নি দেবযানীর পরিবার। এরপরেও সম্পর্ক স্বাভাবিকই ছিল ওই যুগলের মধ্যে। হঠাৎ করে শেষ কিছুদিন ধরে ওই যুবককে এড়িয়ে চলতে শুরু করে দেবযানী। একাধিকবার এই বিষয়ে প্রেমিকার সঙ্গে কথা বলেন বাবু। কিন্তু কোনো কিছুতেই পুরোনো সম্পর্ক জোড়া লাগাতে রাজি হননি ওই তরুণী। দেবযানী জানিয়ে দেন, তার পক্ষে বাবুকে বিয়ে করা সম্ভব নয়। এমনকি পরিবারের পছন্দে বিয়ের জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দেবযানী।

এদিকে প্রেমিকাকে ফিরে পেতে বুধবার দেবযানীর বাড়ির সামনে অবস্থান নেন বাবু। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই যুবককে সরিয়ে দেয়। সেই সময় বাধ্য হয়ে ফিরে যান বাবু। পরে বৃহস্পতিবার সকালে ফের প্রেমিকার বাড়ির সামনে অবস্থান নেন ওই যুবক। এবারও পুলিশ তাকে সরিয়ে দেয়। কিন্তু প্রেমিকাকে ফিরে না পাওয়া পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবেন বলেই জানিয়েছেন বাবু। তবে এ বিষয়ে এখনো দেবযানী ও তার পরিবারের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আরো পড়ুন… দেড় বছর আগে প্রেমের টানে বাংলাদেশে এসেছিলেন মার্কিন নারী শ্যারন (৪১)। ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন ফরিদপুরের যুবক আশরাফ উদ্দিস সিংকুকে (২৭)। বিয়ের পর কয়েক দিন শ্যারন ফিরে যান নিজের দেশে। দীর্ঘ দিন পর সম্প্রতি আবার তিনি বাংলাদেশে এসেছেন।এবার এই দম্পত্তির বিয়ে উপলক্ষে আয়োজন করা হয় বৌভাতের।

বুধবার জেলার কানাইপুর ইউনিয়নের ঝাউখোলা গ্রামে উৎসবমুখর পরিবেশে এ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। বৌভাতে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ প্রায় দুই শতাধিক অতিথি উপস্থিত ছিলেন। জানা গেছে, দুই বছর আগে ফেসবুকে সিংকুর সঙ্গে নিউইয়র্কের বাসিন্দা ব্যাংকার শ্যারনের (৪১) পরিচয় হয়। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

সেই প্রেমের টানে ২০১৮ সালের ৫ এপ্রিল বাংলাদেশে আসেন শ্যারন। এরপর ২০ এপ্রিল ঝাউখোলা গ্রামের আলাউদ্দিন মাতুব্বরের ছেলে সিংকুকে বিয়ে করেন তিনি। বিয়ের কয়েকদিন পর শ্যারন আমেরিকায় ফিরে যান এবং সিংকু ও তার পরিবারকে কথা দিয়ে যান তিনি আবার বাংলাদেশে আসবেন।তবে বৌভাত অনুষ্ঠানে শ্যারনের কোনো আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন না।

বরের বাবা আলাউদ্দিন বলেন, বৌমা বাংলা কিছুটা বুঝতে শিখেছে। তার আচরণে মনেই হয় না সে ভিনদেশি কোনো নারী। পুত্রবধূকে ভালোবেসেই গ্রহণ করেছি। সিংকু বলেন, আমি শ্যারনকে খুব ভালোবাসি। ও আমাকে অনেক ভালোবাসে। বৌভাত হয়ে গেছে। ৮ অক্টোবর সে আমেরিকায় চলে যাবে। এরপর আমার কাগজপত্র ঠিক হলে আমিও চলে যাব আমেরিকায়। মার্কিন কনে শ্যারন বলেন, আমি বাংলাদেশকে অনেক ভালোবেসে ফেলেছি। আর ভালোবাসার প্রমাণ হিসেবেই এই বিয়ে। সিংকুর হাত ধরে আমি সারাজীবন কাটাতে চাই।

আরো পড়ুন… সিলেটের বিয়ানিবাজারের মাথিউরা ইউনিয়নে খালাকে নিয়ে উধাও হয়ে গেছেন লিটন আহমেদ (২৭) নামের এক তরুণ। লিটন মাথিউরা ইউনিয়নের পুরুষপাল গ্রামের খছরু মিয়ার ছেলে।

গত বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, লিটন যাকে নিয়ে পালিয়ে যায় সেই তরুণী লিটনের মায়ের আপন চাচাতো বোন। গত ২৭ সেপ্টেম্বর তার বিয়ের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু ২৬ সেপ্টেম্বর রাতেই গায়ে হলুদ শেষে তাকে নিয়ে উধাও হয়ে যান লিটন। ঘটনার চারদিন পেরিয়ে গেলেও উধাও হওয়া যুগলের এখনও খোঁজ মিলেনি। এ ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে জানা যায়, লিটনের মা মরিয়ম বেগম ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য। শিশু বয়সে লিটনের মায়ের বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। তখন থেকে সে তার মায়ের সাথে নানাবাড়ি থাকতো। অনেক কষ্ট করে মা লিটনসহ তার ভাইবোনদের বড় করে তোলেন। ঘটনার পর থেকে বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন তার মা মরিয়ম বেগম।

আরো জানুন…এক প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে অনৈতিক কাজের অভিযোগে মুন্সীগঞ্জের সাবেক এক ইমামকে উত্তম-মধ্যম দিয়ে পুলিশে দিয়েছে জনতা। পরে প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালতে ইমাম আর ওই নারীর অনৈতিক কাজ প্রমাণিত না হলেও ‘অনৈতিক কাজের চেষ্টা’র অভিযোগে তাদের ২০০ টাকা করে জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। গতকাল রোববার উপজেলার বাসাইল ইউনিয়নের পাথরঘাটা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার উত্তর গুয়াখোলা সরকারবাড়ি জামে মসজিদের সাবেক ইমাম মাওলানা মোশারফ হোসেনকে (২৮) গতকাল ভোরে গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রীর ঘর থেকে বের হতে দেখে তাকে আটক করে জনতা। তাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে উত্তম-মধ্যম দেয়া হয়।

পরে ইমাম আর ওই নারীকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। পুলিশ বিকেলে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে প্রত্যেককে ২০০ টাকা করে জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। সিরাজদিখান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিনাত ফৌজিতা জানান, আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অনৈতিক কাজের অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি স্থানীয় জনতা। তবে তাদের মোবাইল ফোন পরীক্ষা করে দেখা যায় একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। তাই অনৈতিক কাজের উদ্দেশ্যে নারীর ঘরে প্রবেশের চেষ্টার অভিযোগে তাদের দুজনকে ২০০ টাকা করে জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]