সর্বশেষ আপডেট
বাবরি মসজিদ ও মুসলমানদের পক্ষে লিখলেন ভারতীয় হিন্দু লেখিকা । যুক্তরাজ্যে নিজ ঘরের পাশ থেকে এক বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার । আবিষ্কৃত হলো ‘কৃত্রিম পাতা’ তৈরি করতে পারে ১০ শতাংশ বেশি জ্বালানি । আরো এক রেমিটেন্স যোদ্ধা কুয়েত প্রবাসী ভাই যেভাবে আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন পরপারে । লেবাননের গণআন্দোলনে অবৈধ প্রবাসীদের দেশে ফেরার কর্মসূচি ব্যাহত । ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের অর্থায়নে দেশে ফিরছেন গৃহকর্মী সুমি । আজ (১১ নভেম্বর) ঢাকায় আন্তর্জাতিক মুদ্রার বিনিময় মূল্য । চার্জার লাইট থেকে উদ্ধার হলো ৪ কোটি টাকার স্বর্ণবার । আরব আমিরাতের পুরুষ প্রবাসীকর্মীদের জন্য সুখবর, শুরু হল নতুন ওয়ার্ক পারমিট সুবিধা । ৩ বছরে সহজ উপায়ে কানাডা যাবে ১০ লাখ মানুষ ।
নিষিদ্ধ সময়ে ইলিশ কিনে প্রান গেলো সৌদি প্রবাসীর ।

নিষিদ্ধ সময়ে ইলিশ কিনে প্রান গেলো সৌদি প্রবাসীর ।

ঝালকাঠির রাজাপুরে নি’ষিদ্ধ সময়ে ইলিশ কিনে বাড়ি ফেরার পথে অতি উৎসাহী কিছু যুবকের তাড়া খেয়ে নালায় পড়ে বাবুল হাওলাদার (৫০) নামের এক সৌদি প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে।শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার পশ্চিম বড়ইয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নি’হত বাবুল হাওলাদার উপজেলার চর উত্তমপুর এলাকার মৃ’ত ইউসুফ হাওলাদারের ছেলে।

তিনি দীর্ঘদিন সৌদি আরবে কর্মরত থেকে গত কয়েকমাস আগে তিনি বাড়িতে ফেরেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নি’ষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে কিছু অ’সাধু জেলে বি’ষখালী নদীতে মা ইলিশ ধরে বিক্রি করছে।তাদের কাছ থেকে বাবুল হাওলাদার কিছু মাছ কিনে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ‘মা ইলিশ নি’ধন প্র’তিরোধ অভিযানে’র নামে অতি উৎসাহী একটি সং’ঘবদ্ধ চক্রের সদস্যরা তাকে তাড়া করে।

এতে ভ’য়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় পশ্চিম বড়ইয়া এলাকার ফকিরবাড়ির পশ্চিম পাশে একটি গভীর নালায় পড়ে গিয়ে তিনি নিখোঁজ হন। পরে ওই সং’ঘবদ্ধ চক্রের সদস্যরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করলে বাবুলের সঙ্গে থাকা তার ভগ্নিপতি মিরাজ তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন এবং মোবাইল ফোনে পরিবার লোকজনকে বিষয়টি জানান।

খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে এসে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় রাত সাড়ে ১০টার দিকে নালায় বাবুলের ম’রদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ রাতেই ম’রদেহ উ’দ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এ বিষয়ে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (রাজাপুর-কাঁঠালিয়া সার্কেল) মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, আমরা রাতেই ঘটনাস্থল আমরা পরিদর্শন করেছি। ম’রদেহ উ’দ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তবে মৃ’ত্যুর সঠিক কারণ জানা যায়নি। এ ঘটনায় ত’দন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রাজধানী রিয়াদ থেকে ওমরাহ বাসে মদিনা হয়ে মক্কা যাবার পথে এক ভ’য়াবহ সড়ক দু’র্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই ১১ বাংলাদেশী নি’হত হয়েছেন। ইন্না লিল্লাহে ও ইন্না ইলাইহে রাজিউন! বুধবার সন্ধ্যা ৭.৩০ এর দিকে যাত্রাপথে আকস্মিক একটি মাটি কাটার শাওয়ালের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসটির মুখোমুখি সংঘ’র্ষ হয়। সঙ্গে সঙ্গে বাসটিতে আ’গুন ধরে যায়। ঘটনাস্থলেই বাসের ৩৬ যাত্রী অ’গ্নিদ’গ্ধ হয়ে নি’হত হন। বাসের বাকি ৪ যাত্রী গু’রুতর আ’হত হন।

বাসটির ৪০ ওমরাহ হজ যাত্রীর মধ্যে ১৩ জন বাংলাদেশী হজ যাত্রী ছিলেন। তাদের মধ্যে ১০ জনের নাম সংগ্রহ করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছে জেদ্দা কনস্যুলেট।১৩ জনের মধ্যে ২ জন মদিনায় নেমে গিয়েছিলেন, বাকি ১১ জন ই ছিলেন বাসের মধ্যে। যেহুতু আহতদের মাঝে কোন বাংলাদেশী নেই,তাই ধারণা করা হচ্ছে ১১ জন ই নি’হত হয়েছেন। নি’হতদের মৃ’তদেহ নিজ দেশে বহন উপযোগী নয় বলে জানিয়েছে কর্তৃপ।

পারিবারিক স্বচ্ছলতার কারণে সৌদি আরবে এসে অমা’নবিক নি’র্যা’তনের শি’কার হয়ে মা’রা গেছেন মানিকগঞ্জের নাজমা বেগম। মৃ’ত্যুর এক মাস পার হলেও তার লা’শ দেশে নিতে পারছে না পরিবারের সদস্যরা।এ অবস্থায় লা’শটি দেশে নিয়ে প্রিয়জনের মুখটি শেষবারের মতো দেখার সুযোগ করে দিতে সৌদি-বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত ও সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন নাজমার স্বজনরা।

জানা যায়, আর্থিক সচ্ছলতা ফেরাতে স্থানীয় দালাল সিদ্দিকের মাধ্যমে প্রায় দুই লাখ টাকা দিয়ে ১০ মাস আগে সৌদি আরব পাড়ি জমান মানিকগঞ্জের নাজমা বেগম।কোম্পানি ভিসার নামে প্রায় দুই লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে দেশটিতে বাসা বাড়ির কাজ দেয় দালাল সিদ্দিক। এরপর থেকেই দিনের পর দিন নাজমার ওপর চালানো হয় শারী’রিক নি’র্যা’তন। টেলিফোনে স্বজনদের কাছে বার বার বাঁ’চার আকুতি জানালেও শেষরক্ষা হয়নি এ বাংলাদেশি নারীর।

গত ২ সেপ্টেম্বর দেশটিতে গৃহকর্তার নি’র্যা’তনে মৃ’ত্য হয় নাজমার। মৃ’ত্যুর এক মাস পার হলেও তার ম’রদেহ দেশে নিতে পারছে না পরিবারের সদস্যরা।অন্যদিকে নাজমা বেগমের লা’শটি দেশে আনতে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা রাহেলা রহমত উল্লাহ। মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ইসলামনগর গ্রামের নাজমা বেগমের নিথর ম’রদেহটি বর্তমানে সৌদি আরবের আমির হাসপাতালের হি’মঘরে পড়ে রয়েছে।

একাকী’ত্বের অবসান ঘটাতে কোটিপতি সৌদি নারীরা স্বামী খুঁজছেন। বিয়ের ক্ষেত্রে বিদেশি স্বামী এবং তাদের সন্তানদের সৌদি নাগরিকত্ব পাবার আইন সংস্কার হওয়ার পর থেকে মিলিয়ন ডলার ইনাম নিয়ে সৌদি নারীরা স্বামী খুঁজছেন। হাফিংটন পোস্ট

এদেরই একজন ৪০ বছরের হেসা যিনি বিয়ে করার ইচ্ছে ব্যক্ত করে বলেন, তার বাবা মা’রা যাওয়ার পর উত্তরাধিকার সূত্রে প্রচুর ধনসম্পদের মালিক। তিনি এমন একজন স্বামী খুঁজছেন যিনি তাকে সম্মান করবেন।

২০১২ সালে সৌদি সাময়িকী’ রোয়া এক প্রতিবেদনে জানায়, এক নারী ভাল স্বামীর খোঁজে ৫০ লাখ সৌদি রিয়াল নিয়ে অ’পেক্ষা করছেন। যিনি বিবাহিত জীবন ও দায়িত্বকে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করবেন।

২০১৪ সালে আমিরাতের একটি নিউজ সাইট জানায়, অনেক সৌদি কোটিপতি নারী টুইটারে বিয়ের আগ্রহের কথা জানান। এমন একটি পোস্টে সৌদি এক নারী জানান, তিনি তালাকপ্রাপ্তা ও নিঃসন্তান। তিনি এমন একজন স্বামী খুঁজছেন যিনি তাকে ভালবাসবেন।

উত্তরাধিকার সূত্রে তিনি এক শ মিলিয়ন রিয়াল পেয়েছেন এবং তিনি তার পারিবারিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন। তার বয়স ৩৯ বছর। ২০০৭ সালে সুন্দরী নয় এমন এক সৌদি নারী স্বামী খুঁজছিলেন। চাহিদা বলতে তিনি স্বামীর ব্যক্তিত্বকেই প্রাধান্য দেওয়ার কথা বলেন। তার সম্পদের পরিমাণ ছিল ৭০ লাখ রিয়াল।

বৈবাহিক সম্পর্ক ছাড়াই সৌদি আরবের হোটেলে একসঙ্গে থাকতে পারবে বিদেশি নারী ও পুরুষ পর্যটকরা। কট্টর ইসলামপন্থি দেশটি ভ্রমণ ভিসায় পর্যটকদের টানতে এ সুবিধা চালু করেছে। পাশাপাশি, সৌদি নারীদের জন্যেও শিথিল করা হয়েছে হোটেলে ওঠার নিয়ম।

এখন থেকে শুধু নিজের পরিচয়পত্র দেখিয়েই হোটেলের কক্ষ ভাড়া নিতে পারবেন তারা, পরিবারের কোনো পুরুষ সদস্যের অনুমতি নিতে হবে না। রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটিতে বিবাহবহিভূর্ত সম্পর্ক নিষিদ্ধ।

তবে তেলের ওপর নির্ভরতা কমাতে পর্যটনের ওপর জোর দিয়েছে দেশটি। এরই ধারাবাহিকতায় পারস্য উপসাগরীয় দেশটিতে বিদেশি পর্যটক নারী ও পুরুষ (অবিবাহিত) একসঙ্গে থাকতে পারবে।

শুক্রবার আরবি সংবাদমাধ্যম ওকাজে সৌদির পর্যটন ও জাতীয় ঐতিহ্য কমিশনের এক ঘোষণায় বলা হয়, হোটেল উঠতে সব সৌদি নাগরিককে পারিবারিক পরিচয়পত্র বা সম্পর্কের প্রমাণ দেখাতে হবে।

তবে, বিদেশিদের জন্য এ নিয়ম প্রযোজ্য নয়। সৌদিসহ সব নারীই পরিচয়পত্র দেখিয়ে হোটেলে একা একা কক্ষ ভাড়া নিতে পারবেন। এর আগে, গত সপ্তাহে ৪৯টি দেশের নাগরিকদের জন্য দরজা খুলে দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের এ দেশটি।

নতুন আদেশে বলা হয়েছে, পর্যটক নারীদের বোরকা পরার প্রয়োজন নেই, শুধু পোশাক-পরিচ্ছদে সংযত থাকলেই চলবে। সৌদির ডি ফ্যাক্টো নেতা যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ‘ভিশন ২০৩০’ নামের সংস্কার কর্মসূচির আওতায় এসব উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির সরকার।

তবে, দেশটিতে এখনো মদ্যপান নিষিদ্ধ। পাশাপাশি, আঁটসাঁট পোশাক পরে রাস্তায় বের হওয়া ও প্রকাশ্যে চুম্বন করা যাবে না। জনসম্মুখে শালীনতা ভঙ্গ করলেই গুনতে হবে জরিমানা।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme