সর্বশেষ আপডেট
হিন্দুদের ইয়োগা অনুশীলন করা হচ্ছে ভারতের মসজিদে টাঙ্গাইলে করোনা ভা’ই’রা’স আ’ত’ঙ্কে প্রবাসী স্বামীকে ছেড়ে পালাল স্ত্রী যে কারণে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় তৃতীয়স্থান পাওয়া ঢামেকের শিক্ষার্থীর আ’ত্ম’হ’ত্যা’র চেষ্টা দেহ ব্যবসায় বেশি বিবাহিত নারীরা, ফাঁস হলো গোপন তথ্য… মাহফিল থেকে ফেরার পথে আলোচিত মুফাসসির আব্দুল্লাহ আল-আমিন গ্রেফতার বুয়েটের সেই ইফতি এখন রকেট ইঞ্জিনিয়ার মানবপাচারে এমপি জড়িত, পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন ‘ভূয়া’ ঢাকায় রেললাইনে সেলফি তোলার সময় ট্রেনের ধাক্কায় কিশোর নিহত তাহসানের মত হ্যান্ডসাম হতে প্লাস্টিক সার্জারি করাচ্ছেন সৃজিত! করোনা আক্রান্ত সন্দেহে টাঙ্গাইলে প্রবাসীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ স্থানীয়দের
আবারো সৌদি আরবে নিপী’ড়নের শি’কার নারীর দেশে ফেরার আকুতি

আবারো সৌদি আরবে নিপী’ড়নের শি’কার নারীর দেশে ফেরার আকুতি

নিপী’ড়নের শি’কার হয়ে দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছেন সৌদি আরব প্রবাসী সুমা আক্তার (২২)। তিনি হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নের কাঠুরে মরম আলীর মেয়ে। গত শুক্রবার সৌদি আরব থেকে ইমো’তে কল করেন সুমা আক্তার। এ সময় তিনি তার পরিবারের কাছে সৌদি আরবে নিপী’ড়নের শি’কার হওয়ার কথা জানান। কান্নাজড়িত কণ্ঠে সুমা আক্তার বলেন, ‘আমি অনেক কষ্টে আছি।

আমারে বাচাঁও। আমারে উ’দ্ধার কর। বাড়ির ব্যাটার (পুরুষ) স্বভাব ভালা না। আমার উপর অ‘‘ত্যাচার করে। এক মাস ধইরা শরীরে জ্বর, দাঁতে ব্যথা। ডাক্তারের কাছে লইয়া যায় না। সৌদির রিয়াদ আছি। আমি আর কিছু জানিনা। আমি বাংলাদেশের মাটিতে আইতাম চাই।’ শুক্রবার পরিবারের সঙ্গে সুমার কথা হওয়ার পর আর যোগাযোগ নেই। গত নভেম্বরে সৌদি আরবে যাওয়া সুমার সঙ্গে মাত্র দুই বার পরিবারের কথা হয়।

সুমার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে দুশ্চিন্তায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন সুমার বাবা-মা। সুমার বাবা মরম আলী কালেঙ্গা বনে লাকড়ি সংগ্রহ করে বিক্রি করে সংসার চালান। তার চার মেয়ে ও দুই ছেলে। ছেলে দুটি ছোট। চার মেয়ে বিয়ের উপযুক্ত হওয়ায় তাদের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে তিনি সুমাকে সৌদি আরব পাঠান। সুমার পরিবার ও প্রতিবেশী সূত্র জানায়, উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের যাত্রাগাঁও গ্রামের

দরবেশ আলীর ছেলে কবির মিয়া (৪০) তার রিক্রুটিং এজেন্সি এ.এ ওভারসিস (লাইসেন্স নং আর এল-০৮৫১) লিমিটেডের মাধ্যমে ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময়ে সুমাকে সৌদি আরব পাঠান। সৌদি আরবে যাওয়ার পর থেকেই পরিবারে সঙ্গে সুমা আক্তারের যোগাযোগ না থাকায়, মাত্র একবার ফোন করায় গত ১২ জানুয়ারী চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিতভাবে অভিযোগ করেন মরম আলী। এরপর আরেকবার ফোন করে দেশে ফেরার আকুতি জানান সুমা। এ ব্যাপারে আজ রোববার বিকেলে চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সত্যজিত রায় দাসের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ভারতে ট্রেনিংয়ে আছেন বলে জানান ইউএনও অফিসের নাজির ।

আরো পড়ুন… সৌদি আরব আমার জীবন শেষ করে দিয়েছে, আর কেউ যেন না আসে! বাবার কষ্টের উপার্জনের টাকা দালালের হাতে তুলে দিয়েও কুলসুম এই ভেবে খুশি ছিলেন যে, তাকে বিদেশে পাঠানোর সব প্রক্রিয়া শেষ করেছেন ওই দালাল। এক বুক স্বপ্ন নিয়ে চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি বিমানবন্দরে হাজির হন কুলসুম। ওই দিন রাতের ফ্লাইটে রওনা হন সৌদি আরবের উদ্দেশে। দালালের সহযোগিতায় এই পুরো কাজটি করে দেয় ‘বেসকো ইন্টারন্যাশনাল’ নামের একটি ট্রাভেল এজেন্সি। ক্লিনিকে চিকিৎসার নামে নার্সের সাথে এসব কি করছে?

প্লীজ ভিডিওটি দেখে সাবধান হনকিন্তু সৌদি আরবের মাটিতে পা দিয়েই কুলসুমের জীবনে নেমে আসে অন্ধকার। কারণ কারখানায় কাজের কথা বলে তাকে নিয়ে যাওয়া হলেও সেখানে একটি বাসায় গৃহকর্মীর কাজ দেওয়া হয় কুলসুমকে। নিয়তিকে মেনে নিয়ে সেই বাসায় গৃহকর্মীর কাজেই যোগ দেন কুলসুম। কয়েক দিন যেতেই তার ওপর নেমে আসে নানা ধরনের অত্যাচার-নির্যাতন।দেখুন ভিডিওতেকুলসুম বেগম। গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলায়। বাবা ও বড় ভাইয়ের সঙ্গে রাজধানীর পুরান ঢাকায় বসবাস করেন।

বাবা ভাইয়ের বোঝা হয়ে সংসারে থাকতে চাননি তিনি। নিজেকে স্বাবলম্বী করতে নানা চেষ্টা করেও ব্যর্থতার কারণে হতাশ হয়ে পড়েছিলেন। ২০১৭ সালের শেষের দিকে ট্র্যাভেল এজেন্সির এক দালালের মাধ্যমে তিনি স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন স্বাবলম্বী হওয়ার।ট্রাভেল এজেন্সির দালাল কুলসুম বেগমকে বোঝান, বিনা খরচে সৌদি আরবে গিয়ে সেখাকার কারখানায় কাজ করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন তিনি। বিনা খরচে বলা হলেও সৌদি আরবের পাঠানোর আগেই নানা অজুহাতে কয়েক হাজার টাকা হাতিয়ে নেন ওই দালাল।

স্কুল ফাঁকি দিয়ে পার্কে গিয়ে নির্লজ্জভাবে কি করছে ছাত্র-ছাত্রীরা দেখুন ভিডিওতে সব কিছু মুখ বুঝে সহ্য করেও কুলসুম তার কাজ চালিয়ে যান। পরদেশ, ভিন্ন পরিবেশ ও আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাওয়ানো এবং একই সঙ্গে গৃহকর্তা ও গৃহকর্তীর নির্যাতনে শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন কুলসুম। তবুও চলছিল মেনে নেওয়ার লড়াই। কিন্তু এত কিছুর পরেও যখন মাস শেষে তার বেতনের টাকাও সময় মতো পাচ্ছিলেন না, তখনই কুলসুম সিদ্ধান্ত নেন, আর ভিনদেশে থাকবেন না।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme