সর্বশেষ আপডেট
বাবরি মসজিদ ও মুসলমানদের পক্ষে লিখলেন ভারতীয় হিন্দু লেখিকা । যুক্তরাজ্যে নিজ ঘরের পাশ থেকে এক বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার । আবিষ্কৃত হলো ‘কৃত্রিম পাতা’ তৈরি করতে পারে ১০ শতাংশ বেশি জ্বালানি । আরো এক রেমিটেন্স যোদ্ধা কুয়েত প্রবাসী ভাই যেভাবে আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন পরপারে । লেবাননের গণআন্দোলনে অবৈধ প্রবাসীদের দেশে ফেরার কর্মসূচি ব্যাহত । ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের অর্থায়নে দেশে ফিরছেন গৃহকর্মী সুমি । আজ (১১ নভেম্বর) ঢাকায় আন্তর্জাতিক মুদ্রার বিনিময় মূল্য । চার্জার লাইট থেকে উদ্ধার হলো ৪ কোটি টাকার স্বর্ণবার । আরব আমিরাতের পুরুষ প্রবাসীকর্মীদের জন্য সুখবর, শুরু হল নতুন ওয়ার্ক পারমিট সুবিধা । ৩ বছরে সহজ উপায়ে কানাডা যাবে ১০ লাখ মানুষ ।
গাছে গাছে মহান আল্লাহ তায়ালার জিকির

গাছে গাছে মহান আল্লাহ তায়ালার জিকির

রংপুরের পীরগাছা সড়কে দুই পাশজুড়ে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি গাছ। সবুজের সমারোহে ভরা এই সড়কে চলার পথে একটু ব্যতিক্রম সৈয়দপুর বাজারটি। এই বাজারের কাছ থেকে সড়কের দুই পাশের গাছে গাছে শোভা পাচ্ছে আল্লাহ তায়ালার জিকির।

প্রায় দুই কিলোমিটার পর্যন্ত অন্তত সহস্রাধিক গাছে মহান সৃষ্টিকর্তার গুণবাচক জিকির সম্বলিত কাগজ সাঁটানো রয়েছে। সাদা কাগজে কালো কালিতে লেখা গাছে পেরেক ঠুকে সাঁটানো রয়েছে- বিসমিল্লাহ, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, সুবহানাল্লাহ, আল্লাহু আকবার, আলহামদুলিল্লাহ ও ফিআমানিল্লাহসহ আল্লাহতায়ালার গুণবাচক একাধিক নাম।

সৈয়দপুর বাজার থেকে কদমতলা মোড় পর্যন্ত যেন গাছে গাছে চলছে আল্লাহতায়ালার মহিমাময় নামের জিকির। যা খুব সহজেই পাথচারীর নজর কাড়ে। গাছে সাঁটানো এ ধরণের লেখা সাধারণ মানুষের নজর সহজেই কাড়ছে। আকর্ষণ বাড়িয়েছে পথচারীদেরও। আর ধর্মপ্রাণ মানুষজন খুশি এমন মহৎ ও ব্যতিক্রমি উদ্যোগের।

স্থানীয়দের দাবি রংপুর-পীরগাছা ও রংপুর-সুন্দরগঞ্জ সড়কটির সৈয়দপুর বাজার থেকে কদমতলা মোড় পর্যন্ত প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটত। আল্লাহতায়ালা জিকির সম্বলিত এসব পোস্টার সাঁটানোর পর থেকে এখন এই সড়কে দুর্ঘটনার হিড়িক নেই। স্থানীয় সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম জুয়েল জানান, সৈয়দপুর বাজার হতে কদমতলা মোড় পর্যন্ত আগে প্রায়ই ছোট-বড় দুর্ঘটনা ঘটত।

তবে গত তিন মাস ধরে কোনো সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেনি। এ কারণে অনেকে মনে করেন, আল্লাহতায়ালার জিকির সম্বলিত পোস্টারগুলো গাছে লাগানোর পর থেকে দুর্ঘটনা কমে এসেছে।’

আরো পড়ুন… আল্লাহর একান্ত মেহেরবানীতে হৃদয় দিয়ে আপ্রাণ প্রচেষ্টার পর মানুষ পবিত্র কুরআন মুখস্ত করতে সক্ষম হয়। বিশ্বে এমন অনেক নজির আছে যারা চেষ্টা করেও কুরআন মুখস্ত করতে পারে না। কিন্তু মানসিক প্রতিবন্ধি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি এর ব্যতিক্রম। তিনি পুরো পবিত্র কুরআন মুখস্ত করেছেন।

৩১ বছর বয়সের যুবক আল-কারনি মানসিক প্রতিবন্ধি। মানসিকভাবে অক্ষম ব্যক্তি। অসুস্থ হওয়া সত্ত্বেও পুরো কুরআন মুখস্ত করে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। চিকিৎসা বিজ্ঞানের মাধ্যমে তার পরিবার জানতে পারে যে, মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি লিখতে ও পড়তে পারবে না।

এ কারণে তাকে স্কুলেই ভর্তি করানো হয়নি। হাসপাতলেই কেটেছে তার জীবনের অধিকাংশ সময় কেটেছে।কোনো মাদ্রাসায় ভর্তি না হয়েই প্রাতিষ্ঠানিক পড়ালেখার ক্ষমতা ছাড়াই হৃদয় দিয়ে পুরো মুখস্ত করে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

সৌদি বংশোদ্ভূত মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি শুধু মানসিক অসুস্থই নয়, বরং তার শারীরিক অঙ্গপ্রত্যঙ্গেও রয়েছে অসঙ্গতি। তার ভাই মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানান, ‘কারনি শারীরিক সমস্যা নিয়ে এভাবেই জন্ম গ্রহণ করে। জন্মের পর তার একটি মুত্রনালী নষ্ট হয়ে গেছে।

একটি মাত্র পেলভিস নিয়ে সে বেঁচে আছে। এখনও সে রিয়াদের কিং ফাহাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। মানসিক অসুস্থ মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি যেমন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছাড়াই পবিত্র কুরআন মুখস্ত করতে সক্ষম। তাই মানসিক অসুস্থ সব সন্তানকে কুরআনের শিক্ষা দেয়ার চেষ্টা করা যেতে পারে। আল্লাহ তাআলা কুরআনের প্রভাবে মানসিক ও শারীরিক অসুস্থ ব্যক্তিকে সুস্থও করে দিতে পারেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]