মন্ত্রিত্ব পেলে কি মেনন এমন কথা বলতেনঃ ওবায়দুল কাদের ।

মন্ত্রিত্ব পেলে কি মেনন এমন কথা বলতেনঃ ওবায়দুল কাদের ।

‘আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি গত নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি’ ১৪ দলের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, মন্ত্রিত্ব পেলে মেনন নির্বাচন নিয়ে কি একথা বলতেন?রোববার সচিবালয়ে সমসাময়িক রাজনৈতিক ইস্যু নিয়ে সাংবাদিকদের স’ঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

‘একাদশ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ভোটে নির্বাচিত হননি’ সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এই ম’ন্তব্যের বিষয়ে জি’জ্ঞাসা করা হলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, উনি এতদিন পর একথা বলছেন কেন? তিনি মন্ত্রী হলে কি এমন কথা বলতেন? মন্ত্রিত্ব পেলে কি নির্বাচন নিয়ে প্র’শ্ন তুলতেন? বিরূপ মন্ত’ব্য করতেন?

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ১৪ দলের বৈঠকে মেননকে এ বিষয়ে জি’জ্ঞাসা করা হবে। তার ম’ন্তব্যের ব্যাখ্যা চাওয়া হবে। প্রসঙ্গত, শনিবার বরিশালে এক অনুষ্ঠানে রাশেদ খান মেনন বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটাররা ভোট দেয়নি। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪দলীয় জোটের অন্যতম নেতার মুখে এমন মন্তব্যের পর রাজনৈতিক অ’ঙ্গনে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার তৈরি হয়েছে।

অ’শ্বিনী কুমার টাউন হলে শনিবার ওয়ার্কার্স পার্টির বরিশাল জেলা কমিটির সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় রাশেদ খান মেনন বলেন, আমি ও প্রধানমন্ত্রীসহ যারা নির্বাচিত হয়েছি আমাদেরকে দেশের কোনো জনগণ ভোট দেয় নাই। কারণ ভোটাররা কেউ ভো’টকে’ন্দ্রে আসতে পারে নাই।

আরো জানুন… দেশের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১ তম জাতীয় সম্মেলন আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। তিন বছর পর পর আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন হয়।আওয়ামী লীগের সর্বশেষ জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৬ সালের ২২ ও ২৩ অক্টোবর। সে হিসাবে আগামী অক্টোবরের ২৩ তারিখে শেষ হচ্ছে ত্রিবার্ষিক কমিটির মেয়াদ।

ইতোমধ্যেই সম্মেলনের সব প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। আগামী সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক পদে পরিবর্তন আসবে কি না- এ নিয়েও শুরু হয়েছে জোর আলোচনা। বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ পদে আরেক দফা থাকছেন, না নতুন মুখ আসছে- তা নিয়েও দলের ভেতরে জোর আলোচনা শুরু হয়েছে।তবে দলের সভাপতি পদ নিয়ে কোনো আলোচনা নেই। এটা নিশ্চিত সভাপতি হিসেবে দলের বর্তমান সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই থাকছেন।

টানা আট বার তিনি এ পদে থেকে দলকে সফলভাবে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ২০ তম জাতীয় সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন ওবায়দুল কাদের। এর আগে এ পদে ছিলেন সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। জীবনের শেষ দিকে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে এ পদে অন্যজনকে বিবেচনা করা হয়। অনেকেই আলোচনায় থাকলেও শেষ পর্যন্ত ওবায়দুল কাদেরকে বেছে নেন সভানেত্রী।

সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন। চলতি বছরের মার্চেই ওবায়দুল কাদেরও স্টোক করলে বাঁচার সম্ভাবনাই ছিল না। শেষ পর্যন্ত সিঙ্গাপুরের ১ মাস চিকিৎসাধীন থাকার পর সুস্থ হন তিনি। গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় আগামী সম্মেলনে তিনি সাধারণ সম্পাদক পদে আসতে পারবেন কিনা এ নিয়ে সন্দিহান দলের শীর্ষ অনেক নেতা।

এ বিষয়ে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভিকে দেয়া এক মন্তব্যে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরুল্লাহ বলেন, শেখ হাসিনা এখন থেকেই দলের জন্য প্লানিং শুরু করেছেন, আগামী পাঁচ-দশ বছর পর কারা দলের নেতৃত্ব দেবে। এভাবে তিনি যুগোপযোগী সিদ্ধান্তে তিনি যাবেন।তিনি বলেন, নতুনদের জায়গা করে দিতে তো পুরনোদের কাউকে কাউকে জায়গা ছেড়ে দিতে হবে। এটা শিউরলি হবে।

সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে তিনি বলেন, সেক্রেটারি হিসেবে আমাদের ওবায়দুল কাদের সাহেব আছেন। গত মার্চে তিনি মারাত্মক হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হন। প্রধানমন্ত্রী যদি মনে করেন তার জন্য এ দায়িত্ব চাপ হবে তাহলে নতুন নেতৃত্ব আসবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব সময় মানবিক দিক বিবেচনা করেন। কারো উপর চাপ হোক তা তিনি কখনোই চান না। তাই সাধারণ সম্পাদক পদে পরিবর্তন আসতে পারে।

আদর্শে বিশ্বাসী নয় কিন্তু সুবিধা নেয়ার জন্য দলে অনুপ্রবেশ করেছেন এরকম লোকদের কমিটিতে জায়গা হবে না বলেও জানালেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর আরেক সদস্য কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক।তিনি বলেন, যারা সুবিধাবাদী, অনুপ্রবেশকারী, কারো লেজুরবৃত্তি করে বা অন্য দলের আদর্শ ছেড়ে এখানে এসেছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা অবশ্যই কঠোর হবো। একই ধরনের কথা বর্তমান সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও বলেছেন। তিনি জানান, দলে শুদ্ধি অভিযান চলছে। বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীরা কোনোভাবেই কমিটিতে স্থান পাবে না। এমনকি দলেও তাদের জায়গা হবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]