সর্বশেষ আপডেট
মেডিকেলে চান্স পেলো রাজমিস্ত্রির মেয়ে জাকিয়া সুলতানা কলেজে না গিয়েও এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয় নেহা । বাংলাদেশি কর্মীদের প্রশংসা করে যা বললেন মালয়েশিয়ার পুলিশপ্রধান । বাড়ির নিচতলায় গাড়ী চালকদের জন্য থাকা ও নামাজের ব্যবস্থা করতে হবেঃ প্রধানমন্ত্রী । প্রেমের টানে বাংলাদেশে ভারতীয় গৃহবধূ, সীমান্তে উত্তে’জনা । গোয়ালঘরে শিকলে বাঁধা বৃদ্ধা মা বললেন, মোর পোলারা ভালো । সাড়ে ৮ লাখ টাকা দিয়েও চাকরি হয়নি, কাঁদলেন প্রার্থী । গরু ছেড়ে নারীদের প্রতি বেশি যত্নবান হোনঃ মোদিকে এক নারী । যে কারণে তুহিনকে নি’র্মমভাবে হ’ত্যা করলেন বাবা । পিয়ন থেকে যেভাবে ১২০০ কোটি টাকার মালিক যুবলীগের আনিস ।
আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় যা করে সময় কাটাত সম্রাট ।

আত্মগোপনে থাকা অবস্থায় যা করে সময় কাটাত সম্রাট ।

ক্যাসিনো-কা’ণ্ডে নাম আসার পর আত্মগো’পনে চলে যান যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট। আশ্রয় নেন কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের সীমান্তবর্তী কুঞ্জশ্রীপুর গ্রামের জামায়াত নেতা মনির চৌধুরীর বাড়িতে। তিনি আবার ফেনী পৌরসভার মেয়র আলাউদ্দিনের বোনের জামাই। আলাউদ্দিন ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের নেতা। শনিবার দিবাগত রাতে সম্রাট’কে আ’ট’কের সময় মনির ও আলাউদ্দিন দুজনই উপস্থিত ছিলেন।

রবিবার সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজে’লার আলকড়া ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রামের প্রায় নির্জন এলাকায় মনির চৌধুরীর বাড়ি। এলাকায় চৌধুরী বাড়ি বলে পরিচিত এটি। মৃ’ত সোনা মিয়া চৌধুরীর ছেলে মনির চৌধুরী বাড়ির মালিক। বাড়িতে চারটি পরিবার রয়েছে। তবে কেউ বাড়িতে থাকেন না। সবাই পরিবার নিয়ে ফেনী শহরে থাকেন।

আর জামায়াত নেতা মনির চৌধুরীর পরিবার ঢাকায় থাকেন, তিনি থাকেন ফেনীতে। স্টার লাইন পরিবহনের সঙ্গে যুক্ত এবং ব্রিক ফিল্ড রয়েছে ফেনীতে। স্থানীয়দের ভাষ্য, শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে র‌্যা’বের কয়েকটি গাড়ি মনির চৌধুরীর বাড়ির সামনে আসে। প্রায় অর্ধশতাধিক কালো পোশাকধারী র‌্যা’ব সদস্য বাড়িটি ঘিরে ফেলেন। রাত ১১টার দিকে দোতলা বাড়িটির একটি কক্ষ থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে বের করে আনেন র‌্যা’বের সদস্যরা।

পরে দিবাগত রাত সোয়া ১টার দিকে দুজনকে নিয়ে ওই বাড়ি ত্যাগ করে র‌্যা’বের গাড়ি। সম্রাট ও আরমানকে আ’ট’কের সময় জামায়াত নেতা মনির চৌধুরী ও তার শ্যালক ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের মেয়র আলাউদ্দিনও উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কিছুদিন ধরে ওই বাড়ির ভেতরে বাতি জ¦ালানো থাকলেও দরজার বাইরে তালা মে’রে রাখা হতো। দুজন পুরুষ সন্ধ্যার আগে পুকুরপাড়ে গিয়ে বসে থাকতেন। মানুষের সামনে তেমন আসতেন না তারা।

র‌্যা’বের হাতে আ’ট’কের পর তারা জানতে পারেন এই দুজনই সম্রাট ও আরমান। সীমান্তের কাছাকাছি অবস্থিত হওয়ায় ভারতে পালিয়ে যেতে তারা ওই জামায়াত নেতার বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিলেন বলে স্থানীয়দের ধারণা।মনির চৌধুরীর ভাইয়ের মেয়ে সামিয়া জান্নাত চৌধুরী ও তার মা নূর নাহার জানান, মনির চৌধুরী বাড়িতে থাকেন না। তিনি ফেনীতে থাকেন, আর স্ত্রী’ ও ছেলেমেয়ে ঢাকায় থাকেন। বাড়িতে শুধু মানসিকভাবে অ’সুস্থ মাকে নিয়ে বিবাহিত বোন স্বামীসহ থাকেন।

বাড়ি এলে তারা যে ঘরে থাকেন ওই ঘরের দরজার বাইরে সব সময় তালা লাগানো দেখা যেত। কিন্তু ভেতরে জ¦ালিয়ে রাখা লাইটের আলো চোখে পড়ত। আর সন্ধ্যার আগে দুজন মানুষ পুকুরপাড়ে গিয়ে বসে থাকতেন। মাঝেমধ্যে বড়শিতে মাছ ধরতেন।তারা আরও জানান, বাড়িতে সম্রাট আত্মগো’পন করার পর থেকে জামায়াত নেতা মনির চৌধুরী ঘন ঘন বাড়ি আসতেন। তার সঙ্গে শ্যালক ফেনীর পৌর মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আলাউদ্দিনও আসতেন।

আদর-সমাদর দেখে সামিয়া ও তার মা বুঝতেন বাড়িতে থাকা ওই দুই পুরুষ তাদের মেহমান।সামিয়া জান্নাত চৌধুরী বলেন, শনিবার দিনগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে তারা টেলিভিশন দেখছেন। হঠাৎ কয়েক গাড়ি র‌্যা’বের সদস্য তাদের বাড়িতে প্রবেশ করে। এরপর আরও কয়েক গাড়ি র‌্যা’ব এসে বাড়িতে অবস্থান নেয়। কয়েকজন র‌্যা’ব সদস্য তাদের ঘরে প্রবেশ করে খোঁজখবর নেন। কিছু সময় পর র‌্যা’বের সদস্যরা সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে ভবনের দোতলা থেকে নামিয়ে নিয়ে যায়।

গ্রামের বাসিন্দা সাদেক হোসেন এবং মফিজুর রহমান বলেন, চৌধুরী বাড়িতে কোনো পরিবার থাকেন না। সবাই পরিবার নিয়ে শহরে থাকেন। মনির চৌধুরীর দুটি ঘর। একটিতে মনির চৌধুরী বাড়ি এলে থাকেন। অন্যটিতে তার মা আর বোন স্বামীকে নিয়ে থাকেন। গত কয়েকদিন থেকে আশপাশ দিয়ে যাওয়া আসার সময় দুইজন ব্যক্তিকে দেখা যেত। পুকুরে বড়শি দিয়ে মাছ ধরতেন।আবদুল কুদ্দুস নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, মনির চৌধুরী ছাত্র শিবিরের নেতা ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জ’ড়িত হন। তিনি ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের মেয়র হাজি আলাউদ্দিনের বোনকে বিয়ে করেন। ফেনীতে থেকে ব্যবসা বাণিজ্য করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৩-১৪ সালে মনির চৌধুরীর ভাতিজা নাজিম চট্টগ্রামে নাশতকামূলক কর্মকা’ণ্ড চালাতে গিয়ে পু’লিশের হাতে গ্রে’প্তার হন। এ ছাড়াও তার আরেক ভাতিজা তসলিম কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রামের চৌধুরী বাড়িতে বিপুল পরিমানের ককলেটসহ আ’ট’ক হন। পরবর্তীতে ফেনীর মেয়রের মাধ্যমে পু’লিশ থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে আসেন।চৌদ্দগ্রাম আলকড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক হেলাল বলেন, ‘শনিবার দিনগত রাত ১১টার সময় শুনেছি র‌্যা’ব সদস্যরা চৌধুরী বাড়ি ঘিরে ফেলে। সকালে জানতে পারি ওই বাড়ি থেকে ক্যাসিনোকা’ণ্ডে জ’ড়িত ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট’কে সহযোগীসহ গ্রে’প্তার করেছে র‌্যা’ব।’ কুমিল্লা জে’লা পু’লিশ সুপার সৈয়দ নূরুল ইস’লাম বলেন, ‘শুনেছি ক্যাসিনোকা’ণ্ডে জ’ড়িত ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী ওরফে সম্রাট’কে জে’লার চৌদ্দগ্রাম থেকে গ্রে’প্তার করে র‌্যা’ব। এর বেশি কিছু বলতে পারবো না।’

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]