সর্বশেষ আপডেট
এখনো পাওয়া যায় নি ৯ পারা কোরআনের হাফেজ তানভীরকে, শেয়ার করে খুঁজে পেতে সাহায্য করুন

এখনো পাওয়া যায় নি ৯ পারা কোরআনের হাফেজ তানভীরকে, শেয়ার করে খুঁজে পেতে সাহায্য করুন

রাজধানীর নবাবগঞ্জের ডুরি আঙ্গুল হাফেজিয়া মাদ্রাসার ৯ পারা কোরআনে হাফেজ তানভীর হোসেন (১০) নামে এক শিক্ষার্থী নি’খোঁজ রয়েছেন। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৪টা থেকে ছেলেটিকে পাওয়া যাচ্ছে না। কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি হাফেজ তানভীরের সন্ধান পেয়ে থাকলে তার পরিবারের কাছে পৌঁছে দেওয়ার আহবান জানানো হয়েছে। নি’খোঁজ তানভীরের গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের কচুয়া উপজে’লার রহিমানগর গ্রামে।

তার বাবার নাম তওহীদুর রহমান। সে ঢাকা নবাবগঞ্জের ডুরি আঙ্গুল হাফেজিয়া মাদ্রাসার আবাসিক শিক্ষার্থী। পরিবার সূত্র জানায়, গতকাল শুক্রবার দুপুরে সে তার মাদ্রাসা থেকে আজিমপুরের ছোট ভাট মসজিদ এলাকায় খালার বাসায় বেড়াতে আসে। জুমার নামাজের পর সবার খাওয়া-দাওয়ার সময় হলে সে বাহির থেকে একটু এসে বলে ঘর থেকে বের হয়ে যায়।

তার পরিবার জানায় এরপর থেকে আর তাকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এদিকে তানভীরকে খুঁজে না পেয়ে দিশেহারা তার পরিবার। বাবা তওহীদুর রহমানসহ পরিবারের অন্য সদস্যরাও সব যায়গায় খুঁজেছেন। কোন সহৃদয়বান ব্যক্তি তানভীরের সন্ধান পেয়ে থাকলে নিচের দেওয়া ফোন নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। তানভীরের বাবা: 01305239603, 01813533283, 01919296503।

আরো পড়ুন… আল্লাহকে গালি দিয়ে ভাইরাল সেই নারী বয়াতির ক্ষমা প্রার্থনা। মহান আল্লাহকে অ’শ্লীল ও কু’রুচিপূর্ণ ভাষায় গা’লি দেওয়া রিতা দেওয়ান তার ভু’লের জন্য করজো’ড়ে ক্ষমা চেয়েছেন। ধর্মপ্রাণ মুসলামানদের কাছে নিঃশ’র্ত ক্ষমা চেয়ে সামাজিক মাধ্যম ইউটিউবে এক ভিডিও সাক্ষাৎকার দিয়েছেন রিতা দেওয়ান। এসময় মায়ের সাথে হাতজোড় করে ক্ষমা চেয়েছে রিতা দেওয়ানের দুই মেয়ে আফরিন দেওয়ান ও নাজমিন দেওয়ান। শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) ‘গান রুপালি এইচডি’ নামক

একটি ইউটিউব চ্যানেলে রিতা দেওয়ানের ক্ষ’মা চাওয়ার ভিডিও আপলোড করা হয়। ভিডিওতে দেখা যায় উপস্থাপকের সঙ্গে রিতা দেওয়ান তার দুই মেয়েকে নিয়ে হাজির হয়েছেন। উপস্থাপনের কুশল বিনিময় প্রশ্নের জবাবে রিতা দেওয়ান তেমন ভালো নেই উল্লেখ্য করেন। কেন ভালো নেই জানতে চাইলে রিতা বলেন, ‘আমার একটা গান ইউটিউব চ্যানেলে ভাইরাল হয়ে সমস্যায় পড়ে গেছি। আমার ভুলটি ছিলো,

আসলে তো আল্লাহর সাথে কখনো পাল্লা চলে না। তার দয়ায় তার রহমতে আমি বাচ্চা ছেলে মেয়ে নিয়ে গান করে বেঁচে আছি। সেদিন যে পালাটা ছিল তাতে আমার প্রতিপক্ষ ছিল পরম। অভিনয় করতে গিয়ে তাকে আক্রমণ করতে গিয়ে আমার সৃষ্টিকর্তার দিকে চলে গেছে। এটা আমার ভুলে হয়ে গেছে’। রিতা বলেন, ‘পালা করতে গেলে সারারাত-সারাদিনব্যাপী কথা বলতে হয়। একটা কথা এদিক-সেদিক হয়ে যায়।

ভুল হয়ে যায়। তবে এ কথাটা আমার ভুল হয়ে গেছে। মুসলিম ভাই বোনদের কাছে আমি বলবো আমার ভুল হয়ে গেছে। আমাকে ক্ষমাকে করে দিবেন। আমি যেন আর কোনোদিনও ভুল না করি।ছোট মেয়ে আফরিন দেওয়ান বলেন, ‘আমি বলতে চাই- আমার মায়ের হয়ে আমি আপনাদের কাছে ক্ষমা চাই। আর আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আমার মা আর এরকম ভুল করবেন না’।

বড় মেয়ে নাজমিন দেওয়ান বলেন, ‘আসলে আমার মা বাউল গান করে। গান করতে গিয়ে অনেক শিল্পীরা অনেক ধরনের ভুল হয়। আমার মা ভুল হয়ে গেছে। আমার মায়ের হয়ে আমরা দুই বোন ক্ষমা চাচ্ছি। আমরা প্রতিশ্রিুতি দিচ্ছি না আমার মা এরকম ভুল করবে না। আপনারা আমার মায়ের জন্য না, আমাদের মুখের দিকে তাকিয়ে আমার মাকে ক্ষমা করে দিবেন’।

প্রসঙ্গ, সম্প্রতি একটি পালা গানের আসরে প্রতিপক্ষকে আ’ক্রমণ করতে গিয়ে রিতা দেওয়ান মহান আল্লাহ তাআলাকে নিয়ে চরম ধৃ’ষ্টতা, অ’শ্লীল ও কুরু’চিপূর্ণ মন্তব্য করেন। আল্লাহকে শয়তান, মুনাফিক, দুইমুখী বলেও গালি দেন। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও ভাইরাল হলে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। রিতা দেওয়ানের শাস্তিও দাবি করেন অনেকে। উল্লেখ্য,

সম্প্রতি শরিয়ত বয়াতি নামক এক বাউল শিল্পী পালা আসরে ইসলামে গান বাজনা জায়েজ বলে বক্তব্য দেন। বক্তব্যে তিনি আল্লাহ-রাসূল (সা.) ও ইসলাম নিয়ে নানান আপত্তিকর কথা বলেন। ধর্মবিরোধী বক্তব্যের প্রতিবাদে সরব হয় স্থানীয় মুসল্লিরা। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলাও হয়। পরে বিক্ষোভের মুখে তাকে গ্রেফতার করে টাঙ্গাইল পুলিশ। বর্তমানে তিনি জেল হাজতে আছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme