সর্বশেষ আপডেট
হিন্দুদের ইয়োগা অনুশীলন করা হচ্ছে ভারতের মসজিদে টাঙ্গাইলে করোনা ভা’ই’রা’স আ’ত’ঙ্কে প্রবাসী স্বামীকে ছেড়ে পালাল স্ত্রী যে কারণে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় তৃতীয়স্থান পাওয়া ঢামেকের শিক্ষার্থীর আ’ত্ম’হ’ত্যা’র চেষ্টা দেহ ব্যবসায় বেশি বিবাহিত নারীরা, ফাঁস হলো গোপন তথ্য… মাহফিল থেকে ফেরার পথে আলোচিত মুফাসসির আব্দুল্লাহ আল-আমিন গ্রেফতার বুয়েটের সেই ইফতি এখন রকেট ইঞ্জিনিয়ার মানবপাচারে এমপি জড়িত, পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন ‘ভূয়া’ ঢাকায় রেললাইনে সেলফি তোলার সময় ট্রেনের ধাক্কায় কিশোর নিহত তাহসানের মত হ্যান্ডসাম হতে প্লাস্টিক সার্জারি করাচ্ছেন সৃজিত! করোনা আক্রান্ত সন্দেহে টাঙ্গাইলে প্রবাসীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ স্থানীয়দের
এতো বিশাল জা’নাজা এর আগে কখনো দেখেনি কিশোরগঞ্জ

এতো বিশাল জা’নাজা এর আগে কখনো দেখেনি কিশোরগঞ্জ

এ এক অভূতপূর্ব দৃশ্য! ঈদে যে শোলাকিয়া ময়দান মুখরিত হয় লাখো মুসল্লির পদভারে, সেই শোলাকিয়া ময়দান এবার মহাসমুদ্রের রূপ নিলো শো’’কাহত মানুষের ভীড়ে। চোখে অশ্রু আর নিরব বেদনা নিয়ে পাঁচ লক্ষাধিক মানুষ অংশ নিলেন দেশের প্রখ্যাত আলেম কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শহীদী মসজিদের খতিব ও আল-জামিয়াতুল ইমদাদিয়ার মহাপরিচালক আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ এর নামাজে জানাজায়।

বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) দুপুর ২টায় না’’মাজে জানাজা শুরু হলেও সকাল ১০টার মধ্যেই জনসমুদ্রে পরিণত হয় ঐতিহাসিক এই ঈদগাহ ময়দান। নামাজে জানাজা শুরু হওয়া পর্যন্ত চলে এই জনস্রোত। শেষ শ্রদ্ধা আর ভালবাসা জানাতে আসা বরেণ্য এই আলেমের জানাজার
নামাজ তাই হয়ে যায় মহাসমুদ্র। এতো বড় জা’নাজা এর আগে কখনো দেখেনি কিশোরগঞ্জ। ঐতিহাসিক এই জানাজায় ফজরের নামাজের পর থেকেই সব শ্রেণিপেশার শোকাহত মানুষের ঢল নামে শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান অভিমুখে।

সকাল ১০টার দিকেই পূর্ণ হয়ে যায় সাত একর আয়তনের বিশাল ঐহিত্যবাহী মাঠটি। সকাল পৌনে ১১টায় লাশবাহী ফ্রিজিং গাড়িতে করে আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ এর লাশ শোলাকিয়া ঈদগাহ ম’’য়দানে নিয়ে যাওয়া হয়। শেষবারের মতো একপলক দেখার জন্য সেখানে আগে থেকেই লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে প্রতীক্ষায় ছিলেন লাখো মানুষ। বেলা সোয়া ১টা পর্যন্ত শ্রদ্ধাভাজন এই আলেমকে অশ্রুসিক্ত নয়নে শেষবারের মতো একনজর দেখেন লাখো মানুষ।

জানাজা শুরুর আগেই শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান ছাড়িয়ে মাঠের আশে-পাশের রাস্তা, ঈদগাহ পুকুর, শোলাকিয়া সেতু পেরিয়ে কিশোরগঞ্জ-করিমগঞ্জ সড়কে ছড়িয়ে যায় জনস্রোত। বাসাবাড়ির ছাদ, উঠান এবং মেঠাপথে পর্যন্ত জায়গা করে নিয়ে মানুষ জানাজায় অংশ নেন। নামাজে জানাজার আগে পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুমের জন্য মাগফিরাত কামনা করে দোয়া চান আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ এর ছোট ভাই আল জামিয়াতুল ইমদাদিয়ার ভাইস প্রিন্সিপাল সাব্বির হোসেন রশিদ এবং ছোট ছেলে মাওলানা আনজার শাহ তানিম।

এছাড়া দোয়া কামনা করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন, জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী কৃষিবিদ মো. মশিউর রহমান হুমায়ুন, পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার), জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান, জেলা বিএনপির সভাপতি মো. শরীফুল আলম এবং দেশের বিশিষ্ট আলেম-ওলামাগণ।

পরে আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ এর ছোট ছেলে মাওলানা আনজার শাহ তানিম এর ইমামতিতে নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।
নামাজে জানাজায় সাবেক ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মুফতি ওয়াক্কাস, কওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী, যাত্রাবাড়ি বড় মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মাহমুদুল হাসান, জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের ভারপ্রাপ্ত খতিব সৈয়দ মিজানুর রহমান,

কওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের সহ-সভাপতি মাও. সাজিদুর রহমান ও মাও. মোসলেহ উদ্দিন রাজু, মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, ময়মনসিংহ ইত্তেফাকুল উলামার সভাপতি মাও. খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী, দেওনা’র পীর অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান চৌধুরী, শোলাকিয়া ঈদগাহের বিকল্প ইমাম শোয়াইব আব্দুর রউফ প্রমুখসহ দেশের বিভিন্ন খ্যাতনামা আলেম-উলামাগণ অংশ নেন।

নামাজে জানাজা শেষে শোলাকিয়া বাগেজান্নাত কবরস্থানে মরহুমের পারিবারিক কবরের অংশে মায়ের পাশে শোক ও শ্রদ্ধায় সমাহিত করা হয় দেশবরেণ্য এই আলেমকে। এর আগে বুধবার (২৯ জানুয়ারি) দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে শেষবারের মতো প্রিয় কর্মস্থল কিশোরগঞ্জের আল-জামিয়াতুল ইমদাদিয়ায় আনা হয় আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ’র ম;র;;দেহ। তাঁকে দেখতে সেখানে ভীড় করেন হাজার হাজার মানুষ।

অভিভাবক হারানোর বেদনা বুকে নিয়ে আলেম-উলামারা ছুটেন সেখানে। চোখের জল আর কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন জামিয়ার শিক্ষক-শিক্ষার্থী। এমনভাবে তারা অভিভাবকহারা হবেন, মেনে নিতে পারছিলেন না কেউই। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে লাশবাহী ফ্রিজিং অ্যাম্বুলেন্সটি কিশোরগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। রাত পৌনে ১১টার দিকে আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ’র ম;;র;;দেহ কিশোরগঞ্জ শহরের রথখলা এলাকার বাসভবনে আনা হয়।

রাজধানীর ধানমণ্ডির শঙ্করে অবস্থিত ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার (২৯ জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ ই’’ন্তেকাল করেন। মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) ভোর থেকে তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল। কিন্তু চিকিৎসকদের সব প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে তিনি না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। মৃ’’ত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর।

তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে, দুই মেয়ে, আত্মীয়স্বজন ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ অথরিটি আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের সদস্য, বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড ‘বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া’র (বেফাক) সহ-সভাপতি এবং আল-জামিয়াতুল ইমদাদিয়া কিশোরগঞ্জ-এর মহাপরিচালক।

কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শহীদী মসজিদের খতিব আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ দীর্ঘদিন সিলেটের হজরত শাহজালাল দর্গা মসজিদের খতিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। দেশের বিভিন্ন ধর্মীয় ইস্যুতে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। তাঁর চমৎকার তিলাওয়াত, শুদ্ধ বাংলা ও সাবলীল আলোচনায় মুগ্ধ হয়েছেন দেশের কোটি তৌহিদী জনতা। দেশে-বিদেশে তাঁর অসংখ্য ছাত্র ও ভক্ত রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme