সর্বশেষ আপডেট
অধ্য;ক্ষের সঙ্গে মহিলা ইউপি সদস্যের ন’গ্ন ভিডিও ফাঁ’স

অধ্য;ক্ষের সঙ্গে মহিলা ইউপি সদস্যের ন’গ্ন ভিডিও ফাঁ’স

ইউপির সাবেক সদস্যের সঙ্গে কলেজ অধ্যক্ষের ন’গ্ন ভিডিও ফাঁ’সের পর ফেসবুকে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। সে সঙ্গে এই ভিডিওটি দিরাই উপজে’লা জুড়ে ব্যাপক মুখরোচক আলোচনা ও সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।অন্যদিকে, কলেজের সুনাম নষ্ট ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে বি’রূপ প্রতিক্রি’য়ার সৃষ্টি হয়েছে। আর এ খবরের ভেতরের খবর জানতে সবাই বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা ও গুগলে সার্চ দিয়ে ভিডিওটি খুঁজছে।

ফলে এ খবরটি সুনামগঞ্জের ওই এলাকায় টক অব দ্য টাউনে পরিণত হয়েছে। জে’লার দিরাই বিবিয়ানা মডেল কলেজের অধ্যক্ষ নৃপেন্দ্র কুমার দা’সের সঙ্গে কুলঞ্জ ইউপির সাবেক সদস্যের আট মিনিটের একটি অ’শ্লীল ভিডিও মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে ফেসবুকে মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে পড়ে। ওই ভিডিওটিতে অধ্যক্ষ নৃপেন্দ্র কুমার দা’স ও ওই ইউপি সদস্যকে বেশ আ’পত্তিকর অবস্থায় দেখতে পাওয়া যায়। ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ায় অনেকেই বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন।

এ নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ একেক জন একেক রকম মন্তব্য করে বলেন, কলেজের অধ্যক্ষের এমন ক’র্মকাণ্ডে আমরা হতভম্ব হয়েছি। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের কাছে দা’বি জানাচ্ছি।ভিডিওটির বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যক্ষ নিপেন্দ্র দা’স বলেন, এডিটিং করে ভিডিওটি প্রচার করা হয়েছে। একটি মহল নিজ স্বার্থ হাসিলে ব্যর্থ হয়ে এসব করছে।

আরো পড়ুনঃ নওগাঁর রানীনগরে ভাই-ভাবিকে মা’রধর করে গাছের সঙ্গে বেঁধে বিবদমান জমি দখল করে ঘর নির্মাণের অ’ভিযোগ উঠেছে বোনের বি’রুদ্ধে। খবর পেয়ে পু’লিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আ’হতদের উ’দ্ধার করে। পরে আ’হত ভাই শহিদুল মন্ডল ও তার ভাবি জান্নাতুন নেছাকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে উপজে’লার গুয়াতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক বছর আগে মৃ’ত নবির উদ্দিন মন্ডলের ছোট মেয়ে সাহারা খাতুন মেওয়া বসতবাড়িসহ বেশ কিছু জায়গা-জমি বাবার কাছ থেকে দলিল করে নেন।

এ নিয়ে সাহারা খাতুন মেওয়া ও তার ভাইদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ ঘটনায় সুষ্ঠু সমাধান করতে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা কয়েক দফা বৈঠক করে। কিন্তু কোনো সুরাহা না হওয়ায় সাহারা খাতুনের বড় ভাই শহিদুল ইস’লাম আ’দালতে একটি বাটোয়ারা মা’মলা করেন। হঠাৎ করেই মঙ্গলবার সকালে ছোট বোন মেওয়া খাতুন বহিরাগত ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে বাড়ির জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণের চেষ্টা করে।

এ সময় বাধা দিতে গেলে ভাই শহিদুল ইস’লাম ও তার দুই ভাবি আঞ্জুয়ারা, জান্নাতুন নেছাকে মা’রপিট করে গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে ঘর নির্মাণ করতে থাকে। এ সময় গো’পনে স্থানীয়রা মোবাইল ফোনে ছবি ধারণ করে রাখে। খবর পেয়ে পু’লিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের উ’দ্ধার করে। পরে তাদের নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আ’হত শহিদুলের ছোট ভাই আবু হানিফ মন্ডল বলেন, দীর্ঘ দিন আগে তার ছোট বোন সাহারা খাতুন মেওয়া বাবার নিকট থেকে তাদের বসত বাড়িসহ বেশ কিছু জায়গা-জমি দলিল করে নেয়।

এ ঘটনায় স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কয়েক দফা বৈঠক করেন। কিন্তু কোনো সমাধান না হওয়ায় ভাই শহিদুল ইস’লাম আ’দালতে একটি বাটোয়ারা মা’মলা করেন। হঠাৎ করেই ছোট বোন লোকজন নিয়ে এসে ভাই-ভাবিদের মা’রপিট করে জমি দখলের চেষ্টা করেন। এ ব্যাপারে অ’ভিযুক্ত সাহারা খাতুন মেওয়া বলেন, বাবার নিকট থেকে দলিল করে নেয়ার পর থেকে তারা আমা’র জায়গা ছেড়ে দিচ্ছিল না। বাধ্য হয়ে স্থানীয় গণ্যমান্যদের পরাম’র্শে লোকজন নিয়ে ঘর করতে গিয়েছিলাম।

তারা বাধা দিলে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। রানীনগর থা*না পু’লিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) জহুরুল হক বলেন, ভাই-বোনের মধ্যে তিন শতক জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছিল। ভাইয়েরাও জানত জমিটা বোনের। জমির মালিক জমিতে ঘর ওঠাতে গিয়ে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে। তবে গাছে বেঁধে নি’র্যাতনের বিষয়টি জানা নেই। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের নিকট থেকে লিখিত অ’ভিযোগ পেয়েছি । বিষয়টি ত’দন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme