সর্বশেষ আপডেট
প্রেমিককে পেতে কনকনে শীতে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসলো ১৪ বছরের কিশোরী । আমাদের নিয়ে আযহারী হুজুর ছাড়া আর কেউ এমন কথা বলেনিঃ হিজড়া প্রধান । প্রভাকে বিয়ে করলেন ইন্তেখাব দিনার । বিয়েতে সৌদি নারীদের পছন্দের শী’র্ষে বাংলাদেশি পুরু’ষরা । আজ ১৯/০১/২০২০ তারিখ, দিনের শুরুতেই দেখে নিন আজকের টাকার রেট কত । দেহ ব্যবসা করতে করতে যেভাবে আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন হলেন আলিয়া । শারীরিক সম্পর্কে মোটা পুরুষেরা বেশি সক্রিয়, বলছে গবেষণা । ওয়াজে তারেক মনোয়ারের বক্তব্য নিয়ে ফেসবুকে তুমুল আলোচনা । পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে হোটেলে গিয়ে যেভাবে খু’ন করা হল গৃহবধূকে । ফেব্রুয়ারির ১ তারিখে হচ্ছেনা এসএসসি পরীক্ষা ।
ফেসবুকে প্রেম হোটেলে রাত্রিযাপন, কাঁদলেন কলেজছাত্রী

ফেসবুকে প্রেম হোটেলে রাত্রিযাপন, কাঁদলেন কলেজছাত্রী

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় স্ত্রীর পরিচয় পেতে মোসা. ফারজানা আক্তার সুমি নামে এক শিক্ষার্থী স্থানীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। লিখিত বক্তব্যে সুমি জানান, তিনি কলাপাড়া উপজেলার চাকামইয়া ইউনিয়নের চুঙ্গাপাশা গ্রামের মৃত সিদ্দিকুর রহমানের মেয়ে। বর্তমানে বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজে ব্যবস্থাপনা বিষয়ে তৃতীয়বর্ষে অধ্যয়নরত।

তার সঙ্গে অন্তত আড়াই বছর আগে একই উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের চারিপাড়া গ্রামের নাজির হাওলাদারের ছেলে বর্তমানে নর্দান ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত বায়েজিদ আহম্মেদের ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয়। সেই থেকেই তাদের মধ্যে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। একপর্যায়ে বায়েজিদ বরিশাল এসে তার সঙ্গে দেখা করে। এভাবে বিষয়টি ঘনিষ্ঠতায় রূপ নিলে বায়েজিদ তার সঙ্গে স্বামী-স্ত্রীর মতো আচরণ শুরু করেন।

এরপর ফারজানা একত্রে রাত্রি যাপনে আপত্তি জানালে তিনি হুজুর ডেকে তাৎক্ষণিক কাবিন ছাড়াই কলমা সম্পন্ন করেন। পরে স্ত্রীর মর্যাদায় বিভিন্ন সময় তারা বিভিন্ন হোটেলে রাত্রি যাপন করে। এমনকি মাঝে মাঝে তাকে লঞ্চ যোগে ঢাকায়ও নিয়ে যায়। এদিকে, ফারজানার পরিবার তাকে অন্যত্র বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে তার ভালবাসার টানে তা প্রত্যাখান করে। অপরদিকে বায়েজিদকে স্ত্রীর মর্যাদা দিতে বললে তিনিও টালবাহানা শুরু করেন।

এতে ফারজানা আক্তার সুমি গত ২৯ ডিসেম্বর বায়জিদের বাড়িতে অবস্থান নিলে বায়েজিদের মা তার সঙ্গে ছেলের স্ত্রীর মতই আদর আপ্যায়ন করেন। সে সময় সুমিকে বুঝিয়ে কোনো মতে সালিশ বিচারের নাম করে তাকে তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। পরে শনিবার (১১ জানুয়ারি) ফারজানা আক্তার সুমি বেলা ১১টার দিকে পুনরায় স্ত্রীর মর্যাদা পেতে ওই বাড়িতে অবস্থান নিলে বায়েজিদের বাবা নাজির হাওলাদার তাকে গালমন্দ করেন।

একপর্যায়ে কৌশলে ঘটনার সুরাহার কথা বলে পুলিশের আশ্রয় নেয় নাজির। কলাপাড়া থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক শওকত জাহান তাকে ওই বাড়ি থেকে নিয়ে আসতে গেলে সুমি একমাত্র উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আদেশ ছাড়া যাবেন না বলে জানিয়ে দেন। পরে ইউএনও মুনিবর রহমান সুমিকে ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দিয়ে থানায় যেতে বলেন।

এরপর থানা কর্তৃপক্ষ তাদের করার নেই বলে তার এক আত্মীয়র মাধ্যমে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। তবে সুমি বায়েজিদের স্ত্রীর মর্যাদা না পেলে আত্মহ ত্যার পথ বেছে নিবে বলে ওই সংবাদ সন্মেলনে উল্লেখ করেন। যদিও সংবাদ সম্মেলন না করতেও নাজির হাওলাদারের পক্ষ থেকে তাকে বিভিন্নভাবে চাপ দেয়া হয়েছে বলে সুমি উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে বায়জিদের দু’টি মোবাইল ফোনে একাধিকবার চেষ্ট করেও সংযোগ পাওয়া যায়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme