হটাৎ যে কারণে রংপুরে সাকিব!

হটাৎ যে কারণে রংপুরে সাকিব!

রংপুর বিভাগের কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারীতে ‘ফ্রেন্ডশিপ’ নামে একটি বেসরকারি সংস্থার কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন সদ্য ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হওয়া বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। শ‌নিবার (৩০ নভেম্বর) সকা‌লে হে‌লিকপ্টারে করে উপজেলার নয়ারহাট ইউনিয়নে আসেন সাকিব। ফ্রেন্ড‌শিপের চিলমারী শাখার ম্যা‌নেজার (ফিল্ড অপা‌রেশন) শ‌ফিয়ার রহমান জানান,

‘ফ্রেন্ড‌শি‌পের নির্বাহী প‌রিচালক রুনা খা‌নের সফরসঙ্গী হ‌য়ে সা‌কিব চিলমারীর নয়ারহাট ইউ‌নিয়‌নে আসেন। তি‌নি সেখা‌নে ফ্রেন্ড‌শিপ সংস্থার ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ও তাঁত প্রক‌ল্পের বি‌ভিন্ন কার্যক্রম প‌রিদর্শন ক‌রেন।’ উল্লেখ্য, ভারতীয় জুয়াড়ি মায়াঙ্ক আগারওয়ালের কাছ থেকে তিনবার ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাবটি গোপন করায় সাকিবকে দুই বছর নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। এর মধ্যে এক বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞা। তাতে করে ২০২০ সালের অক্টোবরে শেষ হবে তার শাস্তির মেয়াদ।

উল্লেখ্য, প্রথমবারের মতো সাকিবকে ছাড়াই ভারত সফরে গেল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। তাকে ছাড়াই আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায় দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে নামবে বাংলাদেশ।জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় সাকিব আল হাসানকে সব ধরনের ক্রিকেটে দুই বছর নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। অবশ্য তিনি দায় স্বীকার করে নেয়ায় এক বছর নিষেধাজ্ঞা স্থগিত রাখা হয়েছে।অর্থাৎ এক বছর ধরে মাঠের বাইরে থাকবেন বাংলাদেশের শীর্ষ অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

তবে এই সময়ের মধ্যে তিনি কি অনুশীলন করতে পারবেন? এ বিষয়ে বিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নিয়মের মধ্যে থেকে তাকে সব ধরনের সহযোগিতা করবে বিসিবি।শনিবার (২ নভেম্বর) ‘আবার ক্রিকেট’ শীর্ষক বৈঠকে এমনটিই জানালেন বিসিবির দুই কর্মকর্তা মাহবুব আনাম ও কাজী ইনাম আহমেদ।ওই বৈঠকে বিসিবি পরিচালক এবং গ্রাউন্ডস ও এইচপি ইউনিটের প্রধান মাহবুব আনাম বলেন, ‘বিসিবি সবসময়ই সাকিবের পাশে থাকবে। তবে অবশ্যই সেটি নিয়মের মধ্যে থেকেই। ’

তিনি বলেন, ‘পাবলিক ফ্যাসিলিটি- যেটি বোর্ডের তত্ত্বাবধানে নয়, সেটি ব্যবহার করতে পারবে সাকিব। কিন্তু এসিইউ আচরণবিধি অনুযায়ী, বোর্ডের অবকাঠামো ব্যবহার করতে পারবে না।’মাহবুব আনাম আরও বলেন, ‘তবে শাস্তির মেয়াদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিসিবির কোচ, অফিসিয়াল ও যেকোনো জায়গায় অংশ নেয়া থেকে বিরত থাকতে হবে সাকিবকে। এটিই আইসিসির নিয়ম। এ নিয়ম না মেনে আমাদের উপায় নেই।’এ নিয়ম সাকিব বা বিসিবিকে মেনে চলতে হবে। এটি না মানলে সাকিবেরই ক্ষতি হবে বলে জানান তিনি।তা হলে সাকিবকে কীভাবে সহযোগিতা করবে বিসিবি? সত্যি কি তিনি অনুশীলন করতে পারবেন? এ প্রশ্ন যেন থেকেই যায়।

জবাবে বিসিবি পরিচালক ও সিসিডিএম চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ বলেন, এ বিষয়টি আমরা দেখব। তিনি বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন সাকিব বোর্ড থেকে কী কী সুযোগ-সুবিধা পেতে পারে সে বিষয়ে আমরা আমাদের আইনি উপদেষ্টার সঙ্গে বসব। আমরা আরও ভালো করে যাচাই করব। সবার আগে এ নিয়ে আইসিসির সঙ্গেও যোগাযোগ করব। আমরা চাইব এ সময়টি সাকিব যেন বোর্ড থেকে সর্বোচ্চ সুযোগটা পাক।’ এ সময় অন্য দেশের উদাহরণ দেন কাজী ইনাম।

তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া কিংবা ইংল্যান্ডের বেশ কিছু জায়গায় বোর্ডের সুযোগ-সুবিধার বাইরে অনেক কিছু থাকে। কিন্তু আমাদের সেই সুযোগ-সুবিধা নেই। আমরা এ নিয়ে আইসিসির সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারি কিনা, দেখব।’ প্রসঙ্গত এক বছর যেকোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা শেষে আগামী বছরের ২৯ অক্টোবর থেকে আবার মাঠে নামতে পারবেন সাকিব। সাকিব আরও শক্তিশালী হয়ে বাংলাদেশ দলে ফিরবেন বলে আশা ব্যক্ত করেছেন তার স্ত্রী।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme