সর্বশেষ আপডেট
যে ছেলেগুলোর মন সুন্দর ও পরিষ্কার হয়, এবং তারা কেয়ারিং হাজব্যান্ড ও হয় জানালেন গবেষণা । প্রেমিকাকে খুশি রাখতে গবেষণা যে সামান্য কাজ করতে বললেন । তখনই বুঝবেন আপনার স্ত্রী এ যুগের শ্রেষ্ঠ স্ত্রী? যে কারণে পুরুষরা খালি পেটে কাঁচা ছোলা খাবেন । দুই হাত ছাড়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরিয়ে এই ফাল্গুনী আজ অফিসার । নে’কাব খুলতে বলায় বিমানবন্দর থেকেই ফি’রে গে’লেন মুসলিম না’রী । ১২০ কেজি স্বর্ণ খ’চিত নতুন গি’লাফে ঢে’কেছে পবিত্র কাবা । যে কারণে এয়ার ইন্ডিয়া বি’ক্রি করে দি’চ্ছে ভারত সরকার । ইউরোপের যে ৪ দেশ থেকে আসছে পেঁয়াজ,এখনি জানুন । বিদেশে নারীক’র্মী পা’ঠানো বন্ধে হাইকোর্টে রিট ।
চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুরো কুরআন মুখস্থ করলো মানসিক প্রতিবন্ধি আব্দুল্লাহ ।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুরো কুরআন মুখস্থ করলো মানসিক প্রতিবন্ধি আব্দুল্লাহ ।

আমাদের চারপাশে এমন অনেক মানুষ আছে যারা চেষ্টা করেও কুরআন মুখস্ত করতে পারে না। কিন্তু আল্লাহর একান্ত মেহেরবানীতে মানসিক প্রতিবন্ধি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি পুরো পবিত্র কুরআন মুখস্ত করেছেন। ৩১ বছর বয়সের যুবক আল-কারনি মানসিক প্রতিবন্ধি। মানসিক ভাবে অক্ষম ব্যক্তি। অসুস্থ হওয়া সত্ত্বেও পুরো কুরআন মুখস্ত করে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি।

চিকিৎসা বিজ্ঞানের মাধ্যমে তার পরিবার জানতে পারে যে, মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি লিখতে ও পড়তে পারবে না। এ কারণে তাকে স্কুলেই ভর্তি করানো হয়নি। হাসপাতলেই কেটেছে তার জীবনের অধিকাংশ সময় কেটেছে। কোনো মাদ্রাসায় ভর্তি না হয়েই প্রাতিষ্ঠানিক পড়ালেখার ক্ষমতা ছাড়াই হৃদয় দিয়ে পুরো মুখস্ত করে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি শুধু মানসিক অসুস্থই নয়, বরং তার শারীরিক অঙ্গ প্রত্যঙ্গেও রয়েছে অসঙ্গতি। তার ভাই মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানান, ‘কারনি শারীরিক স’ম’স্যা নিয়ে এভাবেই জন্ম গ্রহণ করে। জন্মের পর তার একটি মু’ত্র’না’লী নষ্ট হয়ে গেছে। একটি মাত্র পেলভিস নিয়ে সে বেঁচে আছে। এখনও সে রিয়াদের কিং ফাহাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

মানসিক অসুস্থ মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি যেমন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছাড়াই পবিত্র কুরআন মুখস্ত করতে সক্ষম। তাই মানসিক অসুস্থ সব সন্তানকে কুরআনের শিক্ষা দেয়ার চেষ্টা করা যেতে পারে। আল্লাহ তাআলা কুরআনের প্রভাবে মানসিক ও শারীরিক অসুস্থ ব্যক্তিকে সুস্থও করে দিতে পারেন। আল্লাহ তাআলা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল-কারনিকে পরিপূর্ণ সুস্থতা দান করুন।

আল্লাহর একান্ত মেহেরবানীতে হৃদয় দিয়ে আপ্রাণ প্রচেষ্টার পর মানুষ পবিত্র কুরআন মুখস্ত করতে সক্ষম হয়। বিশ্বে এমন অনেক নজির আছে যারা চেষ্টা করেও কুরআন মুখস্ত করতে পারে না। কিন্তু মানসিক প্রতিবন্ধি মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি এর ব্যতিক্রম। তিনি পুরো পবিত্র কুরআন মুখস্ত করেছেন।

৩১ বছর বয়সের যুবক আল-কারনি মানসিক প্রতিবন্ধি। মানসিকভাবে অক্ষম ব্যক্তি। অসুস্থ হওয়া সত্ত্বেও পুরো কুরআন মুখস্ত করে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। চিকিৎসা বিজ্ঞানের মাধ্যমে তার পরিবার জানতে পারে যে, মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি লিখতে ও পড়তে পারবে না।

এ কারণে তাকে স্কুলেই ভর্তি করানো হয়নি। হাসপাতলেই কেটেছে তার জীবনের অধিকাংশ সময় কেটেছে।কোনো মাদ্রাসায় ভর্তি না হয়েই প্রাতিষ্ঠানিক পড়ালেখার ক্ষমতা ছাড়াই হৃদয় দিয়ে পুরো মুখস্ত করে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

সৌদি বংশোদ্ভূত মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি শুধু মানসিক অসুস্থই নয়, বরং তার শারীরিক অঙ্গপ্রত্যঙ্গেও রয়েছে অসঙ্গতি। তার ভাই মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানান, ‘কারনি শারীরিক সমস্যা নিয়ে এভাবেই জন্ম গ্রহণ করে। জন্মের পর তার একটি মুত্রনালী নষ্ট হয়ে গেছে।

একটি মাত্র পেলভিস নিয়ে সে বেঁচে আছে। এখনও সে রিয়াদের কিং ফাহাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। মানসিক অসুস্থ মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-কারনি যেমন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ছাড়াই পবিত্র কুরআন মুখস্ত করতে সক্ষম। তাই মানসিক অসুস্থ সব সন্তানকে কুরআনের শিক্ষা দেয়ার চেষ্টা করা যেতে পারে। আল্লাহ তাআলা কুরআনের প্রভাবে মানসিক ও শারীরিক অসুস্থ ব্যক্তিকে সুস্থও করে দিতে পারেন।

আরো পড়ুন… পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়া। ৫০ শতাংশ মুসলিম জনসংখ্যা অধ্যুষিত দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় জামফারা প্রদেশ সম্প্রতি কুরআন অবমাননার অপরাধে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃ’ত্যুদণ্ডাদেশ ঘোষণা করেছে । দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় জামফারা রাজ্যের কর্মকর্তারা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন যে, যারা পবিত্র কুরআনুল কারিম অবমাননা করবে তাদেরকে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃ’ত্যুদণ্ড দেয়া হবে।

জামফারা রাজ্যের গভর্নর বালু মুহাম্মদ মেটাওয়াল বলেন, ‘কুরআনুল কামির মুসলিম উম্মাহর পবিত্র ধর্মগ্রন্থ। কুরআনের মর্যাদা রক্ষায় শীঘ্রই কুরআন অবমাননার শাস্তি হিসেবে মৃ’ত্যুদণ্ড বিল কার্যকর করা হবে।

আরো পড়ুন… সম্প্রতি ভোলায় একটি ফেইসবুক স্টাটাসকে কেন্দ্র করে উত্তাল সারাদেশ। যে স্টাটাসে আল্লাহ ও মহানবী (সা) কে নিয়ে কটুক্তি করা হয়। পুলিশ এটাকে গুজব বললেও এর প্রতিবাদ করে তৌহিদ মুসলিম নামের সাধারন জনতা। যেখানে হামলায় ৪ জনের মৃ’ত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে।এমন ঘটনার পর নিজের ফেইসবুক পেজে একটি স্টাটাস দিয়েছেন মিরাজ। যেখানে তিনি অপরাধীদের বিচার দাবী করেন।

মিরাজ তার পোস্টে লিখেন, ‘শতকরা প্রায় ৯০% ইসলাম ধর্মাবলম্বী কট্টর মুসলিম প্রধান দেশ সুজলা সুফলা সবুজের ছায়ামূর্তি ধারক আমাদের বাংলাদেশ। আমাদের রাজধানী ঢাকাকে বলা হয় মসজিদের নগরী।আমরা শান্তিপ্রিয় সম্ভ্রান্ত চেতনাধারী।বিবাদ,হানাহানি কিংবা খু’নখারাবি ইসলাম ধর্ম সমর্থন করেনা বলেই বিশ্বব্যাপী “শান্তির ধর্ম” খ্যাতী পেয়েছে ইসলাম।

সব ধর্মকেই সমান অধিকার দেয়া হয় বাংলাদেশে,যা ইতিমধ্যেই সাড়া ফেলেছে সারাবিশ্বে।অথচ আমাদের দেশেই খ্রিষ্টীয় লেখক মাইকেল এইচ হার্টের করা বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ১০০ মণিষীর জীবনীতে প্রথম স্থানে থাকা রহমতের নবী “হযরত মোহাম্মদ সাঃ” কে গা লি দিবে অন্য কোনো ধর্মাবলম্বী কেউ,সেটা মুসলিম হয়ে আমর সইবো কিভাবে? কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়া ইসলাম ধর্ম শেখায়না,তাই বলে কি আমাদের উপরই আঘাত পড়বে?

আমরা এগুলো সইতে পারিনা,কারন আমরা আল্লাহ,তার রাসূল এবং ইসলাম ধর্মকে ভালোবাসি। অপরাধী যে ই হোকনা কেনো,আমরা তার বিচার চাই। এমন শা স্তি হোক,যাতে অন্য কেউ এই ধরনের কাজ করার সাহসই না পায় ভবিষ্যতে। ইসলাম শান্তির ধর্ম। আমি গর্বিত আমি মুসলিম! মানবিকতা আর ঐক্য কেমন করে নিষ্ক্রিয় হয়ে যাচ্ছে, একটি পতাকায় বিশ্বাস করে আমাদের চলা উচিৎ।

কোন ধর্মের প্রতি কেউ বিদ্বেষ ছড়ানোটা কোনো মানুষের পক্ষের কাজ হতে পারেনা, ঠিক তেমনি ইসলাম বা রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে নিয়ে যারা কু টুক্তি এসব করছেন বা করেন দয়া করে তা বন্ধ করে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে একজাতি হয়ে বসবাস নিশ্চিত করুন। আমার আল্লাহ এবং রাসুলকে নিয়ে কেউ কোন কটুক্তি করবেন না।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 newstodaybd.com
Design BY NewsTheme
[X]